কুতুবদিয়ায় শিক্ষককে হামলাকারীদের গ্রেফতারের দাবীতে মানববন্ধন

নিটন কুতুবীঃ
সদ্য শেষ হওয়া এসএসসি পরীক্ষার নকল করতে না দেয়ায় কুতুবদিয়া সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক মাসুদুল হাসানের উপর হামলা চালিয়েছে পরীক্ষার্থীর একদল দুর্বৃত্ত। তার প্রতিবাদে গত ২৬ ফেব্রুয়ারী সকালে স্কুল চালাকালীন সময়ে দূর্বৃত্তদের আটকের দাবীতে উপজেলা পরিষদ চত্বরে ইউএনও কার্যালয়ের সামনে মানববন্ধন করেছে বিদ্যালয়ের শিক্ষক/শিক্ষার্থীরা। এসময় বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষিকা জিগারুন নাহার, সহকারি শিক্ষক সজল দাশ,সহকারি শিক্ষক গিয়াস উদ্দিন সহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক ও শত শত শিক্ষিার্থীরা মানববন্ধনে অংশ নেয়।
জানা যায়, গত ২৪ ফেব্রুয়ারী (শনিবার) রাত ১০ টার দিকে রিক্সাযোগে বড়ঘোপ ইউনিয়নের মুরালিয়া গ্রামের বাড়িতে যাওয়ার পথে বড়ঘোপ মগডেইল এলাকায় দুবৃর্ত্তের হামলার শিকার হন কুতুবদিয়া সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালরে বিএসসি শিক্ষক মাসুদুল হাসান।
প্রত্যক্ষদর্শী ও স্থানীয়দের সূত্রে জানা যায়, শনিবার রাতের দিকে মগডেইল ভাঙ্গা পুকুর নামক এলাকায় কয়েকজন যুবকের হট্টগুল দেখে এগিয়ে গেলে দুর্বৃত্তরা পালিয়ে যায়। এসময় দুর্বৃত্তরা ওই শিক্ষককে মারধর করছিল বলে জানান তারা। এ ঘটনায় এলাকায় উত্তেজনার সৃষ্টি হলে পরে ঘটনাস্থলে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি শান্ত করে কুতুবদিয়া থানার ওসি মুহাম্মদ দিদারুল ফেরদাউস এ প্রতিনিধিকে নিশ্চিত করেন। তবে দুর্বৃত্তদের কেউই ওই এলাকার নয় বলে জানিয়েছে স্থানীয়রা। এ ঘটনায় দুর্বৃত্তদের আটক পূর্বক শাস্তি দাবি জানিয়েছেন অভিভাবক ও এলাকার সচেতন মহল।
এ বিষয়ে কুতুবদিয়া সরাকরি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক সজল দাশ জানান, সদ্য সমাপ্ত এসএসসি পরীক্ষায় হলের দায়িত্ব পালন কালে অসুদোপায় অবলম্বনের চেষ্টা করায় এসএসসি পরীক্ষার্থীর কয়েকজনের খাতা কেড়ে নিয়ে সর্তক করেছিলেন শিক্ষক মাসুদুল হাসান। পরীক্ষার হল নকল করতে না দেয়ার কিছু সংখ্যক শিক্ষকের মদদে এ ঘটনা ঘটায় বলে ধারণা করেন। অবশ্য পুলিশ শেষ পরীক্ষার দিন পরীক্ষার হলে সর্তক থাকায় বিশৃংখলা করতে না পেরে পরীক্ষার্থীরা রাতে এ ঘটনা ঘটায়। দুর্বৃত্তদের চিহ্নিত করে দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তি দাবী করেছেন তিনি।
এদিকে অভিভাকরা জানিয়েছেন, পরীক্ষার হলে নকল করতে না দেয়ার বিষয়টি উপজেলার কয়েকটি বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের মধ্যে অন্তঃদ্বন্দ্বের সৃষ্টি হয়। ফলে এক স্কুলের শিক্ষকের বিরুদ্ধে অন্য স্কুলের শিক্ষককে কটুবাক্য ব্যবহার করতে শুনেছেন বলে অভিযোগ করেছেন তারা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Application to the Ministry of Information for registration.