আমার মৃত্যুর পরও চকরিয়া প্রেসক্লাব যেন আল্লাহ বহাল রাখেন

একান্ত সাক্ষাতকারে চকরিয়া প্রেসক্লাবের প্রধান উপদেষ্টা প্রবীন সাংবাদিক জনাব জাকের উল্লাহ চকোরী ও সাক্ষাতকার গ্রহনে সাংবাদিক এসএম হান্নান শাহ্।

১৯৮০ সালে কক্সবাজার জেলার চকরিয়া উপজেলায় কর্মরত সাংবাদিকের সংখ্যা ছিল মাত্র ৭ জন।১৯৮২ সালে চকরিয়ায় সর্ব প্রথম প্রেসক্লাব গঠন করা হয়। একটি ভাড়ায় নেওয়া কার্যালয়ে অত্যান্ত দুঃখের বিষয় কক্সবাজারের চকরিয়া উপজেলা অর্থনৈতিক দিক দিয়ে উর্বর এলাকা হিসেবে পরিচিত হলেও শুরু থেকে আজ পর্যন্ত সাংবাদিকদের অনৈক্যের কারনে চকরিয়ায় একটি স্থায়ী প্রেসক্লাব নিজস্ব ভবনসহ কেউ গড়ে তুলতে পারেননি। এভাবে ৩ যুগ অতিবাহিত হওয়ার পর গত ৫ বছর পূর্বে প্রায় ৪০ জন সদস্যদের সমন্বয়ে চকরিয়ার ইতিহাসে অভূতপুর্ব দৃষ্টান্ত স্থাপন করে সুষ্টু নির্বাচনের মাধ্যমে একটি প্রেসক্লাব গঠন করা হয়। যে নির্বাচনে কক্সবাজার প্রেসক্লাব, পেকুয়া প্রেসক্লাব, লামা প্রেসক্লাব ও আলিকদম প্রেসক্লাবের নেতৃবৃন্দসহ স্থানীয় সরকারী প্রশাসনিক কর্মকর্তাগন ও বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতৃবৃন্দ নির্বাচন চলাকালীন সময়ে উপস্থিত ছিলেন পর্যবেক্ষণ করেন। পরবর্তি পর্যায়ে কয়েকজন ক্ষমতা লোভী সদস্য তাদের পছন্দ অনুযায়ী পদ পেতে অযোগ্যতার কারনে সদস্যদের কাছে জনপ্রিয়তায় ধ্বস নামায় এবং ঐক্যবদ্ধ প্রেসক্লাবকে ভেঙ্গে চুরমার করার প্রতিহিংসায় নেমে পড়েন। পরে সুন্দর সাজানো প্রেসক্লাব থেকে কোন কারন ছাড়া একযোগে ১২ জন সদস্য এই ক্লাব থেকে চলে গিয়ে হোটেলে বসে নতুন একটি প্রেসক্লাব ঘোষনা দেয়। কিছুদিন পর ঐ ষড়যন্ত্রকারীরা ওই ক্লাব থেকেও সরে আসে। যারা প্রথম প্রেসক্লাবেও নেই, হোটেল প্রেসক্লাবেও নেই। নির্বাচনের মাধ্যমে অনুষ্টিত প্রথম প্রেসক্লাবে সমান সংখ্যক ভোট পাওয়ায় প্রথম বছর এম অার মাহমুদ ও পরবর্তি বছর এম জাহেদ চৌধুরী সভাপতির দায়িত্ব পালন করেন। দ্বিতিয় নির্বাচনে বিপুল ভোটে সভাপতি পদে আবদুল মজিদ নির্বাচিত হন। এসময়ে ক্লাব ভাঙ্গার ষড়যন্ত্র শুরু হয়। তৃতীয় নির্বাচনের আগে ১২ জন সদস্য ক্লাব ছেড়ে চলে গেলেও সময় ও শ্রুোত কারো জন্য অপেক্ষা করেনি। ঐতিহ্যবাহী এ প্রেসক্লাবের তৃতীয় মেয়াদের নির্বাচন সকল ষড়যন্ত্রকে উপেক্ষা করে আল্লাহর অশেষ রহমতে অনুষ্টিত হয়। এ নির্বাচনে দ্বীতিয় বারের মত সভাপতি পদে আবদুল মজিদ পুণরায় নির্বাচিত হন। কয়েকদিন আগে প্রেসক্লাবের ৫ম বর্ষপুর্তি উদযাপন করা হয়।  আসুন ক্ষমতার পদ লোভী না হয়ে চকরিয়ার ইতিহাসে রেকর্ড সৃষ্টি করে গড়া সু- সজ্জিত প্রেসক্লাবে পুণরায় ঐক্যবদ্ধ হই। এতে  আমাদের সম্মান বৃদ্বি পাবে সর্বক্ষেত্রে। পদের চেয়ে ঐক্যবদ্ধ প্রেসক্লাবের ভূমিকা হবে সব মহলে প্রশংসনীয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Application to the Ministry of Information for registration.