চকরিয়ায় আদালতের আদেশ উপেক্ষা করে খতিয়ানভূক্ত জমির উপর চলাচল রাস্তা নির্মাণ নিয়ে উত্তেজনা

জহিরুল আলম সাগর,চকরিয়া:
চকরিয়া পৌর এলাকায় আদালতের নির্দেশনা অমান্য করে ব্যক্তি মালিকানাধীন খতিয়ানভূক্ত জমির উপর দিয়ে পৌরসভার এক কর্মকর্তার নেতৃত্বে রাস্তা নির্মাণের অভিযোগ উঠেছে। এনিয়ে এলাকায় ক্ষোভ ও উত্তেজনা বিরাজ করছে। থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে চলাচল রাস্তা নির্মাণকাজ বন্ধ করে দিলেও পুলিশ চলে আসার পর ফের কাজ চালিয়ে যাওয়ার অভিযোগ করেন ভূক্তভোগীরা। গতকাল ৫জুন সকাল ৯টার দিকে পৌরসভার ২নং ওয়ার্ডের হাইস্কুল রোড শমসেরপাড়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটেছে।
অভিযোগে জানাগেছে, পৌর ২নং ওয়ার্ডের শমসেরপাড়া এলাকার মরহুম আবদুল করিমের পুত্র জয়নাল আবদীন গংয়ের মালিকানাধীন চিরিংগা মৌজার বিএস খতিয়ান নং ৫৭, দাগ নং ১৯৫ এবং ১৯১ দাগের উপর দীর্ঘকালের ভোগ দখলীয় বসতভীটা রয়েছে। ওই বসতভীটার উপর দিয়ে পৌরসভার কার্যসহকারী ও ৫নং ওয়ার্ডের কাহারিয়াঘোনা গ্রামের মরহুম মৌলানা নুরুল কবিরের পুত্র শফিকুল হক পার্শ্ববর্তী জনৈক কতিপয় প্রভাবশালী মহলের সাথে আর্থিক লেনদেনের মাধ্যমে এক তরফিয়ভাবে জোর পূর্বক চলাচল পথ নির্মাণ এবং জমি জবর দখলে দেওয়ার পায়তারা চালায়। এনিয়ে জয়নাল আবদীন গং অভিযুক্ত মুজিবুল হক পিতা মরহুম হাজী আবদুল হক, ফরিদুল আলম ও বশির আহমদ উভয় পিতা মরহুম আবদুল মোনাফ সওদাগর, নুরুল ইসলাম পিতা মরহুম আনু মিয়াসহ প্রভাবশালী গংদের বিরুদ্ধে গত ৩০মে’১৮ইং অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট আদালত,কক্সবাজারে ১৪৪ ধারা জারি চেয়ে এমআর মামলা নং ৪৯১/১৮ দায়ের করেন। অভিযোগ আমলে নিয়ে বিজ্ঞ আদালতে চকরিয়া উপজেলা সহকারী কমিশনার ভূমিকে সরে জমিনে প্রতিবেদন দেওয়ার এবং থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে শান্তিশৃংখলা রক্ষার নির্দেশ দেন। কিন্তু আদালতের ওই নির্দেশনা উপেক্ষা করে পৌর কর্মকর্তা শফিক ভাড়াটিয়া লোকজন নিয়ে গতকাল ৫জুন সকাল থেকে জোর পূর্বক খতিয়ানী জমির উপর দিয়ে চলাচল পথ নির্মাণ কাজ শুরু করেন। জয়নাল আবদীন গং বিষয়টি থানার অফিসার ইনচার্জকে অবহিত করলে থানার উপপরিদর্শক অপু বড়–য়া সংগীয় পুলিশদল দিয়ে ঘটনাস্থলে পৌছে রাস্তা নির্মাণকাজ বন্ধ করে দেন। এনিয়ে জয়নাল আবদীন গং বিজ্ঞ আদালতসহ সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।
জানতে চাইলে পৌরসভার কার্যসহকারী শফিকুল হক জানিয়েছেন, স্থানীয়দের অভিযোগের প্রেক্ষিতে পৌরসভায় এ বিষয়ে শালিস বিচার হয়। শালিসে জয়নাল আবদীন গংয়ের বিপক্ষে রায় হয় এবং চলাচল পথ নির্মাণের সিদ্ধান্ত হয় বলে জানান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Application to the Ministry of Information for registration.