চকরিয়ায় নির্মানাধীন সড়কে গাড়ী চলাচলে বারণ করায় যুবলীগ নেতার বাড়িতে হামলা, ভাংচুর ও লুটপাট, মা ও ভাই আহত

চকরিয়া অফিস
চকরিয়ায় নির্মানাধীন সড়ক দিয়ে ঢালাইকাজ শেষ না হওয়ার পূর্বে গাড়ী না চালানোর জন্য বারণ করায় ক্ষিপ্ত হয়ে সরকার বিরোধী বিএনপি সমর্থিত একটি বাহিনীর হাতে এক যুবলীগ নেতার বাড়িতে হামলা, ভাংচুর ও লুটপাট চালানোর অভিযোগ উঠেছে।
উপজেলার কাকারা ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ড উত্তর লোটনী গ্রামে গত ১১ মে’২০ইং সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে ঘটেছে এ ঘটনা। এনিয়ে হামলার শিকার ওই এলাকার আবদুর রহিমের পুত্র ইউনিয়ন যুবলীগের যুগ্ম আহবায়ক মোঃ রিয়াজ উদ্দিন রাজীব (২৭) বাদী হয়ে থানায় লিখিত এজহার দায়ের করা হয়েছে। এতে অভিযুক্ত করা হয়েছে; একই এলাকার মনজুর আলমের পুত্র আবদুল মালেক, গোলাম কাদেরের পুত্র মোঃ হোসেন, আমিরু জামানের পুত্র আবুল কাসেম, মোঃ হোসেনের পুত্র মোঃ শেকাব উদ্দিনসহ অজ্ঞাত আরো ১০/১২ জন রয়েছে।
বাদী যুবলীগ নেতা মোঃ রিয়াজ উদ্দিন জানিয়েছেন, কাকারা সড়কে সরকারিভাবে উন্নয়ন কাজ চলছে। নির্মানাধীন সড়ক নষ্ট হয়ে গিয়ে সরকারের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন করার লক্ষ্যে স্থানীয় অভিযুক্তরা সরকার বিরোধী বিএনপির রাজনীতি করায় নির্মানাধীন কাঁচা সড়ক দিয়ে ট্যাক্টর গাড়ী চলাচল করার চেষ্টা করলে গত ১০মে সকাল ৯টার দিকে সড়কের ঢালাইকাজ শেষ না হওয়া পর্যন্ত গাড়ী চলাচল না করার জন্য বারণ করেন। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে অভিযুক্তরা দলীয় কর্মী বাহিনীসহ ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসী এনে ধারালো অস্ত্র শস্ত্র নিয়ে পরদিন ১১ মে সন্ধ্যান সাড়ে ৭টারর দিকে যুবলীগ নেতা রাজিবের বসতবাড়িতে হামলা ও ভাংচুর চালায়। প্রাণে হত্যার চেষ্টায় হামলাকারীদের অবস্থা বুঝতে পেরে প্রতিবাদী যুবলীগ নেতা অন্যত্রে আত্বগোপনে গেলেও তার মা লাইলা বেগম ও ছোট ভাই ছোটনকে মারধর করে এবং যুবলীগ নেতাকে বের করে দেয়ার জন্য চাপ সৃষ্টিসহ হুমকি প্রদান করে। এসময় বসতঘরে হামলা চালিয়ে ৩টি চেয়ার, ১টি সোফা, ১টি কাটিয়া, ৩টি থাই গ্লাস এবং বিভিন্ন আসবাবপত্র ও ক্রোকারীজ সামগ্রী ভাংচুর করে অন্তত দেড় লক্ষাধিক টাকার ক্ষতি সাধন করে এবং টেবিলের ড্রয়ার থেকে নগদ ৯৩ হাজার টাকা, মোট সাড়ে ৫৯ হাজার টাকা মূল্যের ৩টি মোবাইল সেট (এমআই, হাওয়াই ও স্যামসাং জে ৫) লুট করে নিয়ে যায়। চলে যাওয়ার সময় সরকার বিরোধী এবং যুবলীগ নেতা রাজীবকে নিয়ে অশ্লীল গালিগালাজ করে হামলাকারীরা। ঘটনারদিন খবর পেয়ে তাৎক্ষনিকভাবে থানার একদল পুলিশ এবং স্থানীয় আওয়ামীলীগের নেতৃবৃন্দ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। এদিকে ঘটনাস্থল পরিদর্শনে যান চকরিয়া উপজেলা যুবলীগের সভাপতি শহিদুল ইসলাম শহীদ ও সাধারণ সম্পাদক কাউসার উদ্দিন কচিরের নেতৃত্বে উপজেলা যুবলীগের একটি টীম। তারা প্রশাসনের কাছে হামলাকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার জন্য আহবান জানান।

চকরিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোঃ হাবিবুর রহমান বলেন, ঘটনার বিষয়ে ১৩ মে রাতে একটি লিখিত এজাহার পেয়েছেন। তিনি অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে আরো তদন্ত করে প্রয়য়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে বলে জানান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Application to the Ministry of Information for registration.