চকরিয়ায় মেয়ের নিরাপত্তার জন্য শ্বাশুরবাড়ির লোকজনের বিরুদ্ধে মায়ের জিডি


নিজস্ব প্রতিনিধি :
কক্সবাজারের চকরিয়ায় স্কুল পড়ুয়া মেয়ে তাসমিয়া সাঈদ সোহার নিরাপত্তার জন্য শাশুরবাড়ি পক্ষের লোকজনের বিরুদ্ধে নির্যাতনের প্রতিকার চেয়ে আইনগত আশ্রয় নিয়েছেন এক হতভাগিনী মা।পারিবারিক প্রতিহিংসার আক্রোশের জের ধরে শশুরবাড়ির বসতঘর হইতে তাড়িয়ে দেওয়ার জন্য প্রতিনিয়ত অশ্লীল ভাষায় গালিগালাজ ও হুমকি ধমকি প্রদর্শন করাসহ বিভিন্ন অপকৌশল অবলম্বনের অভিযোগ পাওয়া যায়। ঘটনাটি ঘটে চকরিয়া পৌরসভার ৪নং ওয়ার্ডস্থ এস.কে পাড়ায়। এরই আলোকে মা তসলিমা বুল বুল যিশান বাদী হয়ে শ্বাশুরবাড়ি পক্ষের ৬ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ দাখিল করে ১৭ মে (রবিবার)চকরিয়া থানায় ৬৮৩ নং স্মারকমূলে সাধারণ ডায়েরী লিপিবদ্ধ করেন।
অভিযুক্তরা হচ্ছেন, ১) সব্বির আহমদ পিতাঃ মৃত মাষ্টার ফয়েজ আহমদ ২) খোদেজা বেগম স্বামীঃ সব্বির আহমদ ৩) তারেকুল ইসলাম পিতাঃ সব্বির আহমদ ৪) মোছাম্মৎ দিলরুবা খানম নার্গিস স্বামীঃ তারেকুল ইসলাম ৫) সাইফুল ইসলাম পিতাঃ সব্বির আহমদ সর্বসাং- এস.কে পাড়া, ৪ নং ওয়ার্ড, চকরিয়া পৌরসভা ৬) সালাহ উদ্দিন পিতাঃ মালেক মিস্ত্রি সাং- খামার পাড়া, ৬ নং ওয়ার্ড চকরিয়া পৌরসভা।
অভিযোগ কারিনী তসলিমা বলেন, আমার শ্বশুরঘরে দীর্ঘদিন যাবত বসবাস করে আসছি কিন্তুু পারিবারিক প্রতিহিংসার আক্রোশের কারণে ইতিপূর্বে বিভিন্ন ঘটনা সংগঠিত হওয়ায় আমি ও আমার স্বামী নিরাপত্তার কারণে আমার পিতার বসতঘরে বসবাস করিতেছি। আমার শ্বশুড়ের বসতঘরে আমাদের রুমে থাকা ১০ম শ্রেণীতে পড়ুয়া মেয়ে তাসমিয়া সাঈদ সোহা বসবাস করিতেছে। প্রতিহিংসার আক্রোশে আমার মেয়েকে বসতঘর হইতে তাড়াইয়া দেওয়ার জন্য শ্বাশুর -শ্বাশুড়ী, দেবর ও অপরাপর শ্বাশুরবাড়ির লোকজন প্রতিনিয়ত বিভিন্ন অপকৌশল অবলম্বনসহ অশ্লীল ভাষায় গালি- গালাজ ও হুমকি ধমকি প্রদর্শন করে আসছেন। সর্বশেষ ১৬ মে সেহেরী খাওয়ার সময় আমার মেয়েকে চুল ধরে টেনে হেঁচড়ে মেরে খুন করে ফেলবে বলে ভয় ভীতি প্রদর্শন করে। মেয়ে নিরাপত্তাহীনতা ভুগার পর বিষয়টি আমার স্বামী ও আত্নীয় স্বজনদের ফোনে অবগত করার পর আমার স্বামীকে সাথে নিয়ে শ্বাশুর বাড়ির বসতঘরে প্রবেশের চেষ্টা করলে শ্বাশুরবাড়ির লোকজন মারমুখীভাবে ক্ষিপ্ত হয়ে উঠে। সাথে সাথে পাড়া প্রতিবেশী এগিয়ে আসায় বড় ধরনের অঘটন থেকে রক্ষা পায়। এরই আলোকে ১৭ মে মেয়ের নিরাপত্তার নিমিত্তে চকরিয়া থানায় লিখিতভাবে সাধারণ ডায়েরী রুজু করিয়াছি।
উপরোক্ত বিষয়ে চকরিয়া থানার অফিসার ইনসার্স (ওসি) হাবিবুর রহমান বলেন, ইতিপূর্বেও ছেলেকে সহায় সম্পত্তি হতে বঞ্চিত করার লক্ষে এই পরিবারটি পরিকল্পিতভাবে অভিযোগকারিনীর স্বামীকে হামলা করেছিল। প্রতিবেশীর সহযোগীতায় পুলিশ তার স্বামীকে উদ্ধার করে হাসাপাতালে ভর্তি করেছিল।  অভিযোগকারিনীর আর্জিতে একই ঘটনার রেশ মিল দেখা যায়। তাই বিষয়টি তদন্তের জন্য এস আই প্রিয়লালকে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। তদন্ত সাপেক্ষে দোষীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যাবস্থা নেয়া হবে বলে তিনি জানান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Application to the Ministry of Information for registration.