আ’লীগের বিজয় কেউ ঠেকাতে পারবে না : শাজাহান খান

নিজস্ব প্রতিবেদক:
নৌ-পরিবহণ মন্ত্রী ও মুক্তিযোদ্ধা শাজাহান খান বলেছেন, শেখ হাসিনার রাজনীতি দেশের উন্নয়ন করা। মানুষের কল্যাণে কাজ করা। অপরদিকে বিএনপি-জামায়াতের রাজনীতি হচ্ছে মানুষ হত্যা করা।

৭ সেপ্টেম্বর বিকেলে উখিয়ার পাশ্ববর্তী নাইক্ষ্যংছড়ি ঘুমধুম স্থল বন্দর স্থান পরিদর্শন শেষে এলাকাবাসীর সাথে মতবিনিময় কালে এ কথা বলেন।

তিনি বলেছেন, শেখ হাসিনার সরকারকালীন সময় উন্নয়নে দেশ এগিয়ে যাচ্ছে। আজকে দেশব্যাপী উন্নয়নের শোভা লক্ষ্যণীয়। তাই শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশের খেটে খাওয়া মানুষ থেকে শুরু করে সকল পেশার মানুষ আজ ঐক্যবদ্ধ। আবারো শেখ হাসিনাকে ক্ষমতায় নেবে দেশের জনগণ। আওয়ামীলীগের বিজয় কেউ ঠেকাতে পারবেনা।

বিএনপি-জামায়াত রাজনীতি করেছে মানুষ হত্যার মাধ্যমে। তাদের অনিয়ম, দুর্নীতি, লুটপাট, বিদেশে অর্থ পাচারই তাদেরকে ডুবিয়েছে। তারা আজ জনবিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে। খালেদা জিয়া এতিমের টাকা আতœসাত করেছে। এসব মামলায় খালেদা জিয়ার এই পরিনতি। দেশের সংবিধান অনুযায়ী রাষ্ট্র চলবে। প্রচলিত আইনে খালেদা জিয়ার বিচার হচ্ছে। সেখানে আওয়ামীলীগের কোন হাত নেই।
বিএনপি’র শাসনামলে আওয়ামীলীগের জনপ্রিয় নেতা আহসান উল্লাহ মাস্টার, সাবেক অর্থমন্ত্রী শাহ এমএস কিবরিয়া, মঞ্জরুল ইমামের মত জনপ্রিয় নেতাদের হত্যা করে আওয়ামীলীগ শুন্য করতে চেয়েছিল। এছাড়াও জননেত্রী শেখ হাসিনাকে একাধিকবার হত্যা চেষ্টা চালিয়েছে। গাড়ী পুড়িয়ে মানুষ হত্যা করাই খালেদা জিয়ার রাজনীতি। আর উন্নয়ন হচ্ছে শেখ হাসিনার রাজনীতি।

শুক্রবার বিকেল ৫ টায় মৈত্রী সড়ক চত্বরে ঘুমধুম ইউপির চেয়ারম্যান জাহাংগীর আজিজের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথির বক্তব্যে ঘুমধুমবাসীর উদ্দ্যেশ্যে করে নৌ-পরিবহণ মন্ত্রী শাজাহান খান আরো বলেছেন, নৌকায় ভোট দিন উন্নয়ন হবে।নৌকায় ভোট দিলে দেশের মানুষ শান্তিতে থাকে। পেট ভরে খেতে পারে। তিনি ঘুমধুম বাসীকে আশ্বস্থ করে বলেছেন, শুধু ঘুমধুমেই স্থল বন্দর নয়, নাইক্ষ্যংছড়ির চাকঢালায় ও একটি স্থল বন্দর হবে।

দেশে ২৩ টি স্থল বন্দরের মধ্যে ১২টি পুরোদমে চালু হয়েছে। মৈত্রী সড়কের কাজ শেষ পর্যায়ে। চালু হতে বেশীদিন সময় লাগবেনা। স্থল বন্দরও হবে। এ সময় আরো বক্তব্য রাখেন পার্বত্য বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী বীর বাহাদুর এমপি, বাংলাদেশ স্থল বন্দর কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান তপন কুমার চক্রবর্তী।

উপস্থিত ছিলেন বান্দরবানের জেলা প্রশাসক দাউদউল ইসলাম, বান্দরবানের পুলিশ সুপার জাকির হোসেন মজুমদার, জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক মো ইসলাম বেবী, যুগ্ন সম্পাদক লক্ষীপদ দাশ, নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলা নির্বাহী অফিসার সাদিয়া আফরিন কচি, আওয়ামীলীগ নেতা তসলিম ইকবাল চৌধুরী, আবু তাহের কোম্পানি, ইমরান মেম্বার, ঘুমধুম আওয়ামীলীগ সভাপতি হারেজ, জেলা ছাত্রলীগ সভাপতি কাউসার সোহাগসহ বিভিন্ন স্তরের নেতাকর্মী।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Application to the Ministry of Information for registration.