ছাত্রলীগ নেতা কফিলের বিরুদ্ধে উদ্দেশ্যমূলক মামলার অভিযোগ।

কক্স টিভি ডেস্ক: কক্সবাজার জেলা ছাত্রলীগের সহ-সম্পাদক কফিল উদ্দিন রিপন ও তার বাবা এবং দুই ভাই সাবেক জেলা ছাত্রলীগের ত্রাণ ও দূর্যোগ বিষয়ক সম্পাদক আজিজুর রহমান ও ঝিলংজা ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাবেক যুগ্ম-আহবায়ক বুলবুলের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দায়ের প্রতিবাদ জানিয়েছে তার সহকর্মী ও স্থানীয় চেয়ারম্যান এবং ছাত্রলীগ পরিবার। মামলার অভিযোগ থেকে জানা যায় কক্সবাজার শহরের আদালতপাড়ায় কামাল হোসাইন (৫৭) নামের এক আইনজীবী সহকারীর মৃত্যু হয়েছে।
একটি মামলার কাগজ নিয়ে সদরের ঝিলংজা ইউনিয়নের বাংলাবাজার মোক্তারকুল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক খলিলুর রহমান ও মৃত ব্যক্তির সাথে বাকবিতণ্ডায় জড়িয়ে পড়েন। একপর্যায়ে খলিল মাস্টারের ঘুষিতে মৃত্যু হয় বলে অভিযোগ করে কক্সবাজার সদর মডেল থানায় এজাহার দায়ের করেন নিহতের ছেলে। কিন্তু কফিলের বাবা ও পরিবারের দাবি মৃতব্যক্তির সাথে কথা কাটাকাটি হলেও ঘুষি মারার অভিযোগ সম্পুর্ন মিথ্যা ও ভিত্তিহীন। এখানে তৃতীয় পক্ষ ঢুকে তাদের ব্যক্তিগত স্বার্থ এবং রাজনৈতিক উদ্দেশ্যে হাসিলে এই বানোয়াট মামলা দিয়েছে। আমরা এই মামলার সুষ্ঠ তদন্তের মাধ্যমে মামলা প্রত্যাহার চাই।

ঝিলংজা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান টিপু সুলতান ও কক্সবাজার জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি ইসতিয়াক এবং ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক তানিম মুরশেদ বলেন কফিল কক্সবাজার জেলা ছাত্রলীগের সহ-সম্পাদক। সংগঠনের সকল কর্মকান্ডেই তার স্বত:স্ফুর্ত অংশগ্রহণ করে এলাকার সকলেই জানে। কিন্তু দু:খের বিষয় হলো কফিল ও তার পরিবারের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করে মিথ্যা বানোয়াট হত্যা মামলা দেয়া অত্যন্ত দুঃখজনক। এবং আমরা তার তীব্র নিন্দা জানিয়ে সুষ্ঠ তদন্তের মাধ্যমে মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবী জানাচ্ছি।

এ বিষয়ে উক্ত কমিটি এবং অন্যান্য ইউনিটের নেতা কর্মীরা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুকে লিখেছেন, কফিল এবং তার পরিবার রাজনৈতিক মিথ্যা মামলার শিকার,এক‌টি আওয়ামী পরিবার ধ্বংসের পাঁয়তারা করেছে এক‌টি মহল। সে খুব ভাল ছাত্র, তার বাবার মাধ্যমে এরকম কাজ হতে পারে বলে আমরা বিশ্বাস করিনা। ওরা আমাদের দেখা সেরা আওয়ামী ১০ পরিবারের মধ্যে এক‌টি। সঠিক তদন্তের মাধ্যমে আসল রহস্য খুঁজে বের করার দাবি জানান মামলার সংশ্লিষ্ট কতৃপক্ষের কাছে।

এ বিষয়ে ছাত্রলীগ নেতা কফিল বলেন, আমি এবং আমার পরিবার বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে বুকে ধারণ করে রাজনীতি করি। আমার লক্ষ্য পড়াশুনা করে মানুষের মত মানুষ হওয়া। কিন্তু রাজনীতি আমার রক্তের সাথে মিলেমিশে একাকার হয়ে আছে। আমি বঙ্গবন্ধুর আদর্শের এক লড়াকু সৈনিক হওয়ার জন্যই প্রতিনিয়ত নিজেকে তৈরী করছি। আমি নোংরা রাজনীতি পছন্দ করিনা, আমরা কোন অপরাধ করিনি, আমাদের একটি মহল সম্পুর্ন রাজনৈতিক উদ্দেশ্যে একটি আওয়ামী পরিবারকে ধ্বংস করার চেষ্টা করে এই মামলা দায়ের করেছে। আমরা এর সঠিক তদন্তের মাধ্যমে এই হত্যা মামলার বিচার চাই। আরও বিচার চাই, যারা আমাদের আদর্শের উপর কালি দেওয়ার চেষ্টা করছে তাদের

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Application to the Ministry of Information for registration.