বিয়ের বয়স না হলে ‘লিভ-ইন’ করা যাবে : ভারতের সুপ্রিম কোর্ট

 

প্রেম তো কোনো বয়স মানে না। সেই প্রেমের অবশ্যম্ভাবী পরিণতি গড়ায় মন থেকে শরীরে। তবে বিভিন্ন দেশের মতো ভারতের সরকারও বিয়ের বয়স বেঁধে দিয়েছে। ছেলেদের ক্ষেত্রে যা ২১ এবং মেয়েদের ক্ষেত্রে ১৮। এই আইন ঠিক রেখেই এবার যুগান্তকারী রায় দিল ভারতের সুপ্রিম কোর্ট। সম্মতি থাকলে প্রাপ্তবয়স্ক পুরুষ ও নারী লিভ-ইন করতেই পারেন, পুরুষের বয়স ২১ এর কম হলেও!

গত বছর কেরলের ২০ বছর বয়সী তরুণী তুষারার সঙ্গে বিয়ে নন্দকুমার নামক এক তরুণের। বিয়ের সময় নন্দকুমারের বয়স ছিল ২১ এর কম। ওই বিয়ের পরেই তার মেয়েকে অপহরণ করা হয়েছে- মর্মে একটি মামলা দায়ের করেন তুষারার বাবা। সেই মামলায় গত বছর কেরল হাইকোর্ট ওই বিয়েকে অবৈধ ঘোষণা করে তুষারাকে তার বাবার বাড়িতে ফিরে যাওয়ার নির্দেশ দেয়। এরপর কেরল হাইকোর্টের সেই রায়কে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে আবেদন করা হয়েছিল সুপ্রিম কোর্টে।

সেই আবেদনের প্রেক্ষিতে বিচারপতি এ কে সিক্রি ও বিচারপতি অশোক ভূষণকে নিয়ে গড়া সুপ্রিম কোর্টের ডিভিশন বেঞ্চ শুক্রবার ঘোষণা করেছে, ‘বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হওয়ার বয়স না হলেও যারা প্রাপ্তবয়স্ক, তারা সেই সম্পর্কের বাইরেও লিভ-ইন করতে পারেন। তাদের সেই আইনি অধিকার রয়েছে। আইনসভাও লিভ-ইন সম্পর্ককে অনুমোদন করেছে। সেই সম্পর্ককেও পারিবারিক হিংসা আইনের অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে।’

এইকই সঙ্গে দেশটির সুপ্রিম কোর্টের ডিভিশন বেঞ্চ বলেছে, তুষারাকে তার সঙ্গীকে ছেড়ে বাবার বাড়ি ফিরে যাওয়ার নির্দেশ দেওয়াটা কেরল হাইকোর্টের উচিত হয়নি। তুষারা কার সঙ্গে থাকবেন, সেটা তাকেই ঠিক করতে বলেছে শীর্ষ আদালত। ডিভিশন বেঞ্চ এটাও বলেছে, ‘দাম্পত্যে সঙ্গী নির্বাচনে আদালত জাতির পিতার ভূমিকা নিতে পারে না।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Application to the Ministry of Information for registration.