লামায় স্ত্রীকে বাঁচাতে গিয়ে স্বামী গুরুতর আহত

মোহাম্মদ রফিকুল ইসলাম, লামা (বান্দরবান) প্রতিনিধি, ২৩ জুন’ ২০১৮ইং
———————————–
বান্দরবানের লামা উপজেলার আজিজনগরে সৃজিত বাগানের গাছ কেটে নিয়ে যাওয়ার সময় বাধা দিতে গেলে সন্ত্রাসীদের হামলার শিকার হন নাছিমা আক্তার (৪৩) নামে এক গৃহবধু। স্ত্রীকে হামলা থেকে রক্ষা করতে গিয়ে সন্ত্রাসীদের মারধরে গুরুতর আহত হয় নুরুল আবচার (৪৮)। আশংকাজনক অবস্থায় নুরুল আবচারকে লোহাগাড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত ডাক্তার চমেক হাসপাতালে রেফার করে। বর্তমানে তিনি চট্টগ্রাম সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচ) চিকিৎসাধীন রয়েছে।
আহত নাছিমা আক্তারের ছোট ভাই জহিরুল ইসলাম মানিক জানান, গত ২০ জুন বুধবার সকালে আজিজনগরের মিশন পাড়ায় ফউজুল কবির প্রকাশ ফজু মৌলভী (৫৩) নিজের স্ত্রী-ছেলেদের সহ ভাড়াটিয়া কয়েকজন সন্ত্রাসী নিয়ে বোন জামাই নুরুল আবচারের সৃজিত বাগানে জোর পূর্বক গাছ কেটে নিয়ে যায়। এসময় আমার বোন নাছিমা আক্তার বাধা দেন। তখন ফজু মৌলভী সহ তার ছেলে মহিউদ্দিন, বেলাল, হেলাল, নাজিম, হাবিব, ইমন, হাসান ও ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসী ১০/১২ জন মিলে নাছিমাকে মারধর করতে থাকে। খবর পেয়ে তার স্বামী নুরুল আবচার দোকান থেকে দৌড়ে এসে স্ত্রীকে রক্ষায় চেষ্টা করলে প্রতিপক্ষরা তাকে দা, কুড়াল, হকিস্টিক, লোহার রড দিয়ে মাথা ও চোখে আঘাত করলে তিনি মাটিতে লুটিয়ে পড়ে। তখন ফজু মৌলভী ও তার সঙ্গীয়রা বাগানের ২০টি একাশি গাছ যার মূল্য ৫০ হাজার টাকা, নাছিমার গলার ১২ আনা ওজনের স্বর্ণের চেইন ও আবচারের দোকান বিক্রির প্রায় ৩০ হাজার টাকা নিয়ে যায়। এছাড়া বাগানের ঘেরাভেড়া ভেঙ্গে আরো ১০ হাজার টাকার ক্ষতি করে।
আহত নাছিমা আক্তার বলেন, চাম্বি মৌজার মিশন পাড়াস্থ জেনারেল হোল্ডিংয়ের ২৯ ও ৩৭ নং দাগের ৬০ শতক জায়গার মালিক আমরা। আমাদের দীর্ঘদিনের দখলীয় ও সৃজিত বাগানের গাছ কেটে নেওয়ার সময় বাধা দিলে তারা হামলা করে। আমার স্বামী চট্টগ্রাম সিএমএইচ এ চিকিৎসাধীন। তার চোখের অবস্থা ভাল না। আমরা বিষয়টি অবগত করে ও সমাধানে আজিজনগর ইউপি চেয়ারম্যানের কাছে লিখিত আবেদন করলে প্রতিপক্ষরা পরিষদে না আসায় সমস্যাটি মীমাংসা করা যায়নি। আমি পদুয়া হাসপাতালে চিকিৎসা করিয়েছি।
অভিযুক্ত ফউজুল কবির এর মুঠোফোনে (০১৮২৯৪৯২১৭২) একাধিকবার কল করা হলে তিনি ফোন রিসিভ না করায় তার বক্তব্য নেয়া সম্ভব হয়নি।
আজিজনগর ইউপি চেয়ারম্যান মো. জসিম উদ্দিন বলেন, জায়গার সমস্যা সমাধানে ফজু মৌলভীকে ডাকা হলে তারা না আসায় বিরোধটি মীমাংসা করা যায়নি। এই জমি নিয়ে ফজু মৌলভী বান্দরবান জর্জ কোর্টে মামলা করেছে। মামলা করা অবস্থায় জোর করে গাছ কাটতে গেলে নুরুল আবচার ও তার স্ত্রী বাধা দেয়ায় তাদের মারধর করে। ফজু মৌলভী মামলাবাজ স্বভাবের মানুষ।
এই বিষয়ে লামা থানা পুলিশের অফিসার ইনচার্জ অপ্পেলা রাজু নাহা বলেন, বিষয়টি আমি জেনেছি। রোগীর চিকিৎসা চলছে। ক্ষতিগ্রস্থরা অভিযোগ দিলে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

ছবির প্রতিকীঃ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Application to the Ministry of Information for registration.