নিখোঁজের ৭ দিনেও উদ্ধার হয়নি ৬ষ্ঠ শ্রেণী ছাত্রী

মোহাম্মদ রফিকুল ইসলাম, লামা (বান্দরবান) প্রতিনিধি, ০১ মে’ ২০১৮ইং
———————————–
বিদ্যালয়ে যাওয়ার পথে অপহরণের শিকার ৬ষ্ঠ শ্রেণীর স্কুল ছাত্রী মাজেদা বেগম (১৩) নিখোঁজের ৭ দিন পেরিয়ে গেলেও এখনো উদ্ধার হয়নি বলে জানিয়েছে ভিকটিমের পরিবার। এদিকে সহায়তা চেয়ে চকরিয়া থানায় গেলে পুলিশ কোন সহযোগিতা করেনি বলে জানায়, মাজেদার বড় ভাই মো. মামুন রশিদ। নিখোঁজ স্কুল ছাত্রী মাজেদা বেগম লামা উপজেলার পাশর্^বর্তী ছিটমহল খ্যাত কক্সবাজার জেলার চকরিয়া উপজেলার বমু বিলছড়ি ইউনিয়নের পশ্চিম পাড়ার নুর মোহাম্মদের মেয়ে।
পুলিশের অবহেলা বিষয়ে কক্সবাজার জেলার পুলিশ সুপার ড. এ.কে.এম ইকবাল হোসেন বলেন, আমি দ্রুত খবর নিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য চকরিয়া থানাকে নির্দেশ দিচ্ছি।
অপহৃত মাজেদার বড় ভাই মো. মামুন রশিদ বলেন, আমার ছোট বোন বমু বিলছড়ি ইউনিয়নের শহীদ আব্দুল হামিদ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ৬ষ্ঠ শ্রেণীর ছাত্রী। প্রতিনিয়ত সে বাড়ি থেকে পায়ে হেঁটে বিদ্যালয়ে যায়। বাড়ির পাশর্^বর্তী মৃত ফারুক আহামদ এর ছেলে মো. ইদ্রিচ (২২) স্কুলে যাওয়ার পথে তাকে সবসময় উত্ত্যক্ত করত ও কু-প্রস্তাব দিত। বিষয়টি আমার বোন আমাদের জানালে আমরা প্রতিকার চেয়ে বিষয়টি ছেলে অভিভাবকদের জানাই। এতে করে সে আরো ক্ষিপ্ত হয়ে যায় এবং আমার বোনকে দেখে নেবে বলে হাঁকাবকা করে।
অবশেষে গত ২৫ এপ্রিল বুধবার সকালে আমার বোন বিদ্যালয়ে যাওয়ার জন্য বের হলে পথে পানিরস্যাবিলস্থ তেতুল গাছের তলায় ইদ্রিচ ও তার সহযোগি নুরুল ইসলামের ছেলে মো. আয়ুব মিয়া (৩০) আরো অজ্ঞাত ২/৩ জন তাকে জোর করে মাইক্রা হাইয়েচ গাড়িতে তুলে অপরহণ করে নিয়ে যায়। সে চিৎকার দিতে থাকলে বিষয়টি স্থানীয় মো. হারুণ, মো. রুহুল আমিন ও নুরুল আবছার দেখে। তারা আমাদের অবগত করলে আমরা বখাটে ইদ্রিচ এর পরিবারকে জানাই এবং তাদের সাথে নিয়ে অনেক খোঁজা-খুঁজি করি। অদ্যাবধি কোন সন্ধান পায়নি। বিষয়টি নিয়ে আইনীভাবে না যেতে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল মতলব অনুরোধ করেন। তিনি বলেন আমি মেয়ে উদ্ধার করে দিব। কিন্তু আজ ৭ দিন পেরিয়ে গেলেও আমরা বোন ফেরত পায়নি।
অপরদিকে আমার বাবা-মা বৃদ্ধ হওয়ায় আমি নিজে বাদী হয়ে সহায়তা কামনা করে চকরিয়া থানায় গত ২৯ শে এপ্রিল একটি লিখিত এজাহার দায়ের করি। পুলিশ কোন সহায়তা করেনি এবং একবারের জন্য আমার বাড়িতে পর্যন্ত আসেনি।
ঘটনার পর থেকে ইদ্রিচের মোবাইল বন্ধ থাকায় তার বক্তব্য নেয়া যায়নি।
ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল মতলব এর দুইটি ফোন নাম্বারে একাধিকবার কল করলে তা সংযোগ না পাওয়ায় তার বক্তব্য দেয়া সম্ভব হয়নি।
এই বিষয়ে মুঠোফোনে চকরিয়া থানা পুলিশের অফিসার ইনচার্জ বখতিয়ার উদ্দিন চৌধুরী সাথে কথা হলে তিনি বলেন, আমি থানার বাহিরে আছি। পরে জেনে আপনাকে জানাব। পরবর্তীতে ঊনাকে ফোন করলে তিনি কল রিসিভ করেননি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Application to the Ministry of Information for registration.