ভোটারদের মনে ভীতি সৃষ্টি করার পায়তারা চলছে—-সৈয়দ ইবরাহীম

ভোটারদের মনে ভীতি সৃষ্টি করার পায়তারা চলছে—-সৈয়দ ইবরাহীম
———————————————————
মোজাফফর হোসাইন সিকদার

ভোটারদের মনে ভীতিকর পরিবেশ সৃষ্টি করে নির্বাচনের স্বাভাবিক অবস্থা বিঘ্নিত করার পায়তারা করছে বলে মনে করছেন নির্বাচনী এলাকা চট্রগ্রাম ০৫ হাটহাজারী (বায়েজিদ আংশিক) আসনের ঐক্যফ্রন্ট মনোনীত ধানের শীষ প্রতীকের সংসদ সদস্য পদপ্রার্থী অবসরপ্রাপ্ত মেজর জেনারেল সৈয়দ মোহাম্মদ ইবরাহীম
(বীর প্রতীক)।১৭ই ডিসেম্বর রাত নয়টায় হাটহাজারী বাসস্ট্যান্ডস্হ অস্থায়ী নির্বাচনী কার্যলয়ে হাটহাজারীতে কর্মরত সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময়কালে এইসব অভিযোগ করেন। তিনি বলেন যতই ভয়ভীতি দেখানো হোকনা কেন ভোটারেরা সকল বাঁধা ডিঙ্গিয়ে তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন এবং আমরাও ভোট দেয়ার পরিবেশ সৃষ্টিতে দৃড় প্রতিজ্ঞ।। মতবিনিময় সভায় তিনি যেমনটি বল্লেন, বিভিন্ন এলাকায় আমরা আমাদের কর্মীদের সাথে নির্বাচনী আলাপ আলোচনাকালে সেখানে কে কে ছিলো কি কথা হলো পুলিশ আমার কর্মীদের ফোন করে জানতে চাই অথচ লাঙ্গলের প্রার্থীকে প্রটোকল দেয়। ধলইসহ বিভিন্ন জায়গায় আমার পোষ্টার ছিড়ে ফেলা হচ্ছে আমার কর্মীরা বাঁধা দিতে চাইলে হামলার চেষ্টা করা হয় । পুলিশ লাঙ্গল প্রতীকের প্রার্থীকে নির্বাচনী প্রচারনায় প্রটোকল দিচ্ছে আমার নিরাপত্তায় দুইটা মাছিও দেওয়া হচ্ছেনা।উল্টো আমাদের নেতা কর্মীদের ব্যাপারে খোঁজ খবর নেওয়া হচ্ছে!! আমি রিটার্নিং অফিসার মহোদয় ও সহকারী রিটার্নিং অফিসার ইউএনও হাটহাজারী, হাটহাজারী মডেল থানার উর্ধতন কর্মকর্তাদের সাথে দেখা করেছি কথা বলেছি, সবাই আমার প্রতি যথেষ্ঠ সম্মান দেখিয়েছেন কিন্তু ওসি মহোদয়ের সাথে দেখা করতে পারিনি, যখনি দেখা করার চেষ্টা করেছি আমাকে জানানো হয়েছে তিনি মন্ত্রী মহোদয়ের সাথেই আছেন। মন্ত্রী মহোদয় লাঙ্গলের নির্বাচনী প্রচারনা চালাচ্ছেন সেখানে পুলিশ প্রটোকল দিয়ে নিরাপত্তা দিতে হবে কেন?? যদি দিতে হয় আমাকেও নিরাপত্তা দেওয়ার দরকার নাইকি? কই আমার তো কোন প্রটোকল নাই। মাননীয় মন্ত্রী মহোদয় সারাদিন যদি নিজের কাজে ওসি মহোদয়কে ব্যস্ত রাখেন তাহলে থানার কার্যক্রম চলবে কিভাবে?? ব্যক্তি আনিসুল ইসলাম মাহমুদের প্রতি আমি খুবই শ্রদ্ধাশীল। কিন্তু প্রার্থী আনিসকে নিয়ে আমার ভীতি রয়েছে তিনি নির্বাচনী কাজে সরকারের সবধরনের সুযোগ সুবিধা গ্রহন করছেন। সৈয়দ ইবরাহীম বলেন আমাদের নেতা কর্মীদের হয়রানী করা হচ্ছে, ভীতি প্রদর্শন করা হচ্ছে, গ্রেফতার করা হচ্ছে। বিভিন্ন এলাকায় ধানের শীষের পোস্টার লাগাতে বাঁধা দেয়া হচ্ছে, পোস্টার ছিড়ে ফেলা হচ্ছে।তিনি মহাজোট প্রার্থীকে উদ্দেশ্য করে বলেন আমি আশা করছি নির্বাচনী পরিবেশ বজায় রাখতে আপনার কর্মীদের সংযত আচরণ করতে বলবেন।
সৈয়দ ইবরাহিম আরো বলেন, ধানের শীষ নির্বাচিত হলে, আমরা হাটহাজারীর প্রধান প্রধান যে সমস্যাগুলো রয়েছে সেগুলো অগ্রাধিকার ভিত্তিতে সমাধানের চেষ্টা করব। এসময় তিনি গ্রামীণ সড়ক ও যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়ন, হাটহাজারীতে ইপিজেড স্থাপন, শিল্প এলাকা স্থাপন, কারিগরী বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপন, উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সকে ২৫০ শয্যায় উন্নীতকরণ, ফায়ারিং রেঞ্জ সংক্রান্ত সমস্যা নিষ্পত্তি, সাংবাদিক, মুক্তিযোদ্ধা ও বিভিন্ন পেশাজীবীদের জন্য আবাসিক এলাকা সৃষ্টি করে প্লট বরাদ্দ সহ ২০ দফা নির্বাচনী প্রতিশ্রুতি তুলে ধরেন। তিনি উপস্থিত সাংবাদিকদের বলেন, আমি আপনাদের মাধ্যমে সকলের দোয়া চাই এবং ধানের শীষ প্রতীকে ভোট চাই। আমি নির্বাচন কমিশনের সহযোগিতা চাই উনারা যাতে হাটহাজারীতে শান্তিপূর্ণ নির্বাচনী পরিবেশ তৈরীতে যথাযথ ভূমিকা রাখেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Application to the Ministry of Information for registration.