বুদ্ধিমত্তা, সাহসিকতা ও বীরত্বের জন্য প্রশংসাপত্র ও শুভেচ্ছা পুরস্কার পেলো নওগাঁর রাণীনগরে ট্রেন রক্ষাকারী শিক্ষার্থীরা

চঞ্চল এ বাশার, নওগাঁ

বুদ্ধিমত্তা, সাহসিকতা ও বীরত্বের জন্য প্রশংসাপত্র ও শুভেচ্ছা পুরস্কার পেলো নওগাঁর রাণীনগরে ট্রেন রক্ষাকারী শিক্ষার্থীরা। আজ সোমবার দুপুরে জেলা প্রশাসক আয়োজিত জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে জেলা আইন-শৃঙ্খলা কমিটির সভা শেষে তাদের এ পুরস্কার প্রদান করা হয়। 

তারা হলো উপজেলার পশ্চিম গবিন্দপুর গ্রামের ৭ম শ্রেণীর শিক্ষার্থী তাইম হোসেন (১৫), বড়বড়িয়া গ্রামের ৫ম শ্রেনীর শিক্ষার্থী  হিমেল হোসেন (১১), বিজয়কান্দি গ্রামের ৬ষ্ঠ শ্রেনীর শিক্ষার্থী  অন্তর হালদার (১১), একই গ্রামের ৭ম শ্রেনীর শিক্ষার্থী বিপ্লব হালদার (১৪), পশ্চিম গোবিন্দপুর গ্রামের ৫ম শ্রেনীর শিক্ষার্থী ইব্রাহিম প্রান্ত (১৩) একই গ্রামের রাণীনগর শেরে বাংলা কলেজের শিক্ষার্থী বাধন হোসেন (২১), রাজশাহী পলিটেকনিক ইন্স-ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ারে ছাত্র আরিফ হোসেন (২১), নওগাঁ সরকারি কলেজের শিক্ষার্থী  ইয়া রাকিব হোসেন (২১) ও কৃষক লোকমান হোসেন (৫১)।

এসময় জেলা প্রশাসক মোঃ হারুন-অর-রশীদ, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার রাশিদুল হক, নওগাঁ পৌর সভার মেয়র নজমুল হক সনি, রাণীনগর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন হেলাল, নির্বাহী কর্মকর্তা আল মামুন, জেলা প্রেস ক্লাবের সভাপতি নবীর উদ্দিনসহ জেলা ও উপজেলা পর্যায়ের বিভিন্ন সরকারী কর্মকর্তা, জেলার সকল উপজেলার চেয়ারম্যান ও উপজেলা নির্বাহী অফিসারবৃন্দরা উপস্থিত ছিলেন। জেলা প্রশাসক মোঃ হারুন-অর-রশীদ বলেন ,তাদের সাহসীকতার পুরস্কার দেওয়া সম্ভব নয়। তবে তারা যে ভালো কাজটি করেছে শুধুমাত্র তাদেরকে ভালো কাজে উৎসাহিত করতেই মূলত এই শুভেচ্ছা উপহার দেওয়া হয়। আর তাদের এই ভালো কাজের জন্য প্রদান করা প্রশংসাপত্র আগামীতে তাদেরকে আরোও ভালো কাজের প্রতি উৎসাহ ও সাহস প্রদান করবে এবং তাদের দেখাদেখি সমাজের অন্যান্য মানুষরাও ভালো কাজে উৎসাহিত হবেন বলে আমি আশাবাদি।

উল্লেখ্য, গত ১নভেম্বর সন্ধ্যায় উপজেলার গোনা ইউনিয়নের বড়বড়িয়া নামক স্থানে রেল লাইনের একটি অংশ ভেঙ্গে যায়। যা ওই এলাকার একদল ক্ষুদে শিক্ষার্থীরা দেখতে পায়। তার একটু পরেই ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা দিনাজপুরগামী আন্তঃনগর একতা এক্সপ্রেস ট্রেন ঘটনাস্থল অতিক্রম করার সময় ছিলো। এর আগেই তারা পরিহিত শার্ট, গামছা, গেঞ্জি যার কাছে যা ছিলো সেটা বাঁশের কঞ্চিতে বেঁধে সংকেত দিয়ে ট্রেন থামায়। তাদের এই তাৎক্ষণিক বুদ্ধির কারণে ট্রেনে থাকা যাত্রীদের বড় ধরনের দুর্ঘটনার হাত থেকে প্রাণ বাঁচান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Application to the Ministry of Information for registration.