চকরিয়ায় পাওনা টাকা চাওয়ায় ক্ষিপ্ত হয়ে দু’দফায় সন্ত্রাসী হামলা, ব্যবসায়ীসহ আহত ৫

চকরিয়া প্রতিনিধিঃ

চকরিয়ায় পাওনা টাকা চাওয়ায় ক্ষিপ্ত হয়ে দু’দফায় সন্ত্রাসী হামলার শিকার হয়েছে এক মৎস্য ব্যবসায়ী ও তার পরিবার। হামলায় ওই পরিবারের কর্তা, মা, মেয়ে ও ছেলেসহ ৫ জনকে গুরুতর জখম করা হয়েছে। চকরিয়া সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ে প্রথম দফায় এবং পৌরসভার ১ নং ওয়ার্ডের লক্ষ্যারচর বাজারপাড়ায় ৫ জুলাই (রবিবার) সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে দ্বিতীয় দফায় হামলার এ ঘটনা ঘটেছে।

অভিযোগে জানাগেছে, চকরিয়া সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠের বাজারে মাছের ব্যবসায় করেন রসিদ আহমদ। খুচরা মাছ বিক্রেতাদের কাছ থেকে পাওনা মাছ বিক্রির ৮২ হাজার টাকা চাওয়ায় ক্ষিপ্ত হয়ে কথা কাটাকাটি হয়। এক পর্যায়ে পৌরসভার ১নং ওয়ার্ডের বাজার পাড়ার দুদু মিয়ার পুত্র মোঃ মারুফ, মোঃআরিফ, মোঃমিরাজের নেতৃত্বে পাওনাদার মৎস্য ব্যবসায়ী রশিদ আহমদের উপর স্কুল মাঠের অস্থায়ী বাজারে হামলা চালায়।

প্রত্যক্ষদর্শী আমির, রুহুল আমিন, মনজুর আলমসহ স্থানীয়রা জানায়- ব্যবসায়ী রশিদ আহমদ ঘটনাস্থলে পৌঁছা মাত্রই পূর্বপরিকল্পিতভাবে ধারালো অস্ত্র নিয়ে হামলা চালায়। রক্তাক্ত অবস্থায় মাটিতে পরে থাকলে আহত ব্যবসায়ী রশিদ আহমদকে উদ্ধার করে চকরিয়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন।

পরে ঘটনপর প্রায় ১ ঘন্টা পর সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে অভিযুক্তরা ব্যবসায়ীকে পূণরায় মারধর করতে তার বাড়িতে গিয়ে হামলা ভাংচুর ও লুটপাট চালায়। হামলায় আহত হয়েছেন, ব্যবসায়ী রশিদ আহমদেন স্ত্রী, পুত্র ও কন্যা। রশিদ আহমদকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার করা হয়েছে। ওই সময় বাড়িতে ঢুকে আনুমানিক ৪০হাজার টাকা মূল্যের প্রয়োজনীয় আসবাবপত্র ভাংচুর করে। হামলায় তার পরিবারের আরো ৪জন আহত করেছে হামলাকারী সন্ত্রাসীরা। এসময় বাড়ি থেকে লুট
করে নিয়ে গেছে ৩৩ হাজার টাকা মূল্যমান স্বর্ণের চেইন ও মালামাল। এছাড়াও আসবাবপত্র, দরজা,জানালা ভাংচুরে ব্যাপক ক্ষতি সাধন হয়েছে।

এই ঘটনায় রশিদ আহমদ বাদী হয়ে দুদু মিয়ার পুত্র মোঃমারুফ, মোঃআরিফ, মোঃমিরাজসহ অজ্ঞাতনামা আরো ৭/৮ জন দেখিয়ে থানায় এজাহার দায়ের করা হয়েছে।

চকরিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোঃ হাবিবুর রহমান বলেন, ভূক্তভোগি পরিবারের রশিদ আহমদ বাদী হয়ে দেয়া লিখিত অভিযোগটি পাওয়ার তদন্ত পূর্বক ব্যবস্থা নেয়ার জন্য এক উপপরিদর্শককে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। সত্যতা পাওয়া গেলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Application to the Ministry of Information for registration.