চকরিয়ার ভেওলায় মাদক ব্যবসাসহ অবৈধ কার্যকলাপের প্রতিবাদ করায় হামলা, ভাংচুর, আহত ৫

চকরিয়া অফিস:
চকরিয়ায় অবৈধ মাদক ব্যবসা বন্ধ রাখাসহ সামাজিক অবৈধ কার্যকলাপের প্রতিবাদ করায় ক্ষিপ্ত হয়ে প্রতিবাদকারী ও তাদের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে হামলা ও ভাংচুরের ঘটনা ঘটেছে। হামলায় ৫জন আহত হয়েছে। লুট করে নিয়েগেছে মালামাল। উপজেলার পূর্ববড়ভেওলা ইউনিয়নের মধ্যম চরপাড়া ষ্টেশনে গত ১২ মে’২০ইং সন্ধ্যা ৭টার দিকে ঘটেছে এ ঘটনা। এঘটনায় হামলার শিকার স্থানীয় সৈয়দ আহমদের পুত্র মোঃ আবদুর রহিম বাদী হয়ে ১৪ মে’২০ থানায় লিখিত এজাহার দায়ের করা হয়েছে। এতে অভিযুক্ত করা হয়েছে; একই এলাকার মৃত নুরুল কবিরের পুত্র নুরুল কাদের ও নুরুল মোস্তফা, মৃত আকবর আহমদের পুত্র আবুল হাসেম, মৃত বশির আহমদের পুত্র সালাহ উদ্দিন পুতু,আবদু রহিমের পুত্র নাজেম উদ্দিন, মোহাম্মদ আলীর পুত্র হায়দার আলী, মোঃ ইদ্রিছের পুত্র রবিউল করিম রবিসহ আরো ৩/৪জনকে।
অভিযোগে জানাগেছে, অভিযুক্তরা এলাকায় অবৈধ মাদক ব্যবসাসহ অসামাজিক কার্যকলাপ চালিয়ে আসছে। এসব অবৈধ কাজ থেকে বিরত থাকার জন্য বাধা নিষেধ করেন সৈয়দ আহমদের পুত্র ব্যবসায়ী মোঃ আবদুর রহিমসহ সমাজ সচেতন প্রতিবাদী যুবকরা। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে পূর্বশত্রুতার আক্রোশে দেশীয় ধারালো অস্ত্র শস্ত্র নিয়ে গত ১২ মে’২০ইং সন্ধ্যা ৭টার দিকে অতর্কিত অবস্থায় আবদুর রহিম (৩০)কে তার ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে ঢুকে হামলা চালিয়ে গুরুতর আহত করে। এসময় তাকে বাঁচাতে তার স্ত্রী নুরতাজ বেগম (২৭), সহপাঠি আবদু শুক্কুর (৩৬), আজিজুল হক বাদশা (৩১), মোস্তফা খান (২৬) এগিয়ে আসলে তাদেরকেও মারধরে আহত করেছে। হামলাকালে আবদুর রহিমের স্ত্রী ব্যবহৃত ৫০ হাজার টাকা মূল্যের এক ভরি ওজনের স্বর্নের চেইন, তার মুদির দোকানের ক্যাশবক্স থেকে মালামাল বিক্রির রক্ষিত নগদ ৪৫ হাজার ৩শত টাকা ও ভাংচুরে আরো ৩০ হাজার টাকার ক্ষতি সাধন করেছে। পরে স্থানীয় লোকজন এগিয়ে এসে আহতদের উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন। বর্তমানেও বাড়ি বাড়ি গিয়ে অস্ত্রের মহড়াসহ নানাভাবে হুমকি ধমকি অব্যাহত রেখেছে বলে অভিযোগ করেন প্রতিবাদী ব্যবসায়ী আবদুর রহিম। ভূক্তভোগিরাসহ স্থানীয় লোকজন অবৈধ ও অসামাজিক কার্যকলাপে জড়িতদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নিতে প্রশাসনের নিকট দাবী জানিয়েছেন।
চকরিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোঃ হাবিবুর রহমান জানিয়েছেন, ঘটনার বিষয়ে একটি লিখিত এজাহার পেয়েছেন। অবৈধ ব্যবসাসহ অসামাজিক কাজে জড়িত থাকার অভিযোগ সত্য হলে কাউকে ছাড় দেয়া হবে। তিনি আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে বলে জানান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Application to the Ministry of Information for registration.