চকরিয়ায় পৌর এলাকায় ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে তালা মেরে দেয়ায় নিজ দোকানের সামনে অনশন ব্যবসায়ীদের

চকরিয়া অফিস:
চকরিয়া পৌর শহরের বাণিজ্যিক মার্কেটে দু’পক্ষের জমি বিরোধকে কেন্দ্র করে ৪টি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে ৫দিন ধরে তালা মেরে দিয়ে ব্যবসা বন্ধ করে দেওয়ায় নিজ নিজ ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের সামনে অনশন করেছে ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ীরা। গতকাল ১৫ মার্চ সকাল ১০টায় চিরিংগা সোসাইটি থানা রাস্তার মাথার থ্রি স্টার প্লাজা মার্কেটে এ ঘটনা ঘটেছে। কিন্তু অনশনকালে অভিযুক্তরা অনশনকারী ব্যবসায়ীদের উপর অতর্কিত অবস্থায় এসে ফের হামলা চালায়।
অভিযোগে জানাগেছে, চকরিয়া পৌরসভা ৮নং ওয়ার্ডের মাস্টার পাড়া এলাকার মৃত ফজল করিমের পুত্র মো: ইসমাইল ও মরহুম মাস্টার নুরুল ইসলামের পুত্র সাবেক কাউন্সিলর কুতুব উদ্দিন গংয়ের সাথে চলমান বাণিজ্যিক মার্কেটের জমি নিয়ে বিরোধ সৃষ্ট হয় একই এলাকার মৃত বুজুরুচ মেহের গংয়ের সাথে। এনিয়ে ১০মার্চ সকালে দু’দফায় হামলার ঘটনা ঘটেছে এবং বুজুরুচ মেহেরের পুত্র সাদ্দাম হোসেন রুবেলের নেতৃত্বে ২০/২৫জনের একদল লোক গিয়ে ৪টি দোকানে তালা মেরে দিয়ে ব্যবসা বন্ধ করে দিয়েছে। সর্বশেষ গত ৫দিনেও ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের তালা খুলে না দেওয়ায় ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ীরা চকরিয়া-পেকুয়া আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব জাফর আলম এবং উপজেলা ও থানা প্রশাসনের হস্তক্ষেপ চেয়ে নিজ নিজ ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের সামনে পাড়ি-বালিশ,বিচানা নিয়ে শুক্রবার (১৫মার্চ) সকাল ১০টা অনশন করেছে। অনশনরত জিবি ইলেক্ট্রনিকস ব্যাটারীর দোকান ও ওয়ার্কসপের মালিক ব্যবসায়ী মিছবাউল কাদের পটু, নজরুল এন্টার প্রাইজ নামে টিনের দোকানের মালিক আরাফাত হোসেন ও আবু নাছের এবং পাইকারী হলুদ বিক্রির মো: শফি জানিয়েছেন, দু’পক্ষের বিরোধে গত ৫দিন ধরে তাদের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান তালা মেরে রাখায় তাদের অনেক ক্ষতি হয়েছে। তা অব্যাহত রাখলে আরো বেশি ক্ষতি হয়ে যাবে। মাননীয় সংসদ সদস্যের জরুরী হস্তক্ষেপের মাধ্যমে জরুরী সিদ্ধান্ত দিলে ব্যবসায়ীরা উপকৃত হবেন। তারা অন্তত ঘটনার সমাধান না হওয়া পযর্ন্ত স্থানীয় ব্যবসায়ী সমিতি কিংবা প্রশাসনের মধ্যস্থতায় দোকান সমূহ খুলে দেওয়ার জন্য দাবী জানান।
অপরদিকে গত ১০মার্চ দু’দফায় হামলার শিকার সাবেক কাউন্সিলর কুতুব উদ্দিন গং জানিয়েছেন, তারা জমির ওয়ারিশরা যৌথভাবে থ্রি স্টার নামে ৫ তলা ফাউন্ডেশনে ৩তলা বিশিষ্ট মার্কেটটি নির্মাণ করেছেন। ওই মার্কেটের সকল দোকানে সেলামী মূলে ভাড়াটিয়াও রয়েছেন। জমি নিয়ে সৃষ্ট বিরোধ নিয়ে প্রতিপক্ষ গনের বিরুদ্ধে বিজ্ঞ যুগ্ম জেলা জজ ২য় আদালত,কক্সবাজারে অপর মামলা নং ৫০/২০০২ ও মিচ মামলা নং ৪৩/২০১০ এ আদালতের ডিক্রিও রয়েছে। অপর একটি মামলা (নং ৩৫৩/২০১৪) বিচারাধীন রয়েছে। কিন্তু তা অমান্য করে সাদ্দাম হোসেন রুবেলের নেতৃত্বে ২০/২৫জনের একদল ভাড়াটিয়া অতর্কিতভাবে জবর দখলের চেষ্টা চালায়। হামলায় তাদের পক্ষের ৭জন গুরুতর আহত হয়েছে। এনিয়ে তারা ১৫জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত আরো ৭/৮জন দেখিয়ে থানায় এজাহার দিয়েছেন। একইভাবে সাদ্দাম হোসেন রুবেল গংয়ের পক্ষ থেকেও থানায় মামলা করা হয়েছে। এদিকে সৃষ্ট ঘটনার বিষয়ে যথাসম্ভব দ্রুত সময়ে সমাধান করা হবে বলে জানিয়েছেন চকরিয়া-পেকুয়া আসনের জাতীয় সংসদ সদস্য আলহাজ্ব জাফর আলম বিএ(অনার্স)এমএ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Application to the Ministry of Information for registration.