আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালতে মিয়ানমারকে নেওয়ার আহ্বান

রোহিঙ্গাদের ওপর ভয়াবহ নির্যাতনের জন্য মিয়ানমারকে অবিলম্বে আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালতে (আইসিসি) নিতে জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের (ইউএনএসসি) প্রতি আহ্বান জানিয়েছে মানবাধিকার সংগঠন হিউম্যান রাইটস ওয়াচ।

সংস্থার ইন্টারন্যাশনাল জাস্টিস প্রোগ্রামের সহযোগী পরিচালক প্রেম-প্রীত সিং মঙ্গলবার এ আহ্বান জানান।

প্রেম-প্রীত সিং বলেন, ‘এখন যেহেতু নিরাপত্তা পরিষদ মিয়ানমার সেনাবাহিনীর ভয়াবহতার কথা রোহিঙ্গা উদ্বাস্তুদের কাছ থেকে সরাসরি জেনেছে, তাই দায়ীদের জবাবদিহিতা পরিষ্কার করা প্রয়োজন।

মিয়ানমার নৃশংসতার দায় বারবার অবিশ্বাস্যভাবে অস্বীকার করে আসছে। সেই সাথে সেখানে দীর্ঘদিন ধরে বিচারহীনতার সংস্কৃতি চলছে। তাই ভুক্তভোগীদের জন্য আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালতই ন্যায়বিচার পাওয়ার একমাত্র আশা।’

‘নৃশংসতার বিস্তারিত প্রমাণ অস্বীকারের মাধ্যমে মিয়ানমার সরকারের মূলত রোহিঙ্গাদের বিরুদ্ধে চালানো ভয়ানক অপরাধ সমাধানে কোনো অভিপ্রায় নেই।

দেশটির সরকারি কর্মকর্তারা নির্যাতনের তদন্ত করার যে ফাঁপা প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন, তা পুনরাবৃত্তি করা নিরাপত্তা পরিষদের উচিত হবে না। এটি আইসিসিতে পাঠানোর মতো একটি আদর্শ মামলা। সরকার যা করতে চায় না, তা করার জন্যই তো আইসিসি সৃষ্টি করা হয়েছে’, যোগ করেন প্রেম-প্রীত সিং।

‘মিয়ানমার আইসিসির সদস্য নয় এবং তারা আদালতটির বিচারব্যবস্থা মেনে চলে না। তাই রোহিঙ্গা সমস্যার বিষয়টি সেখানে নিতে নিরাপত্তা পরিষদের উদ্যোগ নিতে হবে’, বলেন হিউম্যান রাইটস ওয়াচের ইন্টারন্যাশনাল জাস্টিস প্রোগ্রামের সহযোগী পরিচালক।

রোহিঙ্গাদের পরিস্থিতি সরাসরি দেখার জন্য চলতি মাসের শুরুর দিকে ১৫ সদস্য বিশিষ্ট নিরাপত্তা পরিষদের জ্যেষ্ঠ কূটনৈতিকরা বাংলাদেশ ও মিয়ানমার সফর করেন। সে সময় তারা বাংলাদেশের কক্সবাজারের উদ্বাস্তু শিবিরে যান। চার দিনের মিয়ানমার ও বাংলাদেশ সফরকালে তারা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, মিয়ানমারের বেসামরিক নেত্রী অং সান সু চি ও দেশটির সেনাপ্রধানসহ বিভিন্ন মানবিক সহায়তা সংস্থা, সুশীল সমাজ, সংসদ সদস্য এবং সামরিক ও বেসামরিক কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠক করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Application to the Ministry of Information for registration.