সংগ্রামী চকরিয়াবাসি আনারস মার্কা তথা জনগনের বিজয় সুনিশ্চিত করতে ভোট কেন্দ্রে পাহারা দেবেন-সাঈদী

পথসভা কুশল বিনিময়কালে জনপ্রিয় চেয়ারম্যান প্রার্থী ফজলুল করিম সাঈদী

চকরিয়া অফিস:
চকরিয়া উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে জনগনের মনোনীত নাগরিক কমিটির চেয়ারম্যান প্রার্থী ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি তারুণ্যের অহংকার আলহাজ ফজলুল করিম সাঈদী নির্বাচনী প্রচারনায় নামার আগে গতকাল শুক্রবার সকালে চকরিয়া পৌরসভার পালাকাটাস্থ চকরিয়া পৌরসভা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও জেলা পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান জাহেদুল ইসলাম লিটুর বাড়িতে পরিবার সদস্যদের সঙ্গে কুশল বিনিময় করতে যান। ওইসময় চেয়ারম্যান প্রার্থী সাঈদী বাড়িতে লিটুর বৃদ্ধ বাবা ও মায়ের সঙ্গে সাক্ষাত করে তাদের কাছ থেকে দোয়া নেন। এসময় লিটুর মমতাময়ী মা ও বাবা চেয়ারম্যান প্রার্থী সাঈদীকে জনগনের ভালোবাসায় এগিয়ে যাওয়ার অনুপ্রেরণা দেন।
গতকালদুপুরে তিনি চকরিয়া পৌরসভার ১নম্বর ওয়ার্ড কাজির পাড়া জামে মসজিদে জুমার নামাজ আদায় করেন। নামাজ শেষে তিনি মসজিদে সমবেত মুসল্লি ও এলাকাবাসির কাছে দোয়া চান। এরপর বাড়িতে ফিরে তিনি বিকাল তিনটার দিকে চকরিয়া উপজেলার কৈয়ারবিল ইউনিয়নের ছোয়ালিয়া পাড়া স্টেশনে আমার নির্বাচনী প্রতীক আনারস মার্কার নির্বাচনী অফিস উদ্বোধন পরবর্তী পথসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন। এরপর কিছুক্ষন পর কৈয়ারবিল ইউনিয়নের শেষ সীমানা খিলছাদক এলাকায় জনগনের আয়োজিত আনারস মার্কার নির্বাচনী পথসভায় বক্তব্য দেন চেয়ারম্যান প্রার্থী আলহাজ্ব ফজলুল করিম সাঈদী। কৈয়ারবিল ইউনিয়নে ব্যাপক গনসংযোগ শেষে গতকাল রাত আটটার দিকে তিনি কৈয়ারবিল ইউনিয়নের মন্ডলপাড়া ওয়াজ মাহফিলে অংশনেন।
অনুষ্ঠিত পথসভায় চেয়ারম্যান প্রার্থী ফজলুল করিম সাঈদী জনগনের উদ্দেশ্যে বলেন, আমি সংগ্রামী চকরিয়াবাসি আপনাদের ভালোবাসা, সমর্থন ও দোয়া নিয়ে জনগনের কল্যানে কাজ করতে ও দুষ্টের দমন করতে চেয়ারম্যান পদে প্রার্থী হয়েছি। আমার ব্যক্তিগত কোন চাওয়া পাওয়া নেই। নির্বাচনের মাঠে আমার প্রতি আপনাদের দোয়া ও ভালবাসা এবং সমর্থন-সহযোগিতা দেখে প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থী ও তাঁর অনুসারীরা জনবিচ্ছিন্ন চক্র পাগল হয়ে গেছে। তাঁরা ভোটের মাধ্যমে বিজয় দেখছেনা। সেখানে জনগনের ভোট ডাকাতির জন্য পরিকল্পনা নিচ্ছে।
তিনি বলেন, আগামী ১৮ মার্চ চকরিয়া উপজেলা নির্বাচন। নির্বাচন কমিশন ইতোমধ্যে ঘোষনা দিয়েছেন, এই নির্বাচনে কোন ধরণের ভোট ডাকাতি কিংবা কারচুপির সুযোগ নেই। কেউ এ ধরণের মনোবাসনা নিয়ে বসতে থাকলে তাঁর জন্য চরম মূল্য দিতে হবে। তাই আমি প্রিয় চকরিয়াবাসিকে বলতে চাই, মহান আল্লাহ সহায় থাকলে আমার শরীরে একবিন্দু রক্ত থাকা অবস্থায় চকরিয়ায় কেউ জনগনের ভোট কারচুপি করতে পারবেনা। প্রিয় চকরিয়াবাসি আপনারা প্রস্তুত থাকুন, জনবিচ্ছিন্ন চক্রের এই পরিকল্পনা কঠোর হাতে প্রতিরোধ করতে হবে। আপনারা সকল ধরণের ভয়ভীতিকে পদদলিত করে আগামী ১৮ মার্চ সারাদিন ভোট কেন্দ্রে থাকুন, ভোট কেন্দ্র পাহঁরা দেবেন। ইনশাল্লাহ আপনাদের ভোটে বিজয়ী হলে আপনারা দলমত নির্বিশেষে চকরিয়া উপজেলার আপামর জনসাধারণ হবেন শাসক, আমি হবো শুধুই আপনাদের সেবক। আমি আপনাদের ভালোবাসা, দোয়া ও আস্থার প্রতিদান দিতে চাই।
পথসভায় আরও বক্তব্য দেন চকরিয়া উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি শওকত হোসেন, উপজেলা আওয়ামীলীগের সদস্য পরিমল বড়–য়া, কৈয়ারবিল ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক জাফর আলম সিকদার, মিফতাব উদ্দিন চৌধুরী, পৌরসভার ১নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামীলীগ নেতা নুরুল আলম সওদাগর, মনজুর আলম, আবদুর রাজ্জাক, চকরিয়া পৌরসভা দুইনম্বর ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সভাপতি নাজেম উদ্দিন ভুট্টো, সাধারণ সম্পাদক নুরুল আবছার বাদশা, সাবেক সাধারণ সম্পাদক আবু হেনা মোস্তফা কামাল, পৌরসভা তরুণলীগের সভাপতি আবদুর রশিদ, চকরিয়া পৌরসভা আওয়ামীলীগের সদস্য নুরুল আমীন টিপু, ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক এম নুরুস শফি, চকরিয়া পৌর যুবলীগের সহ-সভাপতি হাসান আল বসরী, কক্সবাজার জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক শেফায়েত কবির বাপ্পী, সাবেক ছাত্রনেতা আশেকুর রহমান মামুন, জেলা ছাত্রলীগের সদস্য তারেকুল ইসলাম রাহিত, পৌর যুবলীগ নেতা জামাল উদ্দিন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Application to the Ministry of Information for registration.