শুধু তাদেরই কেন সমাবেশে বাধা দেয়া হচ্ছে, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে বিএনপি

ঢাকা: দেশে বিরোধী রাজনৈতিক দল বিএনপি ঢাকায় জনসভা করতে গিয়ে একের পর এক বাধার মুখে পড়ে এবার স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের দ্বারস্থ হয়েছে।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সাথে দেখা করে এ বিষয়ে বক্তব্য তুলে ধরেছেন বিএনপির সিনিয়র নেতারা। খবর বিবিসির।

তাদের প্রশ্ন: শুধু ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ নয়, বিরোধী জাতীয় পার্টি, ওয়ার্কার্স পার্টি যেখানে সমাবেশ করছে, সেখানে তাদেরকে সমাবেশ আয়োজনে বাধা দেয়া হচ্ছে কেন?

আগামী ২৯ মার্চ বৃহস্পতিবার সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সমাবেশ করতে চায় বিএনপি।

দলের নেত্রী খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে আগেই এ কর্মসূচির ঘোষণা দিয়েছিল দলটি।

কিন্তু তাদের আশংকা সমাবেশ কর্মসূচি আয়োজনে প্রশাসন শেষ পর্যন্ত অনুমতি দেবে কিনা সে নিয়ে।

কারণ এর আগে কয়েক দফা সমাবেশের অনুমতি চেয়ে পায়নি দলটি।

সচিবালয়ে মঙ্গলবার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামালের সঙ্গে দেখা করেন বিএনপির একটি প্রতিনিধি দল।

তাদের মধ্যে ছিলেন দলটির জাতীয় কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান।

তিনি জানান, ঢাকা মহানগর পুলিশ কর্তৃপক্ষ বারবার তাদের সমাবেশে বাধা দিচ্ছে আর সে কারণে শেষমেশ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর কাছে যেতে বাধ্য হয়েছেন।

খান বলেন, ‘২৪ তারিখ জাতিয় পার্টি সমাবেশ করলো, আর আগে ওয়ার্কার্স পার্টি করলো।আওয়ামী লীগতো কয়েকদিন পরপরই করছে। সবাই করছে। শুধু আমাদেরই অনুমতি দেয়া হয়না। আমরা এর আগেও অনুমতি দেয় হয়নি’।

এর আগে খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে সোহরাওয়ার্দীতে সমাবেশের অনুমতি চেয়ে ফেব্রুয়ারির শেষদিকে এবং চলতি মাসে ঢাকা মহানগর পুলিশ কমিশনারকে দু-দফা চিঠি দিয়েছিল বিএনপি।

কিন্তু নিরাপত্তার কারণ দেখিয়ে ডিএমপি তাদের সমাবেশ কর্মসূচির আবেদন বাতিল করে দেয় বলে বিএনপি নেতারা জানান।

এর আগেও বিএনপি একাধিকবার সমাবেশের অনুমতি চেয়ে পায়নি।

সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সর্বশেষ তারা সভা করেছিল গত বছরের নভেম্বর মাসে।

বিএনপিকে প্রশ্ন তুলছে কেন তাদের বাধা দেয়া হচ্ছে?

দেশের বিভিন্ন এলাকা থেকে বিএনপির নেতা কর্মীদের ধরপাকড় করা হচ্ছে বলেও অভিযোগ তুলেছেন নজরুল ইসলাম খান।

সে বিষয়েও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সাথে বৈঠকে আলোচনা হয়ে বলে জানিয়েছেন তিনি।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেছেন, ‘তারা যে সভাটি করবেন তার নিরাপত্তা দেয়ার দায়িত্ব আমাদের পুলিশ কমিশনারের। পুলিশ কমিশনার যদি মনে করেন ২৯ তারিখ কোন সমস্যা নেই তাহলে সেইভাবে ব্যবস্থা নেবেন। আমি সংশ্লিষ্ট সবার সাথে আলাপ করে জানতে চাইবো অসুবিধাটা কোথায় কিংবা কোন ধরনের অসুবিধা আছে কিনা।’

বিএনপি নেতারা বলছেন এ বিষয়ে আজ কালের মধ্যেই সিদ্ধান্ত আসবে বলে তারা আশা করেন।

কেননা একদিন বাদেই তাদের সমাবেশ করার কথা। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বিষয়টি ডিএমপির সিদ্ধান্ত বলে মনে করছেন।

তবে বিএনপি নেতারা বলছেন পুলিশ কর্তৃপক্ষ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ের অধীনে হওয়ায় এক্ষেত্রে মন্ত্রীর ভূমিকা গুরুত্বপূর্ণ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Application to the Ministry of Information for registration.