আসিয়ানে যাওয়া হচ্ছেনা সু চি’র

চলতি সপ্তাহে সিঙ্গাপুরে অনুষ্ঠেয় আসিয়ান সম্মেলনে অংশ নেবেন না মিয়ানমারের স্টেট কাউন্সেলর অং সান সু চি। দেশটির সরকারের এক মুখপাত্র গত সোমবার তা জানান। ২০১৬ সালে সু চির দল ক্ষমতায় আসার পর এই প্রথমবারের মতো দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার দেশগুলোর জোটটির সম্মেলনে অংশ নিচ্ছেন না তিনি।

আজ বুধবার ৩২তম আসিয়ান সম্মেলন শুরু হওয়ার কথা। শেষ হবে আগামী শনিবার। এই সম্মেলনের শেষ দিনে, অর্থাৎ শনিবার সেখানে মিয়ানমারের প্রতিনিধিত্ব করবেন গত মাসে শপথ নেওয়া প্রেসিডেন্ট উইন মিন্ট। প্রেসিডেন্টের মুখপাত্র জো হাতাই এ কথা জানান। যদিও স্টেট কাউন্সেলর ও পররাষ্ট্রমন্ত্রীর দায়িত্বে থাকা সু চি কেন আসিয়ান সম্মেলনে অংশ নেবেন না, তা জানাননি প্রেসিডেন্টের এই মুখপাত্র।

মিয়ানমারে সংখ্যালঘু রোহিঙ্গাদের ওপর সরকারের নির্যাতন-নিপীড়নের জেরে গত আগস্ট থেকে বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছে সাত লাখ রোহিঙ্গা। রোহিঙ্গা ইস্যুটি ভালোভাবে সামাল না দেওয়ায় আন্তর্জাতিক বিশ্বে সু চির সমালোচনা বেড়েছে। এ কারণে রোহিঙ্গা ইস্যুটির মুখোমুখি হওয়া এড়াতে সু চি এ সম্মেলনে অংশ নেবেন না বলে মনে করা হচ্ছে।

গত মাসে অস্ট্রেলিয়ার সিডনিতে অনুষ্ঠিত বিশেষ আসিয়ান সম্মেলনে রোহিঙ্গা ইস্যুতে সু চির ওপর চাপ প্রয়োগ করা হয়েছিল। গত সপ্তাহে মিয়ানমারের ইউনিয়ন গভর্নমেন্ট অফিসের মন্ত্রী থাউং টুন বলেন, রোহিঙ্গা ইস্যু ছাড়াও সু চির সামাল দেওয়ার আরও অনেক কিছু আছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Application to the Ministry of Information for registration.