চকরিয়ায় জমি জবর দখলে নিতে মা-ভাইকে হামলা ও প্রাণনাশের হুমকি শীর্ষক প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ ও ব্যাখ্যা

গত ৫জুন’২০ইং কক্স টিভি. কম, ‘চকরিয়া ২৪.কম, বিজয় নিউজ.নেট ও একত্তর. নেট “চকরিয়ায় জমি জবর দখলে নিতে মা-ভাইকে হামলা ও প্রাণনাশের হুমকি” শীর্ষক শিরোনামে প্রকাশিত সংবাদটি আমাদের দৃষ্টি গোচর হয়েছে। সংবাদটি সম্পূর্ণ মিথ্যা ভিত্তিহীন কাল্পনিক ও উদ্দেশ্য প্রণোদিত। সংবাদের সাথে বাস্তবতার কোন মিলনাই। প্রকৃত ঘটনা হচ্ছে; চকরিয়া উপজেলার ফাঁসিয়াখালী ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ডের হাজিয়ান গ্রামে আমাদের মরহুম হাকিম মিয়ার নামে ১নং তফসীলঃ (ক) লোটনী মৌজা বিএস খতিয়ান নং ৪৬৭ বিএস দাগ নং ৮৮১ ও ৮৮৭ চিহ্নিত মতে ৮৮৭ এর .৪১ একর বিরোধীয় জমি।
(খ) হাজিয়ান মৌজা বিএস খতিয়ান নং ১৬৬, বিএস দাগ নং ২৯২, ৩০২, ৩৩৫, ৯২ ও ৯৩
নং ৩৫০ ও ৯০ দাগাদির আন্দর বিএস খতিয়ান নং ৭৬, বিএস দাগ নং ৯০ ও ৯১ দাগাদির আন্দরে চিহ্নিত মতে বিএস ১৭৬নং খতিয়ানের বিএস ৩৩৫নং দাগের আন্দরে
.২০ একর জমি ও বিএস খতিয়ান নং ৭৬, বিএস দাগ নং ৯০ এর আন্দরে .০৩৪৬ একর জমিসহ মোয়াজি .২৩৪৬ একর বিরোধীয় জমি।

২নং তফসীলঃ (ক) লোটনী মৌজা বিএস খতিয়ান নং ৪৬৭ বিএস দাগ নং ৮৮১ ও ৮৮৭ চিহ্নিত মতে বিএস ৮৮১ নং দাগের আন্দরে .০৯৫০ বিএস একর বিরোধীয় জমি।
(খ) হাজিয়ান মৌজা বিএস খতিয়ান নং ১৬৬, বিএস দাগ নং ২৯২, ৩০২, ৩৩৫, ৯২ ও ৯৩
নং ৩৫০ ও ৯০ দাগাদির আন্দর বিএস খতিয়ান নং ৭৬, বিএস দাগ নং ৯০ ও ৯১ দাগাদির আন্দরে .১৩৩৪ একর জমি ও বিএস ৭৬নং খতিয়ানের বিএস দাগ নং ৯০ এর আন্দরে .০৩৪৭ একর জমিসহ .১৬৮১ একর জমিসহ মোয়াজি .২৬৩১ একর বিরোধীয় জমি।

আমাদের পিতা হাকিম মিয়া মরনে তাহার ২স্ত্রী মৃত নুর জাহান বেগম (১), নুর জাহান বেগম (২), ৪ পুত্র সরওয়ার আলম,শাহাদাত হোসেন, সাকের আলী ও মিজানুর রহমমান, ৫কন্যা মৃত নুর নাহার বেগম, আছমতু নাহার, সুলতানা পারভিন, কমরু নাহার ও ফাতেমা জান্নাত গং ওয়ারিশি সূত্রে মালিক হন।

আমাদের পিতা ২০০৮সালের ১৮ ফেব্রুয়ারী হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে বোধশক্তি হারিয়ে দীর্ঘদিন চিকিৎসা শেষে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী পূর্ণ বিশ্রামের নির্দেশ দেন এবং শয্যাশায়ী ছিলেন। জনাব ডা: রেজাউল করিমের পর্যবেক্ষনে চট্টগ্র্ম ট্রিটমেন্ট সেন্টারে চিকিৎসা গ্রহণের পর তিনি কিছুটা সুস্থ হলেও বোধশক্তি পুরোপুরি ফিরে আসে নাই। এমতাবস্থাও আমাদের পিতা হাকিম মিয়া বিগত ২০১০ সালের ৭নভেম্বর বার্ধক্যজনিত কারনে ব্রেইন স্ট্রোক করেন এবং বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক ডাঃ মশিহুজ্জামান এর অধীনে চিকিৎসাধীন থাকেন। উক্ত সময়ে তাহার মস্তিস্কের কার্যক্রমে অচলাবস্থা সৃষ্টি হয়। তিনি (পিতা) লোকজন ঠিকমত চিনতে পারিতেন না। করোন এ অবস্থার মধ্যে আমাদের পিতা হাকিম মিয়া বিগত ২০১৫ সালের ৪ডিসেম্বর পূণরায় স্ট্রোট করেন। ৩য় বার স্ট্রোকের পর তাহাকে চট্টগ্রাম ন্যাশনাল হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়। উক্ত সময় তাহার শরিরের বাম অংশ অবশ হইয়া পড়ে এবং তিনি চলাফেরা করিতে পুরোপুরি অক্ষম হয়ে পড়েন। তাহার কোন হুশ জ্ঞান ছিল না। তিনি কথা বলিতে পারিতেন না। দীর্ঘদিন চিকিৎসার পর তাহাকে বাসায় নিয়া গিয়া চিকিৎসা সেবা দেয়া হয়। বোধশক্তিহীন অবস্থায় হাকিম মিয়া নিজ বাড়িতে চিকিৎসাধীন ছিলেন। দীর্ঘ রোগ ভোগের পর আমাদের পিতা হাকিম মিয়া বিগত ২৬/১/২০১৯ইং তারিখ মৃত্যু বরণ করেন।

আমাদের পিতা হাকিম মিয়া জীবদ্দশায় দুরারোগ্য ব্যাধী, বোধশক্তিহীন, কঠিন অচলাবস্থায় চকরিয়া সাব রেজিষ্ট্রি অফিসে বিগত ২৯/১২/২০১১ ইং ৮৪৮১নং হেবা দলিল বিষয়ক ঘোষনাপত্র এবং বিগত ১২/০৪/২০১৫ ইং ২৯২৩নং হেবা দলিল বিষয়ক ঘোষনাপত্র দেওয়ার কোন শরিরীক সক্ষমতা আমার পিতার ছিলনা। আমাদের জানামতে আমাদের পিতা হাকিম মিয়া এধরনের হেবা ঘোষনাপত্র নামক কোন দলিল সম্পাদন করেন নাই, মঞ্জুরী দেন নাই বা রেজিস্ট্রি প্রদান করেন নাই। কিন্তু পিতা হাকিম মিয়াকে হেবা ঘোষনাপত্র দাতা ও ২য় স্ত্রীর কনিষ্ট পত্র মিজানুর রহমান এবং ২য় স্ত্রী নুর জাহান বেগমকে হেবাঘোষনা গ্রহীতা সাজিয়ে মোট ৯১শতক জমি নিয়ে ২৯/১২/২০১১ ইং ৮৪৮১নং কথিত হেবা দলিল বিষয়ক ঘোষনাপত্র এবং বিগত ১২/০৪/২০১৫ ইং ২৯২৩নং কথিত হেবা দলিল বিষয়ক ঘোষনাপত্র সম্পাদন করেন। উক্ত দুইটি দলিল জালিয়তির মাধ্যমে সৃজিত, অকর্মন্য, ফেরবী, যোগসাজসী, কাগজী দলিল বৈ অন্য কিছু নহে। উক্ত কথিত দলিলদ্বয় কখনো কার্যকর হয় নাই বা ১নং বিবাদী উক্ত দলিল মূলে নালিশী জমিতে স্বত্ব বা দখল প্রাপ্ত হন নাই। আমরা অন্যান্য ওয়ারিশগন বসতগৃহ ও চাষাবাদ নিয়ে শান্তিপূর্ণ ভোগ দখলে আছি। আমরা উক্ত কথিত ফেরবী দলিলের বিরুদ্ধে বিজ্ঞ জেলা জজ ২য় আদালত, কক্সবাজারে আমাদের সৎ ভাই মিজানুর রহমান ও সৎ মা নুর নাহার বেগমকে বিবাদী করে অপর মামলা নং ২৩৬/২০১৯ দায়ের করি। বর্তমানে মামলাটি বিচারাধীন রয়েছে।

কিন্ত ঘটনাকে ভিন্নখাতে প্রবাহিত করতে উক্ত কথিত ফেরবী দলিল নিয়ে থানাসহ বিভিন্ন প্রশাসনিক দপ্তর ও স্থানীয়ভাবে আমাদের মানক্ষুন্নসহ জমি জবর দখলে নিতে এসব মিথ্যাচার চালিয়ে যাচ্ছে। যার আদৌ কোন ভিত্তিও নাই, কোনরূপ দখলও নাই। সংবাদে উল্লেখিত গত ৩০মে রাত ৮টা ও ৩১মে সকাল ১০টায় এবং সর্বশেষ ৫জুন রাত ৮টায় কোন ঘটনা ঘটেনি। তাই প্রকাশিত উক্ত মিথ্যা ও বানোয়াট সংবাদ নিয়ে বিজ্ঞ আদালত ও থানা প্রশাসনসহ সংশ্লিষ্ট কাউকে বিভ্রান্ত না হওয়ার জন্য আহবান জানাচ্ছি এবং প্রকাশিত সংবাদের তীব্র প্রতিবাদ জানাচ্ছি।

প্রতিবাদকারী- সরওয়ার আলম, শাহাদাত হোসেন ও সাকের আলী এবং আছমতু নাহার, সুলতানা পারভিন, কমরু নাহার ও ফাতেমা জান্নাত সর্বপিতা মরহুম হাকিম মিয়া ও মেয়ে মৃত নুর বেগমের ওয়ারিশগন, সর্বসাং হাজিয়ান, ১নং ওয়ার্ড, ফাঁসিয়াখালী ইউনিয়ন, চকরিয়া, কক্সবাজার।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Application to the Ministry of Information for registration.