রাতে ফেসবুকে মৃত্যু নিয়ে ভিডিও, সকালে এক বাড়ি থেকে ৪ জনের মরদেহ উদ্ধার

চাঞ্চল্যকর মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে চাঁদপুরে। চাঁদপুর সদর উপজেলায় এক বাড়িতে স্ত্রী ও দুই সন্তানের মৃতদেহসহ যুবকের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে।

আজ সোমবার সকালে দেবপুর গ্রামের বড়হুজুরের বাড়িতে স্থানীয় লোকজন লাশ দেখতে পেয়ে পুলিশকে খবর দেয়।

নিহত ব্যক্তিরা হলেন মাইনুদ্দীন (২৬), তাঁর স্ত্রী ফাতেমা বেগম (২৪), তাঁর দুই সন্তান মিথিলা (৫) ও সিয়াম (১)।

এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, গতকাল রোববার মাইনুদ্দীন চট্টগ্রাম থেকে চাঁদপুর আসেন। তিনি রাতে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে মৃত্যু বিষয়ক একটি ভিডিও পোস্ট করেন।

চাঁদপুর সদর মডেল থানার ওসি নাসিমউদ্দীন জানান, মাইনুদ্দিন সর্দার একটি বেসরকারি কোম্পানিতে চাকরির সুবাদে চট্টগ্রামে থাকতেন। এ কারণে তার স্ত্রী ও দুই মেয়ে একই এলাকায় শ্বশুরবাড়িতে থাকতেন।

পরিবার সূত্রে জানা যায়, গত বৃহস্পতিবার চট্টগ্রাম থেকে ফিরে স্ত্রী ও মেয়েদের তিনি দেবপুর গ্রামে নিজ বাড়িতে নিয়ে আসেন। রোববার রাতে পারিবারিক কলহের জের ধরে মাইনুদ্দিন প্রথমে দুই মেয়েকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করেন। এর পর স্ত্রীকে শ্বাসরোধ ও মুখে বিষ ঢেলে দিয়ে হত্যা পর ফ্যানের সঙ্গে গলায় ফাঁস দিয়ে নিজেও আত্মহত্যা করেন।

রামপুর ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান আর মামুন পাটোয়ারি জানান, মাইনুদ্দীন চট্টগ্রামে একটি বেকারি কারখানায় কাজ করতেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Application to the Ministry of Information for registration.