কুতুবদিয়ার কৃতি সন্তান শফিউল আরিফ যশোরের জেলা প্রশাসক থেকে যুগ্মসচিব হলেন

এ.কে.এম রিদওয়ানুুুল করিমঃ

কক্সবাজারের কুতুবদিয়ার কৃতিসন্তান ও যশোরের জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ শফিউল আরিফ (৬৫৫০) সরকারের যুগ্ম সচিব হিসাবে পদোন্নতি লাভ করেছেন।

শুক্রবার ৫ জুন জনপ্রশাসন মন্ত্রনালয়ের উর্ধ্বতন নিয়োগ-১ অধিশাখার উপসচিব মোঃ তমিজুল ইসলাম খান স্বাক্ষরিত ৩০৪ নম্বর স্মারকে জারীকৃত এক প্রজ্ঞাপনে মোহাম্মদ শফিউল আরিফ সহ একইসাথে ১১৭ জন বিসিএস (প্রশাসন) ক্যাডারের কর্মকর্তাকে সরকারের যুগ্ন সচিব হিসাবে পদোন্নতি দেওয়া হয়েছে।

মোহাম্মদ শফিউল আরিফ বর্তমানে যশোর জেলার জেলা প্রশাসক হিসাবে ২০১৯ সালের ১১ জুন থেকে কর্মরত রয়েছেন। এর আগে তিনি লালমনিরহাট জেলার জেলা প্রশাসক হিসাবে কর্মরত ছিলেন।

কুতুবদিয়ার কৃতি সন্তান  শফিউল আরিফ উপজেলার মধ্যম কৈয়ারবিল ইউনিয়নের বাসিন্দা হলেও বর্তমানে

কক্সবাজার পৌরসভার ৭ নম্বর ওয়ার্ডের দক্ষিণ রুমালিয়ার ছরাস্থ এবিসি ঘোনা এলাকায় বসবাস করেন।মরহুম আলহাজ্ব আবু তাহের কুতুবী ও মর্জিয়া বেগম দম্পতির দ্বিতীয় পুত্র মোহাম্মদ শফিউল আরিফ প্রাচ্যের অক্সফোর্ড খ্যাত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে আইন বিষয়ে সম্মানসহ ১৯তম ব্যাচে ১৯৯৫ সালে কৃতিত্বের সাথে মাষ্টার্স করেছেন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে লেখাপড়া শেষ হতেই মোহাম্মদ শফিউল আরিফ দেশের অভিজাত ও মর্যাদাপূর্ণ ক্যাডার হিসাবে পরিচিত ১৯৯৯ সালে ১৮ তম বিসিএস পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়ে বিসিএস (প্রশাসন) এ যোগ দেন।

সরকরি চাকুরীর শুরুতেই চুয়াডাঙ্গা জেলা প্রশাসনে সহকারী কমিশনার হিসাবে দায়িত্বপালন করেন। এরপর চৌদ্দগ্রাম ও লাকসামে সহকারি কমিশনার (ভূমি) হিসাবে সফলতার সাথে কাজ করেছেন।

পটিয়া, মহালছড়ি, কাপ্তাই এর ইউএনও, খাগড়াছড়ি জেলা প্রশাসনের সিনিয়র সহকারি সচিব এবং ফেনী জেলা প্রশাসনের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক, ফেনী জেলার ডিডিএলজি, ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের আইন কর্মকর্তা, স্থানীয় সরকার মন্ত্রনালয়ের উপসচিব ও ২০১৭ সালের ৯ আগষ্ট থেকে ২০১৯ সালের ১০ জুন পর্যন্ত লালমনিরহাট জেলা প্রশাসক এবং ২০১৯ সালের ১১জুন থেকে যশোর জেলার জেলা প্রশাসক হিসাবে অদ্যাবধি দায়িত্বপালন করে আসছেন সফলভাবে।

তিনি জনপ্রশাসন বিষয়ে লন্ডনের বিখ্যাত ব্রুনেল বিশ্ববিদ্যালয় থেকে গ্লোবালাইজেশন এন্ড গভর্নেন্সের উপর স্নাতকোত্তর ডিগ্রীও অর্জন করেছেন কৃতিত্বের সাথে।

মোহাম্মদ শফিউল আরিফ দক্ষ প্রশাসক ও জনবান্ধব কর্মকর্তা হিসাবে সরকারি-বেসরকারি পুরস্কার পেয়েছেন অনেক। একজন সৎ, দক্ষ ও পেশাদার কর্মকর্তা হিসাবে কক্সবাজারের গৌরব মোহাম্মদ শফিউল আরিফের সুনাম রয়েছে প্রশাসনের সর্বত্র।

২০০৫ সালের ১০ নভেম্বর কক্সবাজারের শহরের বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ও অনেক সামাজিক, ধর্মীয় ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সফল প্রতিষ্ঠাতা আলহাজ্ব ওমর সুলতান ও হোসনে আরার জ্যেষ্ঠ কন্যা শাহীন আক্তারের সাথে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন মোহাম্মদ শফিউল আরিফ। তাদের একমাত্র পুত্র সন্তান সাদমান আরিফ সিয়াম যশোর জেলা স্কুলে সপ্তম শ্রেণীর ছাত্র।

কক্সবাজারবাসীর গর্বের ধন বর্তমানে যশোরের জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ শফিউল আরিফ যুগ্ন সচিব হিসাবে পদোন্নতি পাওয়ার পর এক প্রতিক্রিয়ায় মহান আল্লাহরাব্বুল আলামীনের কাছে শোকরিয়া এবং প্রধানমন্ত্রী, জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী, মন্ত্রী পরিষদ সচিব, প্রধানমন্ত্রীর মূখ্য সচিব, জনপ্রশাসন সচিব সহ সংশ্লিষ্ট সকলের নিকট আন্তরিক কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন।

মোহাম্মদ শফিউল আরিফ তাঁর কর্মজীবনে সার্বিক সাফল্যের জন্য সকলের দোয়া ও সহযোগিতা কামনা করেছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Application to the Ministry of Information for registration.