চকরিয়ায় স্কুল শিক্ষকের পুকুরে দুর্বৃত্তের বিষপ্রয়োগ শীর্ষক সংবাদের প্রতিবাদ ও ব্যাখ্যা

“চকরিয়ায় স্কুল শিক্ষকের পুকুরে দুর্বৃত্তের বিষপ্রয়োগ, অর্ধলক্ষ টাকার ক্ষয়ক্ষতি” শিরোনামে ১৭ ফেব্রুয়ারী দৈনিক হিমছড়িসহ বিভিন্ন পত্রিকায় এবং এরপূর্বে কক্সবাজার নিউজ ডটকমসহ বিভিন্ন শিরোনামে প্রকাশিত সংবাদটি আমাদের দৃষ্টি গোচর হয়েছে। সংবাদটি সম্পূর্ণ মিথ্যা ভিত্তিহীন কাল্পনিক ও উদ্দেশ্য প্রণোদিত। সংবাদের সাথে বাস্তবতার কোন মিলনাই। চকরিয়া উপজেলার বরইতলী ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ডের চাদের বাপের পাড়া (ফকিরপাড়া) এলাকায় এধরণের কোন ঘটনা ঘটেনি। এলাকার কিছু কুচক্রি মহলের ইন্ধনে সংবাদে উল্লেখিতরা আমাদের বৈধ ভোগ দখলীয় জমি জবর দখলে নিতে এসব মিথ্যাচার ও নাটক সাজিয়েছে। চকরিয়া উপজেলার, বরইতলী মৌজার বি,এস খতিয়ান নং-২০৪, সৃজিত খতিয়ান নং-২৮১৮,৩৮৫৫, বি.এস দাগ নং-৮৮৬৪,৮৮৩৮,৮৮৩৮এর মোট ৩০শতক জমি আমাদের নামীয় রয়েছে। সংবাদের উল্লেখিত আশরাফুল এহেছান গংয়ের পিতা মরহুম মাষ্টার আবদুল হকের কাছ থেকে ১৯/১২/১৯৯৬ সনে চকরিয়া সাবরেজিষ্ট্রি অফিসে ৪৮২৬নং রেজি: কবলা দলিল মূলে ৫শতক ও ০৬/০২/২০০৭সনে ৪১৯নং কবলা দলিল মূলে ৯শতক জমি ক্রয় করেছি এবং দুইটি দলিল মূলে সৃজিত বিএস খতিয়ান নং ২৮১৮ করা হয়। এরপর চকরিয়া সাবরেজিষ্ট্রি অফিসে ৫০২৭/১৭ নং রেজি: কবলা মূলে আরো ১৫.৬৫শতক জমি ক্রয় করে। এনিয়ে চকরিয়া উপজেলা ভূমি অফিস থেকে বিএস খতিয়ান নং ৩৮৫৫ সৃজন করি। ফলে সর্বমোট ৩০শতক জমি নিয়ে পরিত্যাক্ত পুকুর শ্রেণির জমি হিসেবে শান্তিপূর্ণ ভোগ দখলে রয়েছি। কিন্তু সংবাদে উল্লেখিত আশরাফুল এহেছান গং পরিত্যাক্ত পুকুরের জমিটি জোর জবর দখলে রাখতে বিগত ৫মাস পূর্বে পুকুরের পাড় থেকে বেশ কিছু গাছ কেটে লুট করেছে এবং পুকুর থেকে কিছু পরিত্যক্ত মাছও ধরে নিয়েগেছে। আমরা পুকুরের জমিটি ক্রয় করলেও সেখানে কোন ধরণের মাছের চাষ করিনা। এমনকি আশরাফুল এহেছান গংয়ের বাড়ির টয়লেটের খারাপ পানি ফেলার জন্য পাইপ লাইনও দিয়েছে পুকুরের সাথে। যা সরে জমিনে যেকেউ গেলেই এর প্রকৃত সত্যতা পাওয়া যাবে। আমি দীর্ঘদিন ধরে প্রবাসে থাকার সুবাদে পুকুরটির কোন রক্ষণাবেক্ষণ করা যায়নি। অথচ: গত ১০ ফেব্রুয়ারি রাত আনুমানিক ১১.৩০টার দিকে বিষ ঢেলে দিয়ে মাছ মেরে ফেলেছি মর্মে কাল্পনিক কথা বলে মিথ্যাচার করা হয়েছে। যার কোন ধরণের সত্যতা পাওয়া যাবেনা। সেখানে কোন ধরণের মাছ চাষ হয়না বা আমি সহ কেউ মাছ চাষও করেনি। সর্বশেষ গত ১৬/০২/২০২১ইং তারিখ দুপুর আনুমানিক ৩.০০ ঘটিকার দিকে সংঘবদ্ধভাবে আমাদের বসত বাড়ির উত্তর পার্শ্বের পুকুর পাড়ে উল্লেখিত আশরাফুল এহছান গং এসে নানাভাবে হুমিক ধমকি ও ভয়-ভীতি প্রদর্শন করে এবং খরিদীয় পুকুরের জমি জোর পূর্বক দখলে রাখার চেষ্টা চালায়। এনিয়ে মারাত্মক দাঙ্গা-হাঙ্গামাসহ খুন খারাবীরমত ঘটনা
সংগঠিত হওয়ার আশঙ্খায় তপশীলের পুকুরের জমিতে শান্তি শৃংখলা রক্ষার স্বার্থে আমাদের পক্ষ থেকে ১৭/০২/২০২১ইং থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছি। এতে বিবাদী করা হয়েছে; ১।আশরাফুল ইসলাম, পিতা: মৃত আবদুল হক ২। আসাদুজামান পিতা: ঐ, ৩। আমিরুল ইসলাম, পিতা: ঐ, সর্বসাং-চাদের বাপের পাড়া ০৫নং ওয়ার্ড, ইউনিয়ন: বরইতলী,উপজেলা: চকরিয়া,জেলা: কক্সবাজার সহ অজ্ঞাতনামা কয়েকজনকে। তাই আমরা প্রকাশিত উক্ত মিথ্যা সংবাদের তীব্র প্রতিবাদ জানাচ্ছি এবং প্রশাসনসহ সংশ্লিষ্ট কাউকে বিভ্রান্ত না হওয়ার জন্য আহবান জানাচ্ছি।
প্রতিবাদকারী: ১) নুরুল আজিম মানিক পিতা: রশিদ আহামদ, ২) রওশন আক্তার স্বামী: নুরুল আজিম মানিক, ৩) নুর মোহাম্মদ পিতা: মৃত নুরুল আলম, গ্রাম: চাদের বাপের পাড়া (ফকিরপাড়া), ০৫নং ওয়ার্ড, ইউনিয়ন: বরইতলী,উপজেলা: চকরিয়া ,জেলা: কক্সবাজার।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Application to the Ministry of Information for registration.