কক্সবাজারে পরকীয়ার টানে উধাও ৩ সন্তানের জননী

নিজস্ব প্রতিবেদক ঃ কক্সবাজারের সদর উপজেলায় পরকীয়ার জেরে পালিয়েছেন জুবাইরা বেগম (৩৩)। সে তিন সন্তানের জননী। শুক্রবার (১৫ জানুয়ারী ) মাগরিব নামাজের পর আনুমানিক সাড়ে ৬ ঘটিকায় স্বর্ণালংকার, কাপড়চোপড়, বিদেশী মূল্যবান জিনিসপত্র,কম্বল , নগদ টাকা সাথে নিয়ে পালিয়ে গেছেন জুবাইরা বেগম।

এদিকে শফিউল করিম (১৩) ৮ম শ্রেণী, রেজাউল করিম (১১) ৫ম শ্রেণী ও মোঃ জিয়াউল করিম (১০) হাফেজ পড়ুয়া ৩ ছেলেকে নিয়ে দিশেহারা হয়ে পড়েছে পরিবার। এ ঘটনায় স্বামী আব্দুল করিম বাদী হয়ে স্ত্রীকে আসামি করে কক্সবাজার সদর থানায় লিখিত অভিযোগ করেছেন।

জানা যায়, কক্সবাজার জেলার সদর উপজেলার ঝিলংজা ইউনিয়নের পূর্ব মোক্তারকুল খুরুলিয়ার দরগাহ পাড়াস্থ ৭ নং ওয়ার্ডের মোজাহের মিয়ার পুত্র ব্যাবসায়ী আব্দুল করিমের স্ত্রী জুবাইরা বেগমের (৩৩) সঙ্গে কোন এক অজ্ঞাত ব্যক্তির পরকিয়া সম্পর্ক তৈরি হয়। ঐ ব্যক্তির সাথে মোবাইলে প্রায় সময় কথা বলত। এক সময় তা স্বামীসহ স্বজনদের নজরে পড়ে। বিষয়টি নিয়ে পারিবারিকভাবে একাধিকবার জুবাইরা বেগমকে সর্তক করেও দেয়া হয়। জুবাইরা স্বামীর কথায় কর্ণপাত না করে উল্টো স্বামীর সাথে জগড়ায় লিপ্ত হত। শুক্রবার জুবাইরা ঘরে কেউ না থাকা অবস্থায় স্বামীর ব্যবসার নগদ ১ লাখ ৫০ হাজার টাকা ও নিজ পরিবার ও আত্মীয় স্বজনদের মোট সাড়ে ১১ ভরি স্বর্ণালঙ্কার, কাপড়চোপড়সহ দামী জিনিসপত্র নিয়ে পালিয়ে যান।

এ ব্যাপারে স্বামী আব্দুল করিম জানান, বিগত ১৪ বছর পূর্বে ইসলামী শরীয়া মোতাবেক পিএমখালী ইউনিয়নের পূর্ব মাছুয়াখালীর অছিউর রহমানের মেয়ে জুবাইরা বেগমকে সামাজিকভাবে বিবাহ করি। আমাদের দাম্পত্য জীবন সুখে শান্তিতে কাটছিল।
গত ১৫ জানুয়ারি/২০২১ তারিখ দুপুর ২ ঘটিকার সময় নিকটতম আত্মীয়ের বাড়িতে পরিবার সহ দাওয়াতে যাই। আমরা আনুমানিক ৬ ঘটিকার সময় নিজ বাড়িতে
চলে আসি। এর পর আমি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে চলে যায়। বাড়িতে কেউ না থাকার সুযোগে আমার স্ত্রী জুবাইরা বেগম পারিবারিক ও আত্মীয় স্বজনের সাড়ে ১১ ভরি স্বর্নালংকার, নগদ দেড় লাখ টাকাসহ বাড়ির মূল্যবান জিনিসপত্র নিয়ে পালিয়ে যায়। পরবর্তীতে আমি রাত নয়টায় বাড়ি ফিরে এসে আমার স্ত্রীকে না পেয়ে তার ব্যবহ্ত মোবাইলে কল করলে বন্ধ পাই। পরে শ্বশুরালয়সহ আত্মীয় স্বজনের বাসায় খোঁজে না পেয়ে থানায় অভিযোগ দাখিল করেছি। আমি এ ব্যাপারে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করছি।

স্থানীয় চেয়ারম্যান টিপু সোলতানের কাছে জানতে চাইলে তিনি ঘটনা সম্পর্কে অবগত নয় তবে বিষয়টি পলাতক স্ত্রীর স্বামী জানিয়েছেন বলে জানান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Application to the Ministry of Information for registration.