চকরিয়ায় চাঞ্চল্যকর হাফেজ রুহুল আমিন খুনের মামলার এজাহারভুক্ত আসামী গ্রেপ্তার

চকরিয়ায় পুলিশের অভিযানে রুহুল আমিন খুনের মামলার এজাহারভুক্ত আসামী রমজান আলী গ্রেফতার হয়েছে।
কক্সবাজারের চকরিয়া উপজেলার কৈয়ারবিল ইউনিয়নের চাঞ্চল্যকর হাফেজ মাওলানা রুহুল আমিন হত্যাকান্ডের মামলার এজাহারনামীয় ৫নম্বর আসামী রমজান আলীকে (২০) গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। সোমবার রাতে চকরিয়া থানার এস আই আবদুল্লাহ আল মাসুদের নেতৃত্বে পুলিশের একটিদল গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে চকরিয়া পৌরশহরের চিরিংগা বাজার এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা করে। গ্রেপ্তারকৃত রমজান কৈয়ারবিল ৯নম্বর ওয়ার্ডের নয়াপাড়া এলাকার মো. বেলালের ছেলে।
অভিযানে অংশনেয়া চকরিয়া থানার এসআই ও মামলার তদন্ত কর্মকর্তা আবদুল্লাহ আল মাসুদ বলেন, চলতি বছরের গত ৫ অক্টোবর উপজেলার কৈয়ারবিল ইউনিয়নের মধ্যম নয়াপাড়া এলাকায় জমি বিরোধের জেরে হাফেজ রুহুল আমিন ও তার ভাই মাস্টার মামুনুর রশিদ গংয়ের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এতে প্রতিপক্ষের লোকজন হাফেজ রুহল আমিনকে ধারালো অস্ত্রের আঘাতে গুরুতর জখম করে। ঘটনার পরপর তাকে চকরিয়া উপজেলা হাসপাতালে নেয়ার পথে মারা যান হাফেজ রুহুল আমিন।
এ ঘটনায় নিহতের মেঝ ছেলে এমদাদ উল্লাহ বাদী হয়ে পরদিন গত ৬ অক্টোবর রাতে চকরিয়া থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করে। ওই মামলায় পুলিশ প্রধান আসামী বেলাল উদ্দিনসহ ইতোমধ্যে দুইজনকে গ্রেপ্তার করেছে।
মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এসআই আবদুল্লাহ আল মাসুদ বলেন, ঘটনার পর থেকে মামলার এজাহারনামীয় অপরাপর আসামিরা পলাতক ছিলেন। এ অবস্থায় প্রযুক্তি ব্যবহারে মাধ্যমে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে সোমবার রাতে এজাহারনামীয় ৫নম্বর আসামী রমজান আলীকে চিরিংগা বাজার এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।
চকরিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. হাবিবুর রহমান বলেন, ঘটনার পরপর অভিযান চালিয়ে রুহুল আমিন হত্যা মামলার দুই আসামিকে গ্রেফতার করা হয়। সর্বশেষ সোমবার রাতে গ্রেফতার হয়েছে এজাহারনামীয় ৫নম্বর আসামী রমজানকে।
তিনি বলেন, মঙ্গলবার দুপুরে গ্রেফতারকৃত আসামী রমজান আলীকে চকরিয়া উপজেলা সিনিয়র জুড়িসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে পাঠানো হয়। ওইসময় আসামি রমজান আলী আদালতের কাছে ঘটনায় জড়িত থাকার দায় স্বীকার করে ১৬৪ধারায় জবানবন্দি দিয়েছেন। ##

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Application to the Ministry of Information for registration.