“মানবতার সেবায় নিবেদিত প্রাণ বাঁশখালীর শামিম উল্লাহ্ আদিল”

রক্তের ফেরিওয়ালা বাঁশখালীর উজ্জ্বল মেধাবী মুখ শামিম উল্লাহ্ আদিল
মোহাম্মদ বেলাল উদ্দিন,বাঁশখালী (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি:মানুষ মানুষের জন্য, জীবন জীবনের জন্য। সেই চিরন্তন সত্যকে উপলব্ধি করে মূমুর্ষ রোগীর রক্ত দিয়ে জীবন বাঁচান বাঁশখালীর কৃতি শিক্ষার্থী মোঃ শামিম উল্লাহ্ আদিল।সর্বশেষ গত ৪ই এপ্রিল চট্টগ্রাম মেডিকেল হাসপাতালে এক মূমুর্ষ রোগীকে রক্ত দিয়ে জীবন বাঁচান তিনি। তাছাড়া নিজের রক্তের গ্রুপের সাথে রোগীর রক্তের গ্রুপের মিল না থাকলে ;অন্যের কাছ থেকে রক্ত সংগ্রহ করেন এই মানবদরদী আদিল। বাঁশখালী উপজেলার পুঁইছড়ি ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ডের বছিড়া বাড়ির বাসিন্দা। তার বাবার নাম মুহাম্মদ ইসলাম সওদাগর।ছোটকাল থেকে শিক্ষার প্রতি গভীর অনুরাগ ছিল তার। এই মেধাবী মুখ অদম্য সাহস,প্রবল ইচ্ছা শক্তির প্রয়াস ঘটিয়ে বাঁশখালীর ঐতিহ্যবাহী দ্বীনি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান পুঁইছড়ি ইসলামিয়া কামিল (মাষ্টার্স) মাদরাসা থেকে ২০১১সালে অষ্টম শ্রেণীর জেডিসি পরীক্ষায় গোল্ডেন জিপিএ-৫ অর্জন করেন। পালাক্রমে দাখিল,আলিম পরীক্ষাতেও গোল্ডেন জিপিএ-৫ পেয়ে সারা বাঁশখালীতে আলোড়ন সৃষ্টি করেন। তিনি বর্তমানে চট্টগ্রাম কলেজের অনার্স ২য় বর্ষে অধ্যয়নরত। বিভিন্ন সামাজিক সংগঠনের সাথে  জড়িত এই উজ্জ্বল মেধাবী মুখ; যার কারণে বাঁশখালীর সর্বত্র তিনি সুপরিচিত। বর্তমানে তিনি সার্ক মানবাধিকার ফাউন্ডেশন ও বাঁশখালী স্টুডেন্টস ওয়েলফেয়ার এ্যাসোসিয়শনের সদস্য। মানবসেবার এক অন্যান্য উদাহরণ বাঁশখালীর এই মেধাবী ছাত্র শামিম উল্লাহ্ আদিল রক্ত সংগ্রহ করে রোগীদেরকে নিঃশ্বার্ত সেবা দান করেন। জ্ঞানকে সুপ্রসারিত করার জন্য এই তরুণ সেবক নিজ গ্রামে এলাকাবাসীকে সাথে নিয়ে প্রতিষ্ঠা করেছেন পুঁইছড়ি উম্মুল কোরআন হাফেজিয়া মাদরাসা।তিনি বর্তমানে মাদরাসা পরিচালনা কমিটির প্রতিষ্ঠাতা সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করছেন।তার এলাকায় সদ্য প্রতিষ্ঠিত পুঁইছড়ি জ্ঞান চর্চা পাঠাগার তার অবদানে এগিয়ে যাচ্ছে।কক্সটিভির সাথে আলাপকালে এই তরুণ সেবক বলেন,”আমি মানবতার সেবা করে দোয়া নিয়ে এগিয়ে যেতে চাই।বাঁশখালীর শিক্ষা ব্যবস্থাকে এগিয়ে নেব।”
তিনি আরো বলেন,”আমার নিজ এলাকা পূর্ব পুঁইছড়ির ৩টি ওয়ার্ড মিলিয়ে প্রাথমিক বিদ্যালয় আছে মাত্র দুইটি।কোন মাধ্যমিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান নেই।তাই আমি কর্তৃপক্ষের কাছে জোর দাবি জানাচ্ছি এই এলাকায় একটি মাধ্যমিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রতিষ্ঠা করার জন্য।”এদিকে তিনি জীবনের বাকি সময়টুকু যাতে মানবতার সেবায় নিয়োজিত থাকতে পারেন;তাই তিনি সবার দোয়া চেয়েছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Application to the Ministry of Information for registration.