কুতুবদিয়ার ইউএনও’ অসহায় মানুষের ভরসা

নিজস্ব প্রতিবেদক ঃ

মহামারি করোনা’র কারণে সারাদেশের ন্যায় ককক্সবাজারের কুতুবদিয়ায়ও লকডাউন ঘোষণা করে উপজেলা প্রশাসন। লকডাউনের কারণে চিন্তিত রয়েছে দ্বীপের দরিদ্র বিভিন্ন শ্রেণীর পেশাজীবী মানুষ। করোনা’র ঝুঁকি এড়িয়ে বিরামহীনভাবে খাদ্য সামগ্রী নিয়ে দরিদ্র অসহায় মানুষের বাড়িতে বাড়িতে ছুটেছেন কুতুবদিয়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার জিয়াউল হক মীর। তারই ধারাবাহিকতায় তিনি ১৫ এপ্রিল উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে বেসরকারিভাবে প্রাপ্ত সহায়তায় আরো ৫০ পরিবারের মাঝে খাবার সামগ্রী পৌঁছে দেওয়া হয় বলেও জানাযায়।

অসহায় মানুষ ক্ষুধায় কষ্ট পেলেই পাশে পাচ্ছেন ইউএনওকে। অনেকে বলেছেন, অসহায় মানুষের ভরসা হচ্ছে কুতুবদিয়ার ইউএনও জিয়াউল হক মীর। কোথাও ত্রাণ না পেলে ইউএনওকে কল দিয়ে জানালে মুহুর্তের মধ্যে পৌছে যাচ্ছে খাবার।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার জিয়াউল হক মীর বলেন- উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে বেসরকারিভাবে প্রাপ্ত সহায়তায় কুতুবদিয়া উপজেলার বিভিন্ন স্থানে গরীব চা দোকানদার, টমটম চালক, জেলে, নুরানী মাদ্রাসার শিক্ষক, নিম্ন মধ্যবিত্ত পরিবার, খেটে খাওয়া মানুষসহ ৫০ পরিবারের মাঝে বাড়ি বাড়ি গিয়ে খাবার সামগ্রী বিতরণ করা হয়। উল্লেখ্য যে উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে বেসরকারিভাবে প্রাপ্ত সহায়তায় এ পর্যন্ত কর্মহীন অসহায় শ্রমজীবী ৬৯০ পরিবারকে খাবার সামগ্রী বিতরণ করা হয় এবং পুরো কুতুবদিয়া উপজেলায় এ পর্যন্ত ২০১০ পরিবারকে সরকারিভাবে প্রাপ্ত জি আর সহায়তা প্রদান করা হয়েছে। পর্যায়ক্রমে কর্মহীন অসহায় সকল শ্রমজীবী মানুষের মাঝে খাবার পৌঁছানো হবে। উল্লেখ্য যে, সরকারি নিয়মিত সহায়তার অংশ হিসেবে ইতোমধ্যে অত্র উপজেলার সকল ইউনিয়নে কার্ডধারী ১৭৬১ পরিবারের মাঝে ভিজিডি বিতরণ করা হয়েছে এবং কার্ডধারী ৩৯৯৩ পরিবারের মাঝে ১০ টাকা কেজি মূল্যের চাল বিতরণ করা হচ্ছে। তিনি আরো বলেন- আপনারা ঘরে থাকুন, আমরা খাবার পৌঁছে দিব। সদা আপনাদের পাশেই আছি উপজেলা প্রশাসন।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Application to the Ministry of Information for registration.