ঝুঁকিপূর্ণ ভবনে চলছে বিচার কার্যক্রম কুতুবদিয়া আদালতে জনবল সংকটে উৎকন্ঠায় আইনজীবিরা


লিটন কুতুবী,
————–
কুতুবদিয়া আদালতে জনবল সংকটে উৎকন্ঠা হয়ে আইনজীবিরা গত ৭ মার্চ কক্সবাজার জেলা ও দায়রা জজ বরাবরে লিখিত অভিযোগ দিয়েছে। অভিযোগে আইনজীবিরা উল্লেখ করে যে,আদালতে জনবল সংকটে চরম দূর্ভোগ পোহাচ্ছে বিচারপ্রার্থীরাও। তার পাশাপাশি ঝুঁকিপূর্ণ ভবনে চলছে বিচার কার্যক্রম। কুতুবদিয়া আদালতের আইনজীবি সমিতির সভাপতি এডভোকেট কামাল উদ্দিন আহমদ জানান, দীর্ঘদিন ধরে কুতুবদিয়া আদালতের বিভিন্ন পদে জনবল শুন্য থাকায় বিচারপ্রার্থীরা চরম দূর্ভোগ পোহাচ্ছে। কুতুবদিয়া আদালতে ১৯টি পদের মধ্যে ৬টি পদে জনবল থাকল আছে। বিগত কয়েক মাস ধরে ১৩টি পদে জনবল শুন্য রয়েছে। শুন্যপদ গুলোর মধ্যে বেঞ্চ সহকারি একজন, জারিকারক একজন, অফিস সহায়ক একজন, কোর্ট পরিদর্শক একজন, সহকারি কোর্ট পরিদর্শক (সিএসআই) একজন, জেনারেল রেজিষ্ট্রার অফিসার (জিআরও) একজন, হাবিলদার একজন, কনস্টবল ছয়জনসহ মোট ১৩টি পদে জনবল শুন্য রয়েছে। গুরুত্বপূর্ণ পদগুলোতে জনবল শুন্য থাকায় বিচারপ্রার্থী ও আইনজীবিরা মারাতœক হয়রানীর সম্মুখীন হচ্ছেন। কুতুবদিয়া আদালতের আইনজীবি মুহাম্মদ আইয়ুব হোছাইন জানান, কুতুবদিয়া আদালতে সাতজন আইনজীবি ও ১৫জন আইনজীবি সহকারি রয়েছে। আদালতে প্রায় ২৫০টি মামলা চলমান। বর্তমানে আদালতে বিভিন্ন পদে জনবল সংকট থাকায় মামলার বিচারপ্রার্থীরা সেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। আদালতের বিভিন্ন কক্ষে এমনভাবে ফাটঁল ধরেছে যে কোন সময়ে দূর্ঘটনা ঘটে প্রাণহানি আশংকা করছে আইনজীবি সহকারীর সভাপতি আবদুর রহমান। বিগত ছয় মাস পূর্বে কুতুবদিয়া আদালতের ব্যারাকে ছাঁদ খসে পড়ে দুই পুলিশ আহত হয়েছে। এ ঘটনার পর গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের একটি টিম কুতুবদিয়া আদালত ভবন পরিদর্শন করে ভবনটি পরিত্যক্ত ঘোষনা করেন। কুতুবদিয়া আইনজীবি সমিতির সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট ফিরোজ আহমদ জানান, প্রতিকারের আশায় মামলার বাদি ও বিবাদীরা কুতুবদিয়া আদালতে নথির নকল কপি চাইলে নকলের কপি দুই থেকে তিন মাসেও পাওয়া যায় না। হয়রানির শেষ নেই। বাংলাদেশ মূল ভূ-খন্ড থেকে বিচ্ছিন্ন কুতুবদিয়া দ্বীপের মানুষ নাগরিক সুবিধা থেকে বঞ্চিত। যোগাযোগ সুবিধা বঞ্চিত নাগরিকদের অফিস আদালতে নাগরিক সুবিধায়ও বঞ্চিত করছে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ। আদালতের শুন্য পদে জনবল সংকট থাকায় চরম দূর্ভোগ পোহাচ্ছে আদালতের বিচারপ্রার্থীরা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Application to the Ministry of Information for registration.