সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক ও বিভিন্ন পত্রিকায় জননেতা হাজী মোহাম্মদ ইলিয়াছকে নিয়ে অপপ্রচারের নিন্দা ও প্রতিবাদ

গত ২ ও ৩নভেম্বর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক, বিভিন্ন অনলাইন এবং দৈনিক কালের কণ্ঠ, আজাদী, কক্সবাজার, ইনানী, আমাদের কক্সবাজারসহ বিভিন্ন পত্রিকায় “সাংবাদিককে গালাগাল এমপি ইলিয়াছের” শীর্ষক বিভিন্ন শিরোনামে কক্সবাজার-১ (চকরিয়া-পেকুয়া) আসনের মাননীয় জাতীয় সংসদ সদস্য, জাতীয় পার্টি কেন্দ্রীয় কমিটির ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক ও কক্সবাজার জেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি জননেতা আলহাজ্ব মোহাম্মদ ইলিয়াছ মহোদয়ের বিরুদ্ধে প্রকাশিত সংবাদটি আমাদের দৃষ্টি গোচর হয়েছে। সংবাদটি সম্পূর্ণ মিথ্যা ভিত্তিহীন, কাল্পনিক ও উদ্দেশ্য প্রণোদিত। সংবাদের সাথে বাস্তবতার কোন মিলনাই। সাংবাদিক নামধারী উল্লেখিত ব্যক্তির একটি “ফোনালাপ” নাম দিয়ে জনবিভ্রান্তিকর ও মানহানী মূলক “অডিও কল” পোস্ট করে এবং পত্রিকায় মিথ্যা অপপ্রচার চালিয়ে যাচ্ছে। যা একজন সম্মানীত ব্যক্তি (মাননীয় সংসদ সদস্য)কে নিয়ে বিভ্রান্তি ছড়ানো ছাড়া আর কিছুই নয়। এসব অপপ্রচার ও উল্লেখিত সাংবাদিক নামধারী ব্যক্তির বিরুদ্ধে গত ২৮ অক্টোবর’১৮ইং মাননীয় সাংসদ হাজী ইলিয়াছ মহোদয়ের পক্ষে চকরিয়া থানায় সাধারণ ডায়েরী করা হয়েছে। এমপি’র পক্ষে তাহার ভাতিজা জিডিতে উল্লেখ গত ২৬ অক্টোবর বর্তমান সরকারের বন ও পরিবেশ মন্ত্রী ও জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য আনিসুল ইসলাম মাহমুদ এমপি নৈশভোজে আসেন। ওই সময় বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতৃবৃন্দ এবং প্রশাসনের উচ্চ পর্যায়ের কর্মকর্তা ও সাংবাদিকরা অংশ নেন। কিন্তু উক্ত সুন্দর আয়োজনকে ভিন্নভাবে প্রবাহিত করতে উল্লেখিত ব্যক্তির ফেসবুক ওয়ালে মিথ্যাচার করা হয়েছে। বাংলাদেশের মহান জাতীয় সংসদে বিগত ৫ বছর ধরে অত্যন্ত দক্ষতা, সততা ও সাহসিকতার সহিত কর্ম চালিয়ে নিজ আসন “চকরিয়া-পেকুয়া”র অভূতপূর্ব উন্নয়নে যুগান্তকারী ভূমিকা পালন করেছেন। আমরা দৃঢ়তার সহীত বলতে চাই “চকরিয়া-পেকুয়া’র দুই উপজেলায় শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, মসজিদ, মাদরাসা, মন্দির, ধর্মীয় উপসনালয়, সড়ক, বেড়িবাধ থেকে শুরু করে উন্নয়ন হয়নি এমনি বিষয় খুব কমই রয়েছে। যার কারণে সর্বস্তরের মানুষ থেকে শুরু করে সর্বপর্যায়ের নেতাকর্মীদের মাঝে একজন কর্মী বান্ধব যোগ্য নেতা হিসেবে পরিচিতি কিংবা খ্যাতী অর্জন করেছেন। মাননীয় সাংসদ হাজী মো: ইলিয়াছের মুখের ভাষায় তাহার শাসনামলে কষ্ট পেয়েছেন এমন কোন লোক খোজে পাওয়া যাবেনা। বিরোধীদল জাতীয় পার্টির একজন এমপি হওয়া সত্তে¡ও বর্তমান সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার যাবতীয় কর্মসূচী ও উন্নয়ন বাস্তবায়নে নির্লসভাবে কাজ চালিয়ে গেছেন। কিন্তু শাসকদলের কতিপয় ব্যক্তিরা অনৈতিক ও অগ্রহযোগ্য স্বার্থ আদায়ে ব্যর্থ হতে যাওয়ায় জনৈক সাংবাদিক নামধারী ব্যক্তিকে ব্যবহার করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ও পত্রিকায় মাননীয় সাংসদ হাজী মো: ইলিয়াছের বিরুদ্ধে মিথ্যা অপপ্রচারের মাধ্যমে নতুন করে ষড়যন্ত্রে মেতে উঠেছে। সম্প্রতি বর্তমান সরকারের মাননীয় বন ও পরিবেশ মন্ত্রী, জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য জাতীয় নেতা ব্যারিষ্টার আনিসুল ইসলাম মাহমুদ এমপি কক্সবাজারে সরকারী কর্মসূচীতে যোগদানের পূর্বে মাননীয় সাংসদ হাজী ইলিয়াছের চকরিয়াস্থ বাসভবনে দাওয়াতে আসেন। কিন্তু ওই ছোটন কান্তি নাথ তার ফেসবুক ওয়ালে মাননীয় মন্ত্রীর আগমন ও উপস্থিতিকে কেন্দ্র করে মানহানীকর ও কুরুচিপূর্ণ স্ট্যাটাস পোস্ট করেছেন। তার এসব নোংড়া স্ট্যাটাসের প্রতিবাদও এ সমাজে করা যাবেনা। প্রতিবাদ করলে সংখ্যালঘু হয়ে যায়। যা অত্যন্ত নির্লজ, চরিত্রহীন ও বেহায়াপনা বলে আমরা নেতাকর্মীরা মনে করি। মূলত: তার (এমপি’র) জনপ্রিয়তা ও জাতীয় পর্যায়ে দলীয় শক্ত অবস্থান সহ্য করতে না পেরেই এসব মিথ্যাচারের পথ বেঁছে নিয়েছে ষড়যন্ত্রকারীরা। বর্তমান ডিজিটাল প্রযুক্তির যোগে মোবাইল কলের যে কারো বক্তব্য এডিট করে মিশ্রিত করা যায়। এটি একটি স্বাভাবিক বিষয়। তাতে নেতাকর্মীসহ চকরিয়া-পেকুয়াবাসীকে বিভ্রান্ত করার কোন অবকাশ নাই। ইনশাল্লাহ আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে হাজী মো: ইলিয়াছ এমপি জাতীয় পার্টি তথা মহাজোটের একক প্রার্থী হয়ে এসব অপপ্রচারকারীদের বিরুদ্ধে সকল ষড়যন্ত্রের জবাব ইনশাল্লাহ চকরিয়া-পেকুয়াবাসী দেবেন। সর্বোপুরী উক্ত মিথ্যা, বানোয়াট ও কুরুচিপূর্ণ স্ট্যাটাসের আমরা সচেতন জনগন ও নেতাকর্মীরা তীব্র নিন্দা এবং প্রতিবাদ জানাচ্ছি। একই সাথে প্রিয় চকরিয়া,পেকুয়া ও কক্সবাজারের সম্মানীত সাংবাদিক বন্ধু মহলসহ চকরিয়া-পেকুয়াবাসীকে উক্ত মিথ্যা অডিও কল রেকর্ড নিয়ে বিভ্রান্ত না হওয়ার জন্য আহবান জানাচ্ছি। আসুন চকরিয়া-পেকুয়ার সার্বিক উন্নয়নে জননেতা আলহাজ্ব মোহাম্মদ ইলিয়াছের হাতকে আরো শক্তিশালী করি।
প্রতিবাদ বিবৃতি দাতা: আলহাজ্ব মো: গিয়াস উদ্দিন এমইউপি আহবায়ক, সিরাজুল ইসলাম সদস্য সচিব চকরিয়া উপজেলা, জাহাঙ্গীর আলম সভাপতি, সাংবাদিক দিদারুল ইসলাম সাধারণ সম্পাদক পেকুয়া উপজেলা, নুরুল হোছাইন এমইউপি সভাপতি, সাইফুল ইসলাম সাধারণ সম্পাদক মাতামুহুরী সাংগঠনিক উপজেলা, মো: আবু ছাদেক আহবায়ক, রেজাউল করিম, সদস্য সচিব জাতীয় পার্টির সর্বস্তরের নেতাকর্মীরা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Application to the Ministry of Information for registration.