চকরিয়ায় গৃহবধুকে বাড়িতে ঢুকে ধর্ষণেবাধা দেওয়ায় হামলা, আহত ৩, আদালতে মামলা

চকরিয়া অফিস:
চকরিয়ায় বসতবাড়িতে ঢুকে এক গৃহবধুকে জোর পূর্বক ধর্ষণ চেষ্টায় ব্যর্থ হয়ে পরিবারের সদস্যদের উপর হামলার ঘটনা ঘটেছে। হামলায় গৃহবধুসহ ৩জন আহত হয়েছে। উপজেলার বরইতলী ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ডের বানিয়ারছড়া ষ্টেশনের পশ্চিম পার্শ্ব এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।এ নিয়ে গৃহবধু’র মা মালেকা বেগম (৪৫) বাদী হয়ে ২৭ মার্চ চকরিয়া সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে মামলা (নং সিআর ৩৩৪/১৯) দায়ের করেছে। এতে অভিযুক্ত করা হয়েছে হামলাকারী জাফর আলমের ছেলে মো: ইসমাইল, মো: ইলিয়াছ, মো: ইউনুছ ও রাবেয়াসহ অজ্ঞাত কয়েকজনকে।
মামলার আর্জি সূত্রে জানায়, বানিয়ারছড়া ষ্টেশনের পশ্চিম পাশে পাহাড়ী এলাকায় বসবাস করেন মো: মোশারফ হোসেন। সে বাড়িতে না থাকার সুযোগে তার স্ত্রী তছলিমা আক্তারকে কে বাড়িতে জোর পূর্বক ধর্ষণ করার চেষ্টা করে একই এলাকার চিহ্নিত সন্ত্রাসী ও দা বাহিনীর সক্রিয় সদস্য মো: ইসমাইল। গৃহবধু ও শিশু সন্তানের চিৎকারে স্থানীয় লোকজন এগিয়ে আসলে দ্রুত পাহাড়ী জঙ্গলের দিকে পালিয়ে যায়। ঘটনাটি ঘটে গত ২৩ মার্চ রাত অনুমানিক ৩টার দিকে। ওইদিন গৃহবধুকে ধর্ষণ করতে না পেরে বিভিন্নভাবে হুংকার ছড়ার মধ্য দিয়ে গত ২৪মার্চ সকাল ১১টায় ধারালো অস্ত্র-শস্ত্র নিয়ে সন্ত্রাসী বাহিনী সহকারে গৃহবধুসহ তার পরিবারের সদস্যদের উপর হামলা চালায়। হামলায় আহত হয়েছে গৃহবধু তছলিমা আক্তার (২০), তার মা মালেকা বেগম (৪৫), ফারজানা আক্তার (১২)। তাদেরকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। ঘটনার সময় ৬০ হাজার টাকা মূল্যের দেড় ভরি ওজনের স্বর্ণের চেইন ছিনিয়ে নিয়ে যায়। স্থানীয়রা জানিয়েছেন, উল্লেখিত ইসমাইলের বিরুদ্ধে গাড়ী ডাকাতি,বনসহ অন্তত ১৩টির অধিক মামলা ও গ্রেফতারী পরোয়ানা রয়েছে। তাকে দা বাহিনীর একটি চিহ্নিত ও সক্রিয় সদস্য হিসেবে চেনে। ইতিপূর্বেও পুলিশ তাকে একাধিকবার ধাওয়া দিয়েছে। তার ও দা বাহিনীর অত্যাচারে এলাকার সাধারণ নারী-পুরুষ অতিষ্ট হয়ে পড়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Application to the Ministry of Information for registration.