চকরিয়ায় জনহয়রাণীর প্রতিবাদ করায় ইউপি সদস্যের উপর হামলা চালিয়েছে চৌকিদার

চকরিয়া অফিস:
এলাকার নিরীহ লোকজনকে হয়রাণীর প্রতিবাদ করায় ক্ষিপ্ত হয়ে ইউপি সদস্যের উপরে হামলা চালিয়েছে পরিষদের চৌকিদার। উপজেলার কোনাখালী ইউনিয়নের পুরুত্যাখালী গ্রামে ঘটেছে এ ঘটনা। অভিযুক্ত চৌকিদার শফিউল আলম (৪০) চকরিয়া উপজেলার কোনাখালী ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ডের পুরুইত্যাখালী গ্রামের আলী চাঁনের পুত্র। অভিযুক্ত চৌকিদারের বিরুদ্ধে স্থানীয় ইউপি সদস্যসহ ভূক্তভোগি কয়েকটি পরিবার প্রশাসনের বিভিন্ন দপ্তরে লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন।
ভূক্তভোগি আহমদ হোছাইনের স্ত্রী নুর আয়েশা বেগম অভিযোগ করেন, চৗকিদার শফিউল আলম মহিলাদের বিভিন্নভাবে ফুসলাই চাকুরী, ভাতা, চাউলের কার্ড ইত্যাদি সুযোগ সুবিধার লোভ দেখিয়ে, দেহ ব্যবসায় প্ররোচনা, এলাকার বিভিন্ন মামলার পলাতক আসামীদের সহায়তা করা, দূর্ণীতিবাজ, চাঁদাবাজ, নারী কেলেংকারীসহ নানা অপকর্ম চালিয়ে যাচ্ছে। এনিয়ে চৌকিদারের বিরুদ্ধে জরুরী ভিত্তিতে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহনের দাবীতে জেলা প্রশাসক, কক্সবাজার বরাবরে লিখিত অভিযোগ করেন একই এলাকার আহমদ হোছাইনের স্ত্রী নুর আয়েশা বেগম। বিষয়টি চকরিয়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার, চকরিয়া থানার অফিসার ইনচার্জসহ প্রশাসনের বিভিন্ন দপ্তরে অনুলিপিও দেয়া হয়েছে। স্থানীয়ভাবে বিষয়টি চৌকিদারের কাছ থেকে জিজ্ঞাসা করায় ক্ষিপ্ত হয়ে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান দিদারুল হক সিকদারের নির্দেশে ৭নং ওয়ার্ড এম,ইউ,পি কলিম উল্লাহ’র উপর হামলা চালায়।

ইউপি সদস্য কলিম উল্লাহ অভিযোগ করে বলেন, নিরীহ সাধারণ মানুষকে বিভিন্ন প্রকার ভয়ভীতি প্রদর্শন করে মিথ্যায় মামলায় জড়াইবার কথা বলে টাকা আদায়, নারী কেলেংকারী, দেহ ব্যবসা, ভাতা ও কার্ড দেওয়ার লোভ দেখাইয়া টাকা আদায় সহ নানা ধরণের দুর্নীতি ও বেআইনী কার্যকলাপে জড়িত হয়ে পড়লে, ইহা ছাড়াও বিবাদী সরকারী পোষাক পড়ে সাজা প্রাপ্ত ও পলাতক দাগী আসামীদের প্রত্যক্ষ ও  পরোক্ষভাবে সহযোগিতা ও এলাকার খারাপ লোকদের সহিত সিন্ডিকেট হয়ে নিরীহ লোকজনের উপর অত্যাচার করলে, সন্ত্রাসী কার্যকলাপে লিপ্ত হয়ে পড়লে বিষয়টি এলাকার লোকজন তাকে অভিযোগ করেন। তিনি বিবাদী চৌকিদারকে উক্তরূপ অপরাধী কর্মকান্ড থেকে বিরত থাকার জন্য ওয়ার্ড মেম্বার হিসাবে বারণ করি এবং  ইউি সচিব ও দফাদারকে অপকর্মের বিষয়ে জানানো হয়। কিন্তু বিবাদী কোন কর্ণপাত না করে ক্ষেপে গিয়ে উল্টো আমার উপর (ইউপি সদস্য) হামলে পড়ে। ইতিপুর্বেও বিবাদীর বিরুদ্ধে এলাকার ভূক্তভোগী লোকজন জেলা প্রশাসন,
কক্সবাজারসহ প্রশাসনের বিভিন্ন দপ্তরে লিখিত অভিযোগ ও অনুলিপি দিয়েছেন। বর্তমানেও বিবাদী চৌকিদার মিথ্যা কুৎসা রটনাসহ ফের হামলা চালিয়ে প্রাণনাশের হুমকি ধমকি অব্যাহত রেখেছে। এনিয়ে তিনি বাদী হয়ে ৩মার্চ’২১ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন।##

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Application to the Ministry of Information for registration.