চকরিয়ায় রাতের আধারে কৃষকের রোপিত ধান কেটে লুটের অভিযোগ

একেএম বেলাল উদ্দিন,চকরিয়া সংবাদদাতা:
চকরিয়ায় কৃষকের রোপিত ধান রাতের আধারে কেটে নেয়ার অভিযোগ উঠেছে প্রতিপক্ষের লাঠিয়াল বাহিনীর বিরুদ্ধে। উপজেলার ফাসিয়াখালী ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ড হাজিয়ান গ্রামে গত ৫ মে ভোররাত অনুমানিক ২টার দিকে ঘটেছে এ ঘটনা। এনিয়ে জমি মালিক পক্ষ কৃষক ও স্থানীয়দের মাঝে ক্ষোভ ও উত্তেজনা দেখা দিয়েছে।

অভিযোগে জানা গেছে, ফাসিয়াখালী ইউনিয়নের হাজিয়ান মৌজার বিএস খতিয়ান নং ৩৬৪-এ ৫৫শতক জমির মালিক স্থানীয় মৃত মোহাম্মদ হোছেনের ওয়ারিশগন। এসব জমির বর্তমানে রেজিষ্ট্রাট বায়না সূত্রে মালিক হন কাকারা ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ড এসএমচর গ্রামের গোলাম কাদেরের পুত্র গিয়াস উদ্দিন ও পৌরসভার ৮নং ওয়ার্ডের নামারচিরিংগা গ্রামের মৃত মঈনুদ্দিন চৌধুরীর পুত্র তৌহিদুল ইসলাম চৌধুরী। তারা জমি ক্রয়ের পর থেকে ৫৫শতক জমির মধ্যে ৪০শতক জমিতে বাহাদুর আলমকে চাষা নিয়োগ (লাগিয়ত) করে ধানের চারা রোপনের মাধ্যমে চাষাবাদ করেন আসছেন। জমি মালিক মো: গিয়াস উদ্দিন অভিযোগ করেন, চাষাবাদকৃত ধান ফলন হয়ে বর্তমানে কর্তন উপযোগি হয়েছে। কিন্তু জমি নিয়ে পূর্ব শত্রুতার জেরধরে হাজিয়ান গ্রামের মৃত আফজুল আহমদের পুত্র মো: সিরাজ আহমদ, রফিক, জকরিয়া ও সিরাজুল ইসলামের পুত্র আবদুল মালেকের নেতৃত্বে ভাড়াটিয়া বাহিনী নিয়ে ৫ মে ভোররাতে বেশ কিছু পরিমানে জমির ধান কেটে লুট করে নিয়ে গেছে। এরপূর্বে গত ১৬ডিসেম্বর’১৯ ভোররাত ২টার দিকে জমি মালিক-কৃষকদের অগোচরে একই অভিযুক্তরা ৪০শতক পরিমাণের জমির ধান কেটে লুট করে নিয়েছিল। এরপর পূণরায় ধান রোপন করে আবারও ফলন (কর্তন) উপযোগি হলে প্রায় ২০ শতক জমির ধান কেটে লুট করে নিয়ে যায় বলে গিয়াস উদ্দিন অভিযোগ করেন।
অপরদিকে জানতে চাইলে ধান কেটে নেয়ার বিষয়টি অস্বীকার করেন সিরাজুল ইসলাম গং।

এঘটনায় ভূক্তভোগি গিয়াস উদ্দিন গং মামলার প্রস্তুতি নিয়েছেন বলে জানিয়েছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Application to the Ministry of Information for registration.