জাল দলিলে খতিয়ান সৃজন, চকরিয়ায় প্রতারক চক্রের বিরুদ্ধে মামলা শীর্ষক সংবাদের প্রতিবাদ

গত ৩মার্চ দৈনিক আজাদী, ৪ ও ৫মার্চ দৈনিক কক্সবাজার, দৈনিক ইনানী, হিমছড়ি ও আমাদের কক্সবাজার ও দৈনিক চট্টগ্রাম মঞ্চ এবং ৬মার্চ’২১ইং তারিখ দৈনিক আমার সংবাদ সহ বিভিন অনলাইনে “জাল দলিলে খতিয়ান সৃজন, চকরিয়ায় প্রতারক চক্রের বিরুদ্ধে মামলা” শীর্ষক শিরোনামে প্রকাশিত সংবাদ সমূহ আমার দৃষ্টি গোচর হয়েছে। সংবাদটি মিথ্যা, ভিত্তিহীন, ষড়যন্ত্রমূলক ও পূর্ব শত্রুতার জের ধরিয়া আমাদের বৈধ উপায়ে পৈত্রিক জমি জবর দখল করার কু-মতলবে মানহানিকর সংবাদ প্রকাশ করেছে। সংবাদে বর্ণিত বিষয় সম্পর্কে আমরা কেউ জড়িত নয়। সংবাদটি সম্পূর্ণভাবে নিজের দায় অন্যের ঘাঁড়ে চাপিয়ে দেয়ার অপপ্রয়াস মাত্র। প্রকৃতপক্ষে চকরিয়ার বাটাখালী মৌজার আর.এস ১১নং খতিয়ানের আর.এস ৬৩৮নং দাগের ১৩ শতক জমির একক মালিক ছিল অলি বিবি। অলি বিবি মরণে তৎ স্বত্ব তাহার পুত্র আব্দুল ছোবহান প্রাপ্ত হয়। উক্ত আব্দুল ছোবহান এর নামে এম.আর.আর ১৩নং খতিয়ান চুড়ান্ত হয়। তৎ মরণে তৎ স্বত্ব তাহার ২ পুত্র কামাল উদ্দিন ও নাছির উদ্দিন প্রাপ্ত হয়ে অদ্যাবধি শান্তিপূর্ণভাবে ভোগ দখলে আছি। বি.এস জরিপ চলাকালীন সুচতুর ও শিক্ষিত এবং ক্ষমতাধর মকছুদ আহমদ চৌধুরী উক্ত জমি ষড়যন্ত্র ও দূর্লোভে তাহার নামে বি.এস ৪৮৮নং দাগের জমি নিয়ে বি.এস ১৩৭নং খতিয়ান সৃজন করেন। তৎ কারণে আর.এস মালিকের নাতি কামাল উদ্দিন মকছুদ আহমদের ওয়ারিশ মোমিনুল ইসলাম চৌং হইতে বিগত ০৬/০২/২০১১ইং তারিখে নোটারী পাবলিকের কার্যালয় হইতে বিশেষ আমমোক্তারনামা নং-২ গ্রহণ করি। উক্ত বিশেষ আমমোক্তারনামা দলিলমূলে আমার কার্যকারক মোক্তার আহমদ পিতা: মৃত আব্দুল মতলব সাং- বাটাখালীকে নামজারী খতিয়ান সৃজন করিতে দিলে সে আমাকে তিন মাস পর বাটাখালী মৌজার বি.এস ৫৯২নং খতিয়ান এনে দেয়। সি.আর- ৩০৪/২১নং মামলার ৪নং বিবাদীর পরামর্শে বিগত ২০/০২/২০১৭ইং তারিখের রেজিঃযুক্ত ৯১৫নং অপ্রত্যাহারযোগ্য পাওয়ার অব এ্যাটর্নী দলিল গ্রহণ করি। যেহেতু আমি কামাল হোসেন অশিক্ষিত ও বকলম নিরক্ষর লোক। শঠামী ও বিশ্বাসঘাতক মোক্তার আহমদ নিজেকে রক্ষার জন্য ও শঠামীক্রমে আমার পূর্ববর্তীর নামীয় জমি জবর দখল করার কুমানসে ভিত্তিহীন, মিথ্যা, বানোয়াট সি.আর- ৩০৪/২১নং মামলা দায়ের করে। ভুক্তভোগী আমি কামাল হোসেন নালিশী বি.এস ১৩৭নং খতিয়ানের বি.এস ৪৮৮নং দাগের তৎ তুলনামূলক আর.এস ৬৩৮নং দাগের আর.এস ১১নং খতিয়ানের নিরংকুশ স্বত্বের হকদার। তাই অধীন বাদী হয়ে বিজ্ঞ যুগ্ম জেলা জজ ২য় আদালত, কক্সবাজার-এ “বিভাগ ও উচ্চারণের মোকদ্দমা” অপর- ৩২০/২০ইং নং মামলা দায়ের করি। অপর- ৩২০/২০২০ইং নং মামলা দায়েরের সংবাদ শুনে শঠামী ও বিশ্বাসঘাতক কার্যকারক মোক্তার আহমদ গত ৩১/১২/২০২০ইং তারিখ কথিত ৬০০৪নং স্বত্বহীন কবলার অনুবলে আমার নিরংকুশ স্বত্বে উড়ে এসে জুড়ে বসার নানাবিধ ষড়যন্ত্রে লিপ্ত রয়েছে। যার জলজ্যান্ত প্রমাণ, সি.আর- ৩০৪/২১ইং মামলা। উক্ত মামলার বিবাদীগণ সম্পূর্ণভাবে ষড়যন্ত্রের শিকার। উক্ত মামলার ৪নং বিবাদী হাবিবুন নবী আমি কামাল হোসেনের শ্যালক হয়। তার সাথে শঠামী ও বিশ্বাসঘাতক মোক্তার আহমদের সাথে বিভিন্ন স্বার্থ নিয়ে বিরোধ চলমান দীর্ঘদিন ধরিয়া। তাই আমরা সকলকে মিথ্যা ও ভিত্তিহীন মামলায় জড়িয়ে শঠামী ও বিশ্বাসঘাতক মোক্তার আহমদ অত্র মামলা আনয়ন করেছে। তার এহেন কর্ম ও ভূমিকাকে আমরা নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি এবং প্রকাশিত সংবাদ নিয়ে বিজ্ঞ আদালত ও প্রশাসনসহ সংশ্লিষ্ট কাউকে বিভ্রান্ত না হওয়ার জন্য আহবান জানাচ্ছি।
প্রতিবাদকারী- কামাল উদ্দিন গং পিতা আব্দুল ছোবহান, সাং বাটাখালী মৌজা, চকরিয়া পৌরসভা, কক্সবাজার।##

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Application to the Ministry of Information for registration.