দর্শক দেখছেন শাকিব খানের ‘চালবাজ’?

 

 

গত শুক্রবার থেকে দেশের প্রায় ১০৩টি প্রেক্ষাগৃহে চলছে শাকিব খান অভিনীত ভারতীয় বাংলা ছবি ‘চালবাজ’। চলচ্চিত্র বিনিময় নীতিমালা মেনে এই ছবিটি ‘বিদেশি’ সিনেমা হিসেবে ভারত থেকে বাংলাদেশে আমদানি করা হয়েছে। তাই শাকিব খান দেশের হলেও তাঁর এই বিদেশি ছবিটি নিয়ে দর্শকের আগ্রহ অন্যবারের চেয়ে আলাদা।

মুক্তির প্রথম দুই দিনে ‘চালবাজ’ ঢাকা ও ঢাকার বাইরে সন্তোষজনক ব্যবসা করেছে বলে বিভিন্ন প্রেক্ষাগৃহ কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে। শুক্রবার অনেক প্রেক্ষাগৃহেই পাঁচটি প্রদর্শনীর মধ্যে তিনটিই ছিল দর্শকপূর্ণ। ঢাকা ও ঢাকার বাইরে কোনো কোনো প্রেক্ষাগৃহে টিকিট না পেয়ে কালোবাজারিদের কাছ থেকে দর্শককে প্রায় দ্বিগুণ দামে টিকিট কিনতে হয়েছে। শুক্রবার ‘চালবাজ’ ছবির বিকেলের শোতে ঢাকার মধুমিতা হলে গিয়ে সেই দৃশ্যই চোখে পড়ে। ড্রেস সার্কেলের (ডিসি) টিকিটের মূল দাম ১৫০ টাকা। কালোবাজারে তা ২৫০ টাকায় বিক্রি হয়। রিয়ার স্টলের ৭০ টাকার টিকিট বিক্রি হয় ১৫০ টাকায়।

তবে মুক্তির তৃতীয় দিন এসে ‘চালবাজ’-এর দর্শক কিছুটা কমে এসেছে। গতকাল মধুমিতা হলের ব্যবস্থাপক রেজাউল করিম বলেন, প্রথম দিন তিনটি শো হাউসফুল ছিল। দ্বিতীয় দিন দর্শক ছিল মোটামুটি। তবে তৃতীয় ও চতুর্থ দিনে এসে টিকিট বিক্রি অর্ধেকে চলে এসেছে। একই রকম তথ্য দিলেন রাজশাহীর উপহার সিনেমা হলের ব্যবস্থাপক শুভ সাহা। বললেন, প্রথম দিন তিন শো হাউসফুল ছিল। এরপর আস্তে আস্তে দর্শক কমছে। এর কারণ হিসেবে বৈরী আবহাওয়ার কথা উল্লেখ করেন শুভ সাহা।

ঢাকার বাইরে টঙ্গীর চম্পাকলি, গাজীপুরের চন্দনা, নারায়ণগঞ্জের মেট্রো প্রেক্ষাগৃহগুলো থেকে ভালো ব্যবসার খবর এসেছে। চালবাজ ছবির আমদানিকারক প্রতিষ্ঠান সূত্রে জানা যায়, প্রতিটি হল থেকেই মুক্তির প্রথম দুই দিন গড়ে প্রায় দুই লাখ টাকার টিকিট বিক্রি হয়েছে।

যশোরের মণিহার সিনেমা হলের ব্যবস্থাপক তোফাজ্জেল হোসেন বলেন, প্রথম দুই দিন মোটামুটি ভালোই ছিল। গ্রামে ধান কাটার ও ফসল রোপণ করার সময় এটি। এ কারণে গ্রামের দর্শক পাওয়া যাচ্ছে না।

শাকিব খানের অন্য ছবির চেয়ে আমাদানি করা ‘চালবাজ’ ভালো যাচ্ছে বলে জানান ঢাকার মিরপুরের সনি সিনেমা হলের ব্যবস্থাপক শংকর কুমার সাহা। তিনি বলেন, প্রথম দুই দিন খুব ভালো গেছে। এখন দর্শক কমে গেছে। তবে গেল ঈদের পর থেকে শাকিবের মুক্তি পাওয়া যেকোনো ছবির চেয়ে এই ছবিটি এগিয়ে।

ব্যবসার দুর্দিনে ‘চালবাজ’ হলমালিকদের খানিকটা স্বস্তি দিয়েছে বলে জানান প্রদর্শক সমিতির সভাপতি ও মধুমিতা হলের মালিক ইফতেখার উদ্দিন নওশাদ। তিনি বলেন, সামনে নতুন ছবি নেই। চালবাজ-এর আয় দিয়ে রোজার মাসে হলের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বেতন কিছুটা হলেও পরিশোধ করা যাবে।

‘চালবাজ’ ছবির আমদানিকারক প্রতিষ্ঠান এন ইউ আহমেদ ট্রেডার্সের কর্ণধার কামাল মোহাম্মদ কিবরিয়া বলেন, দ্বিতীয় সপ্তাহে অর্থাৎ ৪ মে থেকে চালবাজ নতুন করে আরও বেশ কয়েকটি প্রেক্ষাগৃহে উঠবে। চালবাজ ছবিতে শাকিব খানের বিপরীতে আছেন কলকাতার শুভশ্রী।

গত ২০ এপ্রিল ভারতের পশ্চিমবঙ্গে মুক্তি পায় ‘চালবাজ’। সেখানে চলতি সপ্তাহে প্রায় ৭১টি প্রেক্ষাগৃহে চলছে এই ছবি। ছবির ভারতীয় প্রযোজক অশোক ধানুকা কলকাতা থেকে মুঠোফোনে বলেন, এখন পর্যন্ত তাঁরা সাড়া ভালো পাচ্ছেন। এটি চার সপ্তাহ পর্যন্ত প্রেক্ষাগৃহে দর্শক টানবে বলে আশা করছেন তিনি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Application to the Ministry of Information for registration.