চকরিয়ায় বসতভীটার চলাচল পথ বন্ধ করেজবর দখল ও টয়লেট নির্মাণ করেছে প্রতিপক্ষরা

চকরিয়া অফিস:
চকরিয়া উপজেলার ফাসিয়াখালী ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডের স্কুল পাড়া এলাকায় স্থানীয় শালিসবিচার অমান্য করে অসহায় পরিবারের মালিকানাধীন বসতভীটার জায়গার চলাচল পথ বন্ধ করে দিয়ে জবর দখলের পর টয়লেট নির্মাণ করেছে ভূমিদস্যু বাহিনী। এসময় তারা বসতঘর, গোয়াল ঘর ও ঘেরাবেড়া ভাংচুর করেছে। গত ২৪ মে (শুক্রবার) বিকাল ২টার দিকে ঘটেছে এ ঘটনা। সর্বশেষ ২৭মে রাত পযর্ন্ত চলাচল পথ উন্মুক্ত করে না দেওয়ায় পরিবারের মাঝে চলছে উদ্বেগ উৎকন্ঠা।
অভিযোগে জানাগেছে, ফাসিয়াখালী ২নং ওয়ার্ডের স্কুল পাড়া গ্রামের নুর হোসেনের পুত্র বাদশা মিয়া ও মো: কালুর পুত্র মো: ফরিদ গংয়ের কাছ থেকে একই এলাকার সিরাজুল ইসলামের পুত্র মো: আলমগীর গং ১০ কড়া জমি পাওনা রয়েছে দাবী করে থানায় মিথ্যা অভিযোগ দেন। এর প্রেক্ষিতে স্থানীয় মেম্বার মুজিবুল হক ও নুরুল আমিন মেম্বারের নেতৃত্বে স্থানীয় গন্যমান্য ব্যক্তিদের নিয়ে শালিস হয় এবং সার্ভেয়ার দিয়ে জমি পরিমাপ করেন। জমি পরিমাপকালে বাদশা মিয়া ও ফরিদ গংয়ের কাছে সীমানা লাগোয়া মাত্র ১বিঘত জমি প্রাপ্ত হয়। কিন্তু স্থানীয় শালিস বিচার অমান্য করে উল্লেখিত আলমগীর, তার সহযোগি আবুল মালেক, মিরাজ, নুরুচ্ছমদ, মো: সোয়াইব, দিদারসহ ৫০/৬০জনের বাহিনী নিয়ে অস্ত্র-শস্ত্র সহকারে অতর্কিত হামলা, ভাংচুর ও জবর দখল এবং গাছ কেটে লুট করে নিয়ে যায়। হামলায় আহত হয়েছে নুর হোসেনের মেয়ে আকলিমা (৩৫), আবুল কালামের পুত্র সাইফুল (১৪)। তাদেরকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। পরে হামলাকারী দখলবাজরা জোরপূর্বক বাদশা ও ফরিদ গংয়ের বসতভীটার চলাচল পথ বন্ধ করে দিয়ে টয়লেট নির্মাণ করে। এনিয়ে ভূক্তভোগী পরিবার মামলার প্রস্তুতি নিয়েছে বলে জানান।
চকরিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো: হাবিবুর রহমান জানিয়েছেন, ঘটনার বিষয়ে বাদশা মিয়া বাদী হয়ে থানায় দায়েরকৃত অভিযোগ (নং এসডিআর ১২১২/১৯) লিপিবদ্ধ করে তদন্তের জন্য দেওয়া হয়েছে। প্রমাণিত হওয়ার পর মামলা গ্রহণসহ অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Application to the Ministry of Information for registration.