দেশে সংগঠিত অগ্নিকান্ডের সুষ্ঠু তদন্ত ও জানমালের নিরাপত্তা চেয়ে কুতুবদিয়ার সন্তান রিদওয়ানের প্রধানমন্ত্রী বরাবর আবেদন

স্টাফ রিপোর্টার, কক্সবাজারঃ

দেশে সংগঠিত অগ্নিকান্ডের সুষ্ঠু তদন্ত ও জানমালের নিরাপত্তা চেয়ে কুতুবদিয়ার সন্তান রিদওয়ানের প্রধানমন্ত্রী বরাবর আবেদন
পাঠকের জন্য হুবহু তুলে ধরা হল।

তারিখ ঃ ০২/০৪/২০১৯

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী
গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার।
প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়, ঢাকা।

বিষয়ঃ দেশে সাম্প্রতিক সংগঠিত প্রত্যেকটা অগ্নিকান্ডের সুষ্ঠু তদন্ত পূর্বক দোষীদের আইনের আওতায় এনে জনগণের জানমালের নিরাপত্তা ও সুরক্ষা নিশ্চিতকরণ প্রসঙ্গে।

বঙ্গবন্ধুর সুযোগ্য কন্যা মানবতার মা দেশরত্ন জননেত্রী,

সালাম নিবেন। আশা করি, দেশের ১৬ কোটি জনগণের দোয়ায় আপনি ভাল আছেন। দেশ মাতা, আপনি নিশ্চয় অবগত আছেন যে, সাম্প্রতিক সময়ে রাজধানী ঢাকাসহ সারা দেশে ব্যাপক হারে অগ্নিকান্ড সংগঠিত হচ্ছে। তাতে দেশের ভাবমূর্তি খুবই ক্ষুন্ন হচ্ছে। যেখানে
আপনার সুদক্ষ দেশ পরিচালনায় দেশ অনেকদূর এগিয়ে যাচ্ছে। বিশ্বের মানচিত্রে দেশ আজ উন্নয়নশীল মধ্যম আয়ের দেশে পরিনত হয়েছে আপনার হাতের জাদুকরি ছোঁয়ায়। কিন্তু দুঃখের বিষয়, আজ দুঃখের সহিত বলতে হচ্ছে, আপনার সব উন্নয়নকে প্রশ্নবিদ্য তথা ধবংস করার জন্য কতিপয় কিছু দেশদ্রোহী ষড়যন্ত্রকারীরা এখনো দেশের প্রত্যেকটি সরকারি বেসরকারি দপ্তর, বিভিন্ন জায়গায় ঘাপটি মেরে বসে আছে। তারা নতুন নতুন ইস্যু খোঁজে বেড়াচ্ছে, তারা ইস্যু তৈরি করে আপনার উন্নয়ন, সুনাম, ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন করার হীনষড়যন্ত্রে লিপ্ত রয়েছে।
চকবাজার থেকে বনানী, বনানী থেকে গুলশান একের পর এক অগ্নিকান্ড। কয়েক দিন পর পর অগ্নিকান্ড। কি হচ্ছে এসব আপনার কষ্টে গড়া সোনার বাংলায় ? যা আমার মত একজন সাধারণ নাগরিকের হৃদয়ে দারুনভাবে নাড়া দিচ্ছে।
চকবাজার, বনানী, গুলশান এর পর কোথায় আবার অগ্নিকান্ড হবে ? আমার মতে প্রত্যেকটা অগ্নিকান্ডের কারণ খুঁজে বের করে কঠোর সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা উচিত এবং ভবিষ্যতে যাতে বড় ধরনের অগ্নিকান্ডের মত ঘটনা না ঘটে সে জন্য যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া এখন সময়ের দাবি। দেশের সম্পদ, মানুষ পুড়ে অঙ্কার হয়ে যাচ্ছে। বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলাদেশ এমনটি হওয়া ঠিক হচ্ছে না আমি মনে করি। দেশ মাতা আগে কোন সময় এমনকি বিগত দশ বছরে এভাবে অগ্নিকান্ড সংঘঠিত হয়নি। কোন মানব সৃষ্ট ষড়যন্ত্র নয় বটে ? তাহলে যথাযথ প্রক্রিয়া অনুসরণ না করে কিভাবে এসব বহুতল ভবন নির্মাণ হয় ? সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ কেন এসব বিষয়ে জেনেও না জানার ভান আর অবহেলা করে মানুষকে মৃত্যুর মুখে উপনিত করছে? মানবতার মা আপনি কর্তৃপক্ষের এসব অবহেলা কি আসলে ষড়যন্ত্র নয় বলে মনে করেন ? সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের অবহেলার কারণে সোনার বাংলায় অগ্নিকান্ড সংগঠিত হচ্ছে আর এতে মানুষ পুড়ে মারা যাচ্ছে, সম্পদ পুড়ে ছাই হচ্ছে এতেই সরকারের ভাবমূর্তি বরাবরেই ক্ষুন্ন হচ্ছে। এত উন্নয়ন হওয়ার পরেও জনগণ সরকারকে দায়ী করার সুযোগ পাচ্ছে । অপরদিকে সরকার বিরোধীরাও ইস্যুটি নিয়ে রাজনীতি করার সুযোগ পাচ্ছে । অবহেলা করা এসব কর্মকর্তা, কর্মচারিরাই আপনার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রকারী। এরাই অপরাধী। অপরাধী যেই হউক না কেন প্রত্যেকটা অগ্নিকান্ডের ঘটনা তদন্তের মাধ্যমে প্রকৃত অপরাধীদের আইনের আওতায় আনা হোক। এখনই সময় এসব বিষয় খতিয়ে দেখা। মানবতার মা আপনি স্বজন হারাদের একজন, আপনি জানেন স্বজন হারানোর কষ্ট কি? আমি এখানে গভীর ষড়যন্ত্রের গন্ধ পাচ্ছি। ষড়যন্ত্র বলছি এ কারণে যে, কর্তৃপক্ষের উদাসিনতা না থাকলে কিভাবে এসব ভবন নির্মাণ করা হয় ভবন নির্মাণ কোড না মেনে ? কেনই বা তা সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের নজরে আসে না ? অগ্নিকান্ড প্রতিরোধের যাবতীয় ব্যবস্থা না থাকার পরেও কিভাবে ভবন ব্যবহার করছে? কেন এসব ভবনের মালিকের বিরুদ্ধে অভিযান পরিচালনা করা হয় না বছরের পর বছর? দেশ রত্ন, ভবন নির্মাণ কোড না মানলে অভিযান চালিয়ে দেশের সমস্ত বহুতল ভবণগুলো সিলগালা করে দেওয়া হোক। সেইসাথে ফায়ার সার্ভিসে কর্মরতদের উন্নত প্রশিক্ষণ ও উন্নত আধুনিক অগ্নিনির্বাপক সরঞ্জামাদি প্রদানের ব্যবস্থা করুন। অগ্নি নির্বাপনের আধুনিক সরঞ্জাম ক্রয়ের প্রয়োজনে তহবিল গঠন করুণ। দেশ মাতা আপনি তো দেখিয়ে দিয়েছেন বাংলাদেশে আজ নিজস্ব অর্থায়নে পদ্মা সেতু নির্মাণ হচ্ছে । আপনার জাদুকরি ছোঁয়ায় সবই সম্ভব । নাগরিকদের বৃহৎ স্বার্থে আধুনিক অগ্নিনির্বাপক সরঞ্জামাদির ব্যবস্থার উদ্যােগ গ্রহণ করুণ । ভবন নির্মাণে বড় বড় নেতা প্রভাবশালী লোকদের টাকার কাছে হার মানে আপনার বেতনভুক্ত কিছু অসাধু কর্মকর্তা কর্মচারিরা। আপনি একটু নজর দিলে আইনের যথাযথ প্রয়োগ হবে দেশের প্রত্যেকটা ভবন নির্মাণে। আর এতে কোন রকম ব্যর্থয় ঘটলে নির্মাণ সংশ্লিষ্ট ঘুষ খাওয়া কর্মকর্তা কর্মচারিদের অচিরেই আইনের আওতায় আনা হোক। আমার বিশ্বাস সুষ্ঠু তদন্ত পূর্বক বিহীত ব্যবস্থা গ্রহণ করলে জানমালের নিরাপত্তা ও সুরক্ষা নিশ্চিত করা সম্ভব হবে। এতে হাজার বছরের শ্রেষ্ট বাঙ্গালি আপনার মরহুম পিতা জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্নের সোনার বাংলাদেশ অনেক দূর এগিয়ে যাবে । আপনার হাতেই সোনার বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠিত হবে।

অতএব বিনীত প্রার্থনা, আপনার নিকট আকুল আবেদন, দেশে সাম্প্রতিক সংগঠিত প্রত্যেকটা অগ্নিকান্ড সুষ্ঠু তদন্ত পূর্বক প্রকৃত দোষীদের আইনের আওতায় এনে জনগণের জানমালের নিরাপত্তা ও সুরক্ষা নিশ্চিতকরণের জোর দাবি জানিয়ে এখানে ইতি টানলাম। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী , মানবতার মা, আশা করি আমার ক্ষুদ্র জ্ঞানের এ আবেদনটুকু আপনি রাখবেন । আমার ক্ষুদ্র জ্ঞানের লিখায় ভুল ক্রুটি হলে ক্ষমা সুন্দর দৃষ্টিতে দেখবেন ।

নিবেদন

এ, কে, এম রিদওয়ানুল করিম
সাং কৈয়ারবিল, পরান সিকদার পাড়া, কুতুবদিয়া, কক্সবাজার। মোবাইল ০১৯৮৪৭৯৭৮৪০।

*** আবেদনপত্রটি স্বাক্ষর পূর্বক প্রধানমন্ত্রী  কার্যালয়ে প্রেরণ করা হয়েছে বলে আবেদনকারী এ প্রতিনিধিকে নিশ্চিত করেছেন  *******

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Application to the Ministry of Information for registration.