চকরিয়া লামা-আলীকদম সড়কে শ্রমিক নির্যাতন বন্ধে মালিক-শ্রমিকের আল্টিমেটাম

 এম নুরুদ্দোজা,চকরিয়া:

চকরিয়া লামা-আলীকদম সড়কে কর্তৃক আরাকান সড়ক পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়ন অর্ন্তভূক্ত এক শ্রমিককে বেধম মারধর ও অমানমিক নির্যাতন নিয়ে মালিক-শ্রমিকদের মাঝে ক্ষোভ ও উত্তেজনা বিরাজ করছে। শ্রমিক নির্যাতনের সাথে সংশ্লিষ্টদের শাস্তির দাবী জানিয়ে গতকাল (১৯ মার্চ) বেলা ২টায় পৌর বাসটার্মিনালস্থ শ্রমিক কার্যালয়ে সাংবাদিক সম্মেলন করেন মালিক-শ্রমিক নেতৃবৃন্দ।
মালিক-শ্রমিক নেতৃবৃন্দরা সংবাদ সম্মেলনে বলেন; বিগত ১৯৮১সন থেকে গাড়ীর মালিক ও শ্রমিকরা চকরিয়া লামা-আলীকদম সড়কে যাত্রী সেবা দিয়ে আসছে। সম্প্রতি আলীকদমে সেনা বাহিনী কর্তৃক প্রতিষ্টিত স্কুলের ৬/৭ বয়সী এক ছাত্রী লামা থেকে বাস গাড়ী (নং চট্টগ্রাম জ-১৭৯২)তে উঠার তুচ্ছ বিষয়ে গত ১৫ মার্চ সকাল ১০টায় গাড়ীর মালিক ও শ্রমিক ইউনিয়ন নেতৃবৃন্দকে ফোন করে আলীকদম সেনা ক্যাম্পে ডেকে নিয়ে যায়। এক পর্যায়ে কোন কারণ ছাড়াই শ্রমিকদের কাছ থেকে ৫০ হাজার টাকা চাঁদা দাবী করে সেনা ক্যাম্পে দায়িত্বরতরা। দাবীকৃত চাঁদা না দেওয়ায় মালিক-শ্রমিক নেতৃবৃন্দের সামনে আরকান সড়কভূক্ত শ্রমিক কার্ড নং ৪৪০০ এর গাড়ীর সুপারভাইজার আবুল কাসেম (৫২)কে হাত-পা ও মুখ বেধে প্রকাশ্যে বেধম মারধর করে। পরে মালিক-শ্রমিকদের জিম্মি করে জোর পূর্বক খালি কাগুজে স্বাক্ষর নিয়ে আবুল কাসেমকে মুমুর্ষ অবস্থায় হস্তান্তর করে। বর্তমানে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে। সেনা ক্যাম্প থেকে আহত শ্রমিককে উদ্ধার করে প্রথমে আলী কদম উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে আশংখাজনক অবস্থায় কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালে রেফার করেন। এছাড়াও সেনা বাহিনী লামা-আলীকদম রোডের ইয়াংছা ও কানা মাঝির ক্যাম্পে অহেতুক গাড়ী দাঁড় করিয়ে হয়রাণী ও নির্যাতন করে চলছে। এমনকি সেনা বাহিনীর যাবতীয় পরিবহন কাজ গাড়ী শ্রমিক দিয়ে বিনা বেতনে আদায়ও করছে।
সংবাদ সম্মেলনে নেতৃবৃন্দরা জানিয়েছেন, আহত শ্রমিকের চিকিৎসা প্রদান, জাতীর জনক বঙ্গবন্ধুর জন্মদিন ও মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর চট্টগ্রামের পটিয়ার জনসভায় আগমন উপলক্ষে মালিক-শ্রমিকরা কোন কর্মসূচী ঘোষণা করেননি। এসমস্ত বিষয়ে বর্তমানে বাস-যানবহন মালিক ও শ্রমিকদের মধ্যে চরম ক্ষোভ ও উত্তেজনা বিরাজ করছে। তারা যেকোন মুহুর্তে শ্রমিকরা গাড়ী চালানো থেকে বিরত থাকতে পারে মর্মে আশংখা প্রকাশ করেছেন। তাই দেশের চলমান অগ্রগতি এবং পরিবহন সেক্তরে বিশৃংখলা সৃষ্টি যাতে না হয় তার জন্য উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন মালিক ও শ্রমিক নেতৃবৃন্দরা। সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন আরাকান সড়ক পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়ন (রেজি:নং বি ৭২৬) এর কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি জহিরুল ইসলাম, যুগ্ম সম্পাদক কামাল আজাদ, সহসভাপতি শাহজাহান ভূট্টো, সহসভাপতি আবুল কালাম, চকরিয়া-লামা-আলীকদম রোড কমিটির সভাপতি রফিক আহমদ, সম্পাদক রফিক উদ্দিনসহ মালিক ও শ্রমিক নেতৃবৃন্দরা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Application to the Ministry of Information for registration.