মহেশখালীতে এক গৃহবধুর লাশ উদ্ধারঃ ঘাতককে আটক করতে সড়কে পুলিশের তল্লাশি

মহেশখালীতে এক গৃহবধুর লাশ উদ্ধারঃ ঘাতককে আটক করতে সড়কে পুলিশের তল্লাশি
নিজস্ব সংবাদদদাতা,মহেশখালীঃ
মহেশখালী উপজেলার মাতারবাড়ী নতুনবাজার আইড়িয়াল স্কুলের পাশের খাল থেকে এক গৃহ বধুর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, সকাল ১১ টায় এক মহিলার লাশ মাতারবাড়ী আইড়িয়াল স্কুল সংলগ্নখালে পানিতে ভাসতে দেখে মাতারবাড়ী ফাঁড়ী পুলিশকে খবর দিলে মাতারবাড়ী পুলিশ ফাঁড়ীর আইসি আমিনুল হকের নেতৃত্বে একদল পুলিশ ১৩ জুন বুধবার দুপুর ১ টার দিকে ঘটনাস্থলে গিয়ে উক্ত গৃহ বধুর লাশ উদ্ধার করে মাতারবাড়ী পুলিশ ফাঁড়ীতে নিয়ে আসে। উদ্ধারকৃত মহিলা উপজেলার মাতারবাড়ী ইউনিয়নের সাতঘরপাড়া গ্রামের শামসুল করিমের পুত্র ফয়সালের স্ত্রী কুলছুমা বেগম ( ৩২)। উক্ত গৃহবধুর বাড়ী পাশ্ববর্তী কুতুবদিয়া উপজেলার আলি ফকিরডেইল গ্রামের রফিক আহমদের কন্যা। তাঁদের ঘরে রয়েছে এক ছেল ও এক মেয়ে।
স্থানিয়দের ভাষ্যমতে, দীর্ঘদিন ধরে তাঁদের সংসারে বনিবনা না থাকায় স্বামী- স্ত্রীর মধ্যে প্রায় সময় ঝগড়া বিবেদ লেগে থাকতে এই কোন্দালের জেরধরে শবকদরের রাতে যে কোন এক সময়ে উক্ত গৃহবধুকে হত্যা করে কৌশলে লাশ গুম করার উদ্দ্যোশে কয়লা বিদ্যুৎ প্রকল্প সংগল্গন রাঙাখালী খালে পেলে দেয়। কিন্তু প্রবল বর্ষণের ঢলের পানিতে ভেসে কুলে চলে আসে হতভাগী গৃহবধুর লাশ ।
এদিকে সচতুর ঘাতক ফয়সাল ঘটনা ভিন্নখাতে প্রবাহিত করতে মহেশখালী থানায় স্ব-শরীরের হাজির হয়ে বুধবার দুপুর ১২ টার দিকে তার স্ত্রী নিখোঁজের একটি সাধারণ ডায়েরি করেন। ডায়েরি করের বাড়ী ফেরার পথে সাথে সাথে থানা পুলিশ মুঠোফোনে ঘটনার বিষয়টি জেনে সন্দেহাতীত হয়ে উপজেলার হোয়ানক পুলিশ ক্যাম্পে ও কালারমারছড়া পুলিশ ফাঁড়ীর আইসিকে ঘটনাটি অবহিত করেন। তাক্ষনিক উক্ত দুই ফাঁড়ির পুলিশ সড়কে চেকপোষ্ট বসিয়ে যানবাহনে তল্লাশি করে ঘাতক ফয়সালকে গ্রেফতারের চেষ্টা চালায়। কিন্তু কৌশলী ফয়সাল পুলিশের তল্লাশি আঁচ করতে পেরে তার বহনকারী গাড়ী থেকে নেমে গা ঢাকা দেওয়ায় থাকে গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ।
এব্যাপারে মাতারবাড়ী পুলিশ ক্যাম্পের আইসি আমিনুল হক বলেন, কুলছুমা নামে এক গৃহবধুর লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। তিনি আরোও জানান, প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে পারিবারিক কলহের জেরধরে থাকে হত্যা করা হয়েছে। লাশটি কক্সবাজার সদর হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। সুরতহাল রির্পোট আসলে হত্যার মুল রহস্য উদ্ঘাটন হবে।
মহেশখালী থানার ওসি প্রদীপ কুমার দাশ বলেন, সুরতহাল রির্পোট হাতে আসলে হত্যা নাকি আত্মহত্যা জানতে পারবে। আর বিষয়টি তদন্তপূর্বক সংশ্লিষ্ট আইনে মামলা রুজু করা হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Application to the Ministry of Information for registration.