চকরিয়ার ভেওলায় অসহায় পরিবারে হামলা, ভাংচুর ও লুটপাট, আহত ৬, মানববন্ধন

চকরিয়া প্রতিনিধি:
চকরিয়ায় আসন্ন ইউপি নির্বাচনের তুচ্ছ ঘটনা ও পূর্বশত্রুতার জেরধরে ব্যবসায়ী নুর উদ্দীন (মনু) ও তার পরিবারের সদস্যদের উপর হামলা, ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ও বসতঘরে ভাংচুর করে লুটপাটের ঘটনা ঘটেছে।লুট করে নিয়েগেছে নগদ টাকা, স্বর্ণালংকার ও মালামাল। উপজেলার পূর্ব বড় ভেওলা ইউনিয়নের ৩ নং ওয়ার্ডের সিকদার পাড়া গ্রামে ১ম দফায় ৩জুলাই সন্ধ্যা ৬ঘটিকায় সিকদারপাড়ায় চলাচল সড়কে ও ২য় দফায় ৪জুলাই দুপুর ১২টায় বাদীর বসতঘরে হামলার ঘটনা ঘটেছে।
এঘটনায় মৃত ওবাইদুল হাকিমের পুত্র মােঃ নুর উদ্দিন (৪২) বাদী হয়ে ৪জুলাই’২১ইং থানায় লিখিত এজাহার দায়ের করা হয়েছে। এতে অভিযুক্ত করা হয়েছে; পূর্ব বড় ভেওলা ইউনিয়ন পরিষদের ৩নং ওয়ার্ডের এম.ইউ.পি ও মাশুক আহমদের পুত্র কফিল উদ্দিন (৩৫), মােঃ রিয়াদ (২৭), ৩। মােঃ কায়েস (৩০) ও জয়নাল উদ্দিন (৩৮)সহ অজ্ঞাতনামা আরো ১৫/২০ জন ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসী।
হামলায় আহত হয়েছেন; বাদী মােঃ নুর উদ্দিন, তার ছেলে মােছাদ্দেক (১৮), ছেলে মুর্শেদ (১২) এবং বেড়াতে আসা বােন
হাসিনা আক্তার (৪০), বােন- নাসিমা আক্তার (৩৫), ভাগিনা মােঃ রব্বাহান
(২০), মােঃ রব্বাহান (২০)কে সর্বশরীরে এলােপাতাড়িভাবে কিল, লাথি, ঘুষি ও কুপিয়ে জখম করে এবং পরিধেয় কাপড়-চোপড় ও চুলের মুটি ধরে টানা-হেঁচড়া করতঃ বিবস্ত্র ও শ্লীলতাহানি করে। হামলাকালে বসতঘরের টিনের ছাউনী, বেড়া ও কোচিং সেন্টার ঘরে ভাংচুর করে ৪০ হাজার টাকার ক্ষতিসাধন করে। বসত ঘরে ঢুকে আলমিরার ড্রয়ারে থাকা ৮আনা ওজনের ১টি স্বর্ণের চেইন, ৩আনা ওজনের ১টি স্বর্ণের আংটি, ৫আনা ওজনের ১জোড়া কানফুল, সর্বমােট ওজন ১ভরি স্বর্ণ, যার মূল্য ৬০হাজার টাকা নিয়ে ফেলে। জাতীয় সেবা কেন্দ্রের ৯৯৯ তে ফোন করলে, মাতামুহুরী তদন্ত কেন্দ্রের পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন। আহতদের উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন।

বাদী অভিযোগে জানান, ১নং অভিযুক্ত কফিল উদ্দিন স্থানীয় জনপ্রতিনিধি (মেম্বার) হওয়ায় তার বাহিনীর বিরুদ্ধে কেউ প্রতিবাদ করার সাহস পায় না। এলাকায় সন্ত্রাসী কায়দায় জোর- জুলুমবাজ, দাঙ্গা-হাঙ্গামা করে এলাকার নিরীহ লোকজনকে হয়রাণী ও নির্যাতন চালিয়ে আসছে। আগামী ইউপি নির্বাচনে তাকে ভােট দিবেন না মর্মে সন্ধেহ পােষণ ভুক্তভোগি বাদী পক্ষককে অশ্লীল গালি-
গালাজসহ প্রকাশ্যে হাঁকাবকা ও হুমকি-ধমকি প্রদর্শন করে আসছে । সর্বশেষ অভিযুক্তরা স্ব-শস্ত্রে সজ্জিত হয়ে দু’দফায় এ হামলা চালিয়েছে।
ভুক্তভোগী পরিবারের মোশাররফ হোসেন জানান, দু’দফায় হামলার ঘটনায় স্থানীয়রা অভিযুক্তদের আইনের আওতায় আনতে মানববন্ধনও করেছেন। ঘটনার পর অভিযুক্ত মেম্বার কফিল উদ্দিন তাদের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে তালা লাগিয়ে দিয়েছেন।ফলে বর্তমান ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে।
অপরদিকে অভিযোগ অস্বীকার করেন, ৩নং ওয়ার্ডের এমইউপি কফিল উদ্দিন। অন্যায়ের প্রতিবাদ করতে গিয়ে এটি তার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র বলে দাবী করেন।
চকরিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ ওসি শাকের মোঃ যুবায়ের বলেন, ঘটনার বিষয়ে একটি লিখিত অভিযোগ পেয়েছেন। তা তদন্ত করে দেখার জন্য একজন উপপরিদর্ককে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Application to the Ministry of Information for registration.