উন্নত বিশ্বের সাথে তাল মিলিয়ে চলতে হলে আধুনিক ও ইসলামী শিক্ষার বিকল্প নাই-সাঈদী

চকরিয়া আল ইয়ামিন মডেল মাদরাসার অনুষ্ঠানে ফজলুল করিম সাঈদী

চকরিয়া অফিস:
চকরিয়া আল ইয়ামিন মডেল মাদরাসা (সাবেক চকরিয়া ক্যাডেট মাদরাসা)’র বার্ষিক ক্রীড়া সাংস্কৃতির পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান ও অভিভাবক সমাবেশ ২৩ এপ্রিল সকাল ১০টায় মাদরাসা প্রাঙ্গনে চকরিয়া আল ইয়ামিন ফাউন্ডেশন ও মাদরাসা পরিচালনা কমিটির সভাপতি আখতার আহমদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়েছে। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন চকরিয়া উপজেলা পরিষদের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান জননেতা আলহাজ্ব ফজলুল করিম সাঈদী। বিশেষ অতিথি ছিলেন আল ইয়ামিন ফাউন্ডেশনের সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক মাওলানা মো: কফিল উদ্দিন এমএ, কমিটির কোষাধ্যক্ষ ও বার্ষিক ক্রীড়া সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আহবায়ক চৌধুরী মুহাম্মদ আজম খাঁন, কাকারা তাজুল উলুম দাখিল মাদরাসার সুপার মাওলানা বেলাল উদ্দিন, শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন মাদরাসার অধ্যক্ষ এইচ.এম জয়নাল আবদীন। এছাড়াও অনুষ্ঠানে আল ইয়ামিন ফাউন্ডেশন ও মাদরাসা পরিচালনা কমিটির অন্যান্য সদস্যবৃন্দ, শিক্ষক-শিক্ষিকা, অভিভাবক ও শিক্ষার্থীরা উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথিকে সম্মাননা ক্রেষ্ট তুলে দেন আল ইয়ামিন ফাউন্ডেশনের সদস্যবৃন্দ ও মাদরাসার অধ্যক্ষ।
অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ফজলুল করিম সাঈদী তার বক্তব্যে বলেন, বর্তমান সরকার চায় শিক্ষা ব্যবস্থাকে আরো এগিয়ে নিতে। উন্নত বিশ্বের সাথে তাল মিলিয়ে চলতে হলে শিক্ষা অর্জনের বিকল্প নাই। তাই বঙ্গবন্ধু কন্যা জননেতা শেখ হাসিনা স্কুল-কলেজের শিক্ষার পাশাপাশি মাদরাসা শিক্ষাকে বিশেষ গুরুত্ব দিয়ে সুযোগ সুবিধা বৃদ্ধি করেছেন। তিনি বলেন, শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অধীনে খুব শীঘ্রই সারাদেশে এমপিওবঞ্চিত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সমূহকে এমপিওভূক্তির আওতায় নিয়ে আসবেন। যেন স্কুল-কলেজ ও মাদরাসা শিক্ষার মধ্যে কোন পার্তক্য না সে ব্যবস্থায় করেছেন বর্তমান সরকার। ফজলুল করিম সাঈদী বলেন, এতদ্বাঞ্চলে আধুনিক ও ইসলামী শিক্ষার সমন্বয়ে চকরিয়া আল ইয়ামিন মডেল মাদরাসা যে যোগ্যতার স্বাক্ষর রেখেছেন তা অতুলনীয়। এ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান একটি অবহেলিত ও শিক্ষা বঞ্চিত এলাকায় প্রতিষ্ঠার ফলে এলাকার শিক্ষা ব্যবস্থার আমূল পরিবর্তন ঘটিয়েছেন এবং দরিদ্র থেকে শুরু করে সবশ্রেণির মানুষের ভালমানের লেখাপড়া অর্জনের যুগান্তকারী উদ্যোগই গ্রহণ করেছেন। যার জন্য তিনি প্রতিষ্ঠানের সংশ্লিষ্টদের প্রতি ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন। পরে তিনি বার্ষিক ক্রীড়া সাংস্কৃতির বিভিন্ন ইভেন্টে বিজয়ী প্রতিযোগি শিক্ষার্থীদের এবং বৃত্তিপ্রাপ্ত ও বার্ষিক পরীক্ষায় সর্বোচ্চ নাম্বার প্রাপ্ত শিক্ষার্থীদের পুরস্কার ও সম্মাননা তুলে দেন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Application to the Ministry of Information for registration.