জেলা ছাত্রলীগের নতুন কর্ণধার হতে পারেন মুন্না চৌধুরী

 

এ.কে.এম রিদওয়ানুল করিম, কক্সটিভিঃ

কক্সবাজার জেলা ছাত্রলীগের সম্মেলনকে নিয়ে ইতিমধ্যে শুরু হয়েছে নানা ধরনের আলাপ আলোচনা। নতুন নেতৃত্বে কে বা কারা আসছেন ? নিয়ে চলছে নানা জল্পনা কল্পনা। সমগ্র কক্সবাজার জেলায় ছাত্রলীগের সর্বস্তরের নেতাকর্মীদের মাঝে বিষয়টি যেন আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে পরিনত হয়েছে। অনেকেই ইতিমধ্যে নেতৃত্বে আসার জন্য নানা প্রচার প্রচারণা জোর তদবির চালিয়ে যাচ্ছেন এমন খবরও প্রকাশ পাচ্ছে। নিয়ে অনলাইন পত্রিকার পাশাপাশি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও চলছে নানা গুঞ্জন। কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের ঘোষিত সিদ্ধান্ত মোতাবেক আগামী ২০ সেপ্টেম্বর অনুষ্ঠিত হবে কক্সবাজার জেলা ছাত্রলীগের সম্মেলন। তৃণমূলসহ ছাত্রলীগের সর্বস্তরের নেতা কর্মীদের মাঝে নিয়ে উৎসাহ উদ্দিপনার শেষ নেই। নতুন নেতৃত্বে আসতে পারে এমন কয়েকজনের নাম প্রকাশ পাচ্ছে নেতাকর্মীদের মুখে মুখে। তার মধ্যে নেতাকর্মীদের মাঝে এবার প্রশংসায় ব্যাপক মূখরিত হচ্ছে এক প্রবাদ পুরুষের নাম।  মুখে মুখে নামটি গর্বের সাথে উচ্চারিত হচ্ছে যা না দেখলে বিশ্বাসযোগ্য নয়

জীবন চলার পথে তিনি বহু সমস্যার কষাঘাতে জর্জরিত হলেও যে জিনিসটি তাকে স্পর্শ করতে পারেনি তা হল কর্মহীনতা। আর যে জিনিসটি তাকে আজ পর্যন্ত পরাজিত করতে পারেনি তা হল লোভ। মানুষ বলতেই লোভের কাছে বন্দি। বর্তমানে লোভ লালসা নেই এমন মানুষের খোঁজ পাওয়া বড়ই কঠিন ক্ষুধা, দারিদ্্র্য, অশিক্ষা, কুশিক্ষা চরম বেকারত্বের কারনে মানুষ আল্লাহর সৃষ্টির সেরা জীব হয়েও লোভের বশিভূত হয়ে চুরি, ডাকাতি, ছিনতাই, খুন ,অত্যাচার ,অনাচার ,ব্যভিচার ,দখলবাজ, মাদক ব্যবসাসহ মারাত্মক অপরাধমূলক বহু কর্মকান্ডে লিপ্ত হয়ে পড়ে। কিন্তু এর কোনটি যাকে ঘায়েল করতে পারেনি এমন একজন রাজপথের লড়াকু সৈনিক, সময়ের সাহসি সন্তান ,ত্যাগী নেতা ,পরীক্ষিত বন্ধু, অন্যায়ের প্রতিবাদকারী, ন্যায়ের পৃষ্ঠপোষক, সফল তরুণ সংগঠক জেলা আওয়ামীলীগের উপদেষ্টা বীর মুক্তিযোদ্ধা মনিরুল আলম চৌধুরীর কনিষ্ট পুত্র কাইছারুল আলম মুন্না চৌধুরী। নিজ এলাকা ছাড়াও কক্সবাজার জেলার ছাত্রসমাজ তাকে সৎ হিসেবে একনামে  চিনে জানে

মুন্না চৌধুরী আজ এলাকার ছোট বড় সকলের দোয়া নিয়ে একটি অগ্নি পরীক্ষার  মুখোমুখি হতে যাচ্ছেন। আসন্ন জেলা ছাত্রলীগের সম্মেলনে সাধারণ সম্পাদক পদে লড়তে যাচ্ছেন সদর উপজেলা  ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক কাইছারুল আলম মুন্না চৌধুরী ছাত্রলীগের ব্যানারে তিনি কাজ করে যাচ্ছেন এক যুগেরও বেশি সময় ধরে। ইতিমধ্যে তিনি তার নিজ নেতাকর্মীদের কাছ থেকে সমর্থনও চেয়েছেন। তিনি ছাত্র রাজনীতির পাশাপাশি সামাজিক সাংস্কৃতিক বহু সংগঠনের নেতৃত্ব দিয়ে আসছেন। কক্স টিভিকে দেয়া একান্ত সাক্ষাৎকারে উঠে এসেছে তার জীবনের আপাদমস্তক।

 তিনি প্রাথমিক শিক্ষা শেষে মাধ্যমিক শিক্ষা জীবন থেকে বৃহত্তর ছাত্র সংগঠন মুজিব আদর্শের  মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় লালিত বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সমর্থক হিসাবে রাজনীতির সূচনা করেন। ২০১০ সালের সদর উপজেলা ছাত্রলীগের আহবায়ক কমিটির সদস্য নির্বাচিত হন। ২০১১-২০১৫ পর্যন্ত বাংলাবাজার সাংগঠনিক ইউনিয়ন শাখার সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেন। ২০১৩- ২০১৭ পর্যন্ত কক্সবাজার সরকারী কলেজ ছাত্রলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেন। তিনি ২০১৫-২০১৭ পর্যন্ত বাংলাবাজার ছাত্রলীগ সাংগঠনিক ইউনিয়ন শাখার সভাপতির দায়িত্ব পালন করেন। ২০১৬ সালে মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ড কক্সবাজার সদর উপজেলা শাখার  সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন। ২০১৭ সালে কক্সবাজার সদর  উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন। ছাড়াও তিনি রাজনীতির পাশাপাশি সামাজিক বিভিন্ন সাংস্কৃতিক এবং অরাজনৈতিক প্রায় ডজন খানেক সংগঠনের সাথে জড়িত আছেন।

দক্ষ সংগঠক কর্তব্যপরায়ণ মুন্না চৌধুরী বলেন, “আমি শৈশবকাল থেকে আমার পিতা বীর মুক্তিযোদ্ধা মনিরুল আলম চৌধুরীর কাছ থেকে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শে অনুপ্রেরণায় উজ্জীবিত হয়ে ছাত্রজীবন থেকে ছাত্রলীগের রাজনীতি করে আসছি। আমার পরিবার বরাবরই একটি আওয়ামী রাজনীতির পরিবার এরই ধারাবাহিকতাই আমার বাবা যেমন করে আওয়ামী রাজনীতির সাথে জড়িত থেকে নিজের জীবন বাজী রেখে আওয়ামীলীগের গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পালন করেছেন ঠিক তেমনিভাবে আমি আমার বাবার একজন আদর্শবান সন্তান হিসেবে সারাজীবন দেশরতœ শেখ হাসিনার স্বপ্ন ক্ষুধা, দারিদ্্র্য, অশিক্ষা, কুশিক্ষা বেকারত্বমুক্ত দেশ গড়ার স্বপ্ন বাস্তবায়নে কাজ করে যেতে আমি জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদকের মত একটি গুরুত্বপূর্ণ পদে প্রার্থী হতে ইচ্ছাপোষণ করছি। আমি বাবার কাছ থেকেই জেনেছি টুঙ্গিপাড়ার খোকা থেকে কিভাবে হলেন প্রশান্ত মহাসাগরসম বিশাল হৃদয়ের অধিকারী বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমান। আমি জেলা ছাত্রলীগের নতুন নেতৃত্বের কর্ণধার হতে পারি এ জন্য সবার দোয়া কামনা করছি”

 

 

কাইছার উল আলম মুন্না চৌধুরী’র  পারিবারিক রাজনৈতিক জীবন বৃত্তান্ত

বর্তমান সাধারণ সম্পাদক, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কক্সবাজার সদর উপজেলা

বর্তমান সাধারণ সম্পাদক, মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ড, কক্সবাজার সদর উপজেলা

 

পিতার নাম                 : বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব মনিরুল আলম চৌধুরী (জন্ম: ০১-১২-১৯৪৪)

বর্তমান  উপদেষ্টা ,কক্সবাজার সদর ও জেলা আওয়ামীলীগ।

                        স্মারক নংমু,বি,/দা/ কক্সবাজার /প্র:-/২৮/২০০২/২৬০, মুক্তিযোদ্ধা নং ১১৬৭৪৮

পিতার রাজনৈতিক জীবন বৃত্তান্ত

১৯৫৪ থেকে বর্তমান

  • ১৯৫৪ সালে কিশোর বয়সে ৪র্থ শ্রেণির ছাত্র থাকাকালিন যুক্তফ্রন্টের নৌকার পক্ষে বিভিন্ন কাজে অংশগ্রহণ
  • ১৯৬০ সালে কক্সবাজার সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় থেকে মেট্রিকুলেশন পাশ
  • ১৯৬২ সালে হামিদুর রহমান শিক্ষা কমিশনের বিরুদ্ধে সক্রিয় অংশগ্রহণ
  • ১৯৬২ সালে সাতকানিয়া কলেজ থেকে এফ এ পাশ এবং উক্ত কলেজে যখন আমিনুল ইসলাম বাদশা ছাত্রলীগের সভাপতি ছিলেন সে কমিঠিতে ছাত্রলীগের সহ সভাপতির দায়িত্ব পালন
  • ১৯৬৪৬৫ সালে চট্টগ্রাম সরকারি কমার্স কলেজে বি কম এ ভর্তি এবং উক্ত কলেজের সেরা ক্রীড়াবিদ নির্বাচিত ও ছাত্র লীগের দিশারী প্যানেল থেকে বিপুল ভোটে কমনরুম ও এথলেট  সেক্রেটারী  নির্বাচিত , তখন কলেজের ভিপি ছিলেন সাইমুন খান ও আবুল কালাম
  • ১৯৬৬ সালে বি কম পাশ এবং বঙ্গবন্ধুর ৬ দফা আন্দোলনে সক্রিয়ভাবে দায়িত্ব পালন  এবং ছাত্রনেতা হিসেবে কক্সবাজার মহুকুমার আওয়ামীলীগের সভাপতি  আবছার কামাল চৌধুরী ও এড: নুরুল আবছার এবং প্রাক্তন এম এন এ  সাহেবদের সঙ্গে মহুকুমারের প্রত্যেক থানায় ৬ দফার পক্ষে অংশগ্রহণ
  • ১৯৬৯ সালে ঝিলংজা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক নির্বাচিত এবং সর্বপ্রথম আওয়ামীলীগকে সংগঠন
  • ১৯৭০ সালের সাধারণ নির্বাচনে সফলতার সাথে নির্বাচন পরিচালনা
  • ১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণ
  • ১৯৭১ সালে ২৫শে মার্চ কাল রাত্রে বঙ্গবন্ধুর স্বাধীনতা ঘোষণার সময় কক্সবাজার লালদীঘীর পাড়ে অফিসে সংগ্রাম কমিঠি সক্রিয় সদস্য হিসেবে বিভিন্ন স্তরের খবরাখবর রাখার দায়িত্ব পালন
  • ১৯৭১ সালে পাক হানাদার বাহিনী ঘরবাড়ি জ্বালিয়ে দেয় ,নভেম্বর মাসে পিতা সুলতান আহমদ চৌ: ও নিজে পাক হানাদার বাহিনীর হাতে ধরা পড়ে এবং সীমাহীন নির্যাতনের শিকার, পরে বঙ্গোপসাগরের তীরে সার্কিট হাউসের সেল ঘরে নিয়ে প্রতি দিন অমানবিক নির্যাতন সহ্য করা এবং পাকবাহিনী দ্বারা দুই বার নিজহাতে নিজেদের কবর খনন এবং আল্লাহর রহমতে ১৪ দিন পর জেল হতে মুক্তি
  • ১৯৭৩ সালে কক্সবাজার সদর উপজেলা আওয়ামীলীগে সহ-সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন এবং উক্ত কমিঠির সভাপতি ছিলেন কামাল হোসেন চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক ছিলেন আব্দুল হাকিম, এম এ
  • ১৯৮২-১৯৯২ দপ্তর সম্পাদক, বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ, কক্সবাজার জেলা শাখা
  • ১৯৯২-২০১৬, আহ্ববায়ক, বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ কক্সবাজার সদর উপজেলা ও দুইবার পরবর্তী নির্বাচিত সভাপতি কক্সবাজার সদর উপজেলা আওয়ামীলীগ সফলতার সাথে দায়িত্ব পালন|

 

বর্তমান দলীয় পদবী :  *সাধারণ সম্পাদক বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কক্সবাজার সদর উপজেলা ।

* সাধারণ সম্পাদক বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্ধান কমান্ড কক্সবাজার সদর উপজেলা।

সাংগঠনিক অবস্থান :

  • ২০১১-২০১৫, সাধারণ সম্পাদক, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ, বাংলা বাজার সাংগঠনিক ইউনিয়ন কক্সবাজার সদর ঝিলংজা।
  • ২০১০-২০১৭,সদস্য, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ,কক্সবাজার সদর উপজেলা।
  • ২০১৩-২০১৭, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ, কক্সবাজার সরকারি কলেজ ।
  • ২০১৫-২০১৭, সভাপতি, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ, বাংলা বাজার সাংগঠনিক ইউনিয়ন কক্সবাজার সদর ঝিলংজা।

 

 

 

ভাইদের রাজনৈতিক জীবনবৃত্তান্ত

 

টিপু সোলতান চৌধুরী বর্তমান চেয়ারম্যান, ১০ নং ঝিলংজা ইউনিয়ন পরিষদ, কক্সবাজার সদর

* বর্তমান তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক, কক্সবাজার সদর উপজেলা আওয়ামীলীগ

* ১৯৯১, সভাপতি, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ,বাংলাবাজার সাংগঠনিক ইউনিট, কক্সবাজার সদর উপজেলা

* ১৯৯৩, সভাপতি, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ, ইলিয়াছ মিয়া চৌং উচ্চ বিদ্যালয় শাখা

* ১৯৯৪, সাধারণ সম্পাদক, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ, ঝিলংজা ইউনিয়ন শাখা

* ১৯৯৫, যুগ্ম আহ্ববায়ক, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ, কক্সবাজার সদর উপজেলা

* ২০০৩, সহ-সম্পাদক, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ, কক্সবাজার জেলা শাখা

* ২০০৪-১০, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ, কক্সবাজার জেলা শাখা

 

আলী হায়দার চৌধুরী (মিন্টু)

বর্তমান , সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক, ঝিলংজা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ, কক্সবাজার সদর

শাহাদত উল আলম চৌধুরী

মক্কা মহানগর সেচ্ছাসেবক লীগ নেতা

 

শাহীন উল আলম চৌধুরী

বর্তমান, সহ-সভাপতি, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ, কক্সবাজার জেলা শাখা

* ২০১০-২০১৪, সহ- সভাপতি, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ,কক্সবাজার জেলা শাখা

* ২০১০-২০১৭, সদস্য, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ, কক্সবাজার সদর উপজেলা শাখা

* ২০১৩-২০১৭, সহ-সভাপতি, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ,  কক্সবাজার সরকারি বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ

 

মিজবা উল আলম চৌধুরী

* ২০০৯-২০১১, প্রতিষ্ঠাতা যুগ্ম আহ্ববায়ক, কক্সবাজার পলিটেকনিক ইনস্টিটিউট

* ২০১০-২০১৪, ক্রিড়াবিষয়ক সম্পাদক, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ সহ-সভাপতি, কক্সবাজার জেলা শাখা

* ২০১০-২০১৭, সদস্য, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ, কক্সবাজার সদর উপজেলা

 

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Application to the Ministry of Information for registration.