কক্সবাজার-১ আসনে নিরাপত্তার চাঁদরে ঢাকা, আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় বিভিন্ন বাহিনীর ২৪৪৮ সদস্য

জহিরুল আলম সাগর,চকরিয়া
একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে কক্সবাজার-১ (চকরিয়া-পেকুয়া) আসনে ভোট গ্রহণের সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে। দুই উপজেলায় আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় কাজ করছে ২ হাজার ৪৪৮ জন বিভিন্ন বাহিনীর সদস্য।
চকরিয়া নির্বাচন অফিস সূত্রে জানা গেছে, ৩০ ডিসেম্বর ভোট গ্রহণের জন্য চকরিয়া উপজেলায় ৯৯টি কেন্দ্রের ৫ শত ২৫টি বুথ ও পেকুয়া উপজেলার ৪০টি কেন্দ্রের ১ শত ৯৯টি বুথ প্রস্তুত করা হয়েছে।
কক্সবাজারের-১ (চকরিয়া-পেকুয়া) আসনে ৩ লাখ ৯০ হাজার ভোটারের মধ্যে চকরিয়ায় ২ লাখ ৮৪ হাজার ৫৫০জন ভোটার ও পেকুয়ায় ১ লাখ ৬ হাজার ২৭৯ ভোটার রয়েছে। ৩০ ডিসেম্বর এসব ভোটাররা তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন। ভোটাররা যাতে নিশ্চিদ্র নিরাপত্তার মধ্য দিয়ে ভোট দিতে পারে এ ব্যাপারে সবধরনের প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন চকরিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তা নুরুদ্দীন মুহাম্মদ শিবলী নোমান।
জানা গেছে, চকরিয়ায় মেজর মো. সোহেলের নেতৃত্বে ৫০ ও পেকুয়ায় মেজর হাবিবের নেতৃতে ৫০ সদস্যের সেনাবাহিনীর টীম মাঠে কাজ করছেন। পাশপাশি লে. কর্ণেল মিজানুর রহমানের নেতৃত্বে ১৬০ সদস্যের বিজিবি চকরিয়ায় ও লে. কর্ণেল আসাদুজ্জামানের নেতৃত্বে পেকুয়ায় ১৪০ সদস্যের বিজিবিও মাঠে রয়েছে। লে. কর্ণেল মির্জা শাহেদ মাহতাবের নেতৃত্বে ৩৫ জন র‌্যাব সদস্য স্ট্রাইকিং ফোর্স হিসেবে কাজ করছে। এছাড়া চকরিয়ায় ৩শত পুলিশ ও পেকুয়ায় ৮০জন পুলিশ সদস্য নিরাপত্তার দায়িত্বে রয়েছেন। ভোটাররা শৃঙ্খলাবদ্ধভাবে ভোট দিতে সহায়তার জন্য চকরিয়ায় ১১৮৮ ও পেকুয়ায় ৪৮০ আনসার সদস্য ভোট কেন্দ্রে অবস্থান করবেন।
এদিকে চকরিয়ার ২৭টি কেন্দ্র উপজেলা প্রশাসনের দূরবর্তী হওয়ায় প্রশাসনের সার্বক্ষণিক নজরদারী থাকবে বলে জানান, চকরিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তা নুরুদ্দীন মুহাম্মদ শিবলী নোমান।
অপরদিকে পেকুয়ায় ৪০টি কেন্দ্র ঝুঁকিপূর্ণ বলে মন্তব্য করেছেন পেকুয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তা মো. মাহাবুব-উল করিম।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Application to the Ministry of Information for registration.