তুমব্রু সীমান্তে মিয়ানমান সেনা সমাবেশ, আতংকে আশ্রিত রোহিঙ্গারা

rohingya1-20180121113637.jpg

নুরুল কবির, বান্দরবান:

বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার তুমব্রু সীমান্তের ওপারে মিয়ানমার সেনাবাহিনী অতিরিক্ত সীমান্তরক্ষী মোতায়েন করেছে। বৃহস্পতিবার সকাল থেকে সতর্ক অবস্থায় রয়েছে বিজিবি’সহ নিরাপত্তা বাহিনী।

বিজিবি ও প্রশাসন জানায়, বান্দরবান জেলার নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার ঘুমধুম ইউনিয়নের তুমরু কোনা পাড়া নো-ম্যান্স ল্যান্ডের ওপারে মিয়ানমার অতিরিক্ত সীমান্তরক্ষী বাহিনী মোতায়েন করেছে। সকাল থেকে কয়েকটি ট্রাক এবং মোটর সাইকেল যোগে মিয়ানমারের নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যরা অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে অবস্থান নিয়েছে। মাইকিং করে রোহিঙ্গাদের নো-ম্যান্স ল্যান্ড থেকে চলে যেতে হুমকি ধমকি দিচ্ছে মিয়ানমার সেনাবাহিনী। রোহিঙ্গা ক্যাম্পে ইট পাটকেল ছুড়ে মারছে।আতঙ্কে নো-ম্যান্স ল্যান্ডের রোহিঙ্গারা চিৎকার হৈ হুল্লর করে বাংলাদেশে ঢুকার জন্য কয়েকটি স্থানে জড়ো হয়েছে ক্যাম্পে। খবর পেয়ে নাইক্ষংছড়ি সীমান্তের তুমব্রু পয়েন্টে বিজিবি টহল এবং প্রহড়া বাড়িয়েছে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ বিজিবি। অতিরিক্ত সদস্যও মোতায়েন করা হয়েছে সীমান্ত এলাকায়। সম্প্রতি গত ২৪ জানুয়ারী বাংলাদেশ-মিয়ানমার জয়েন্ট ওয়ার্কিং গ্রুপের মাঠ পর্যায়ের প্রতিনিধি এক বৈঠকে তাদের ফিরিয়ে নিতে সক্ষম হয়েছিল মিয়ানমার প্রতিনিধি দল ।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) সরওয়ার কামাল জানান, সীমান্তের ওপারে মিয়ানমার ট্রাক-পিক আপে করে অতিরিক্ত সীমান্তরক্ষী বাহিনী জড়ো করেছে মিয়ানমার। সীমান্তের তুমরু কোনাপাড়া নো-ম্যান্স ল্যান্ডে আশ্রয় নেয়া রোহিঙ্গাদের ভয়ভীতি দেখানো হচ্ছে। তবে আশঙ্কার কিছু নেই। পরিস্থিতি মোকাবেলায় সীমান্তে নিরাপত্তা বাড়িয়েছে বিজিবি এবং প্রশাসন। শূণ্যরেখায় আশ্রয় নেয়া রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নেয়ার ব্যাপারে বাংলাদেশ-মিয়ানমার যৌথ ওয়ার্কিং সভায় আশ্বস্তও করেছে মিয়ানমার।

বিজিবি ককসবাজার সেক্টরের কমান্ডার কর্নেল আব্দুল খালেক জানান, মিয়ানমার সীমান্ত এলাকায় প্রায় সময় সীমান্তরক্ষী বাহিনীর অতিরিক্ত সদস্য সংখ্যা বাড়িয়ে থাকে। আবার পরবর্তীতে সরিয়ে নেয়। কিন্তু হঠাৎ করে তুমব্রু সীমান্তে কেন অতিরিক্ত নিরাপত্তা বাড়ানো হয়েছে বুঝতে পারছিনা। কিন্তু সীমান্ত পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে। পরিস্থিতি মোকাবেলায় বাংলাদেশ সীমান্ত এলাকায়ও বিজিবি নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করেছে।

গত, ২৭ ফেব্রুয়ারী নোবেল জয়ী ৩ নারীও বান্দরবানের নাইক্ষংছড়ির তুমরু কোনা পাড়া নো-ম্যানস ল্যান্ডে অবস্থানরত রোহিঙ্গাদের পরিদর্শন করেছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Application to the Ministry of Information for registration.