চকরিয়ার সাবেক স্বাস্থ্য পরিদর্শক কুপিয়ে বসতভীটা জবর দখলের চেষ্টা

চকরিয়া অফিস
চকরিয়া বসতভীটার জমি জবর দখলে নিতে উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা বিভাগের সাবেক পরিদর্শক ও উপজেলার বিএমচর ইউনিয়নের বাসিন্দা আবুতাহের প্রকাশ ডা: তাহেরকে পরিকল্পিতভাবে সন্ত্রাসীরা হত্যা চেষ্টা চালিয়েছে । হত্যায় ব্যর্থ হয়ে সন্ত্রাসীরা তাঁর বামহাত প্রায় দু‘টুকরো করে দেয়। এ ঘটনায় আবু তাহেরের পুত্র তকি আছেম আদেল বাদী হয়ে ৫ জনের নাম উল্লেখপূর্বক ৭জনের বিরুদ্ধে থানায় মামলা রুজু করে। গত ২২ মার্চ চকরিয়া উপজেলার বিএমচর ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ডের বেতুয়াবাজার নয়াপাড়ায় এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে ফের গতকাল ২৭ মার্চ সকাল ৯টার দিকে বিভিন্ন এলাকা থেকে সন্ত্রাসী ভাড়ায় এনে বসতভীটার সীমানার ঘেরবেড়া ভাংচুর ও লুটপাট করেছে। পরে থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) বখতিয়ার উদ্দিন চৌধুরীর নেতৃত্বে বিপুল সংখ্যক পুলিশ ফোর্স নিয়ে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনেন।
মামলার আর্জি থেকে জানা যায়, উপজেলার বিএমচর মৌজায় সাবেক পরিবার পরিকল্পনা পরিদর্শক আবুতাহের একই এলাকার মৃত আজম উল­াহর পুত্র আবুকাসেমের নিকট থেকে ২০শতক জমি খাস সহ ক্রয় করেন। ক্রয়কৃত ওই জায়গায় রকমারি গাছপালা রোপন করেন আবুতাহের। এলাকাবাসীর মতে জানান, জমি বিক্রয় করার সময় আবুল কাসেম আর্থিকভাবে দুর্বল ছিলেন। বর্তমানে স্বচ্ছলতা পেয়েছে। এ কারণে আবার আবু তাহেরের নিকট বিক্রিত ও্সব জমি ফেরত চায়। কিন্তু আবুতাহের তাতে রাজি নন, তার মতে তিনি ক্রয়কৃত জমি তিনি বিক্রি করার জন্য নেননি। কিন্তু নাছাড় বান্দা আবুল কাসেম ক্ষিপ্ত হয়ে উঠে, নানা ষড়যন্ত্রে মেতে উঠে আবুতাহেরের বিরুদ্ধে। হাসপাতালে চিকিৎসার রত আবুতাহের জানান, জমি ফেরত না দেওয়ায় আবুল কাসেম তার বিরুদ্ধে একাধিক মিথ্যা মামলা করে। এ ছাড়া ক্রয়কৃত জমিতে কাজ করতে চাইলে বাঁধা প্রদান করে। সর্বশেষ গত ২২ মার্চ সকাল ৮টার দিকে আবুতারে তার লোকজন নিয়ে ক্রয়কৃত ওই জায়গায় দালান ঘর নির্মাণের কাজ করার সময় মৃত আজম উল্লাহর পুত্র আবুল কাসেম, আবুছৈয়দ ও রিয়াদের নেতৃত্বে ৭/৮জনের স্বশস্ত্র লোক পরিকল্পিতভাবে আবতারেরের উপর হামলা করে। ধারালো কিরিচের কুপে মারাত্বক জখম করা হয় আবুতাহেরকে। এরপরও সন্ত্রাসীরা তাকে উপুযূপরি আঘাত করতে থাকে। এসময় আবুতাহেরকে তারই কাজের লোক আবদুর রহিম উদ্ধার করতে এগিয়ে আসলে সন্ত্রাসীরা তাকেও হামলা করে। এছাড়া পিতাকে উদ্ধার করতে তকি আছেম আদেল এগিয়ে আসলে তাকেও নির্দয় মারধর করে সন্ত্রাসীরা। পরে এলাকার লোকজন এগিয়ে এসে সন্ত্রাসীদের কবল থেকে আক্রমনের শিকার আবতাহের, আবদুর রহিম ও তকি আছেম আদেলকে লোকজনকে উদ্ধার করে চকরিয়া সরকারি হাসপাতালে ভর্তি করে। এ সময় কর্তরত চিকিৎসকরা আবুতাহেরের অবস্থা আশংকা দেখে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেন। এ ঘটনায় আবুতাহেরের পুত্র তকি আছেম আদেল বাদী হয়ে ৫ জনের নাম উল্লেখপূর্বক ৭জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন।
সর্বশেষ গতকাল ২৭ মার্চ সকালে অভিযুক্ত আবুল কাসেম, তার পুত্র মো: রিয়াদ ও শওকত ওসমান, ভাই ছৈয়দ আলম, ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসী মনজুর মোর্শেদ, পূর্ববড়ভেওলা আনিছপাড়া গ্রামের আব্বাস আহমদের পুত্র রুবেল, বিএমচর পাহাড়িয়াপাড়া গ্রামের মৃত মফজল আহমদের পুত্র শাহ আলম, তার পুত্র মোহাম্মদ ইব্রাহিম, ভেওলা কালাগাজী সিকদার পাড়া গ্রামের ফেরদৌস আহমদের পুত্র আরমান, মোস্তাক আহমদ, তার পুত্র মনু ড্রাইভার প্রকাশ সিএনজি মনুসহ ২০/২৫জনের সশস্ত্র সন্ত্রাসীরা দা ছুরি নিয়ে অতর্কিতভাবে বসতভীটার ভেতরে প্রবেশ করে কুপিয়ে সীমানার ঘেরাবেড়া-টিন ভেঙ্গে তছনছ করে লুটপাট চালায়। খবর পেয়ে থানার অফিসার ইনচার্জসহ পুলিশদল ঘটনাস্থলে পৌছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Application to the Ministry of Information for registration.