বিভিন্ন অনলাইন নিউজ পোর্টালে “পেকুয়ায় প্রবাসীর স্ত্রীর লাশ উদ্ধার, হত্যার অভিযোগ মায়ের” শীর্ষক শিরোনামে প্রকাশিত সংবাদের তীব্র প্রতিবাদ

অদ্য ১৩/০৪/২০২০ ইংরেজী তারিখ বিভিন্ন অনলাইন নিউজ পোর্টালে “পেকুয়ায় প্রবাসীর স্ত্রীর লাশ উদ্ধার, হত্যার অভিযোগ মায়ের” শীর্ষক শিরোনামে প্রকাশিত সংবাদটি আমার দৃষ্টি গোছর হয়েছে। প্রকাশিত সংবাদটিতে আমাদের জড়িয়ে যে সব কল্পকাহিনী উল্লেখ করা হয়েছে তা বাস্তবতার সাথে কোন মিল নাই। উদ্দেশ্যে প্রণোদিতভাবে আমাদের বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালানো হয়েছে। আমার ছেলে লিবিয়া প্রবাসী বাদশার স্ত্রী জন্নাতুল ফেরদৌসকে আজ সকালে আমরা নির্যাতন চালিয়ে হত্যা করেছি বলে মিথ্যা অপপ্রচার ছড়ানো হয়েছে। আমার ছেলের শাশুড়ি নুরুন্নাহার কুচক্রী মহলের ইন্দনে আমাদের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দায়ের করার জন্যই মূলত এসব ষড়যন্ত্র শুরু করেছে।

অদ্য ১৩ এপ্রিল আমার সাথে ও আমার দুই মেয়ে আইমন ও সাদিয়ার সাথে পুত্রবধূ জান্নাতুল ফেরদৌসের সাথে কোন ঝগড়া হয়নি এবং ইতিপূর্বেও কোন প্রকার ঝগড়া হয়নি। আজকে সকালে আমরা সবাই একসাথে খাবার খেয়েছিলাম। খাবার খাওয়ার পর সে ঔষধ খেয়ে বাড়ির জানালার সাথে গলায় ওড়না পেঁছিয়ে আত্নহত্যা করে। কারো সাথে ঝগড়া হওয়া দূরের কথা এমনকি তার সাথে আমার ও আমার দুই মেয়ের সাথে কথা কাটাকাটি পর্যন্ত হয়নি। আমাদের পুত্রবধূ পূর্ব থেকে বলে আসত সে যে কোন সময় নিজে নিজে আত্মহত্যা করে আমাদের (শ্বশুর বাড়ির) সবাইকে ফাঁসিয়ে দিবে। আমাদের পুত্রবধূ ক্যান্সারে আক্রান্ত ছিল এবং গতকালও চকরিয়া থেকে চিকিৎসা করে এসেছে। আজকে সকালে আমাদের সাথে সকালের ভাত খাওয়ার পর সে ঔষধও সেবন করেছিল। বিয়ের দুবছর পার হলেও পুত্রবধূকে কোন ধরনের অত্যাচার নির্যাতন করা হয়নি। এখন ঘোলা পানিতে মাছ শিকারের জন্য কিছু কুচক্রী মহলের ইশারা ইঙ্গিতে পুত্রবধূর মা আমাদের পরিবারের সবাইকে মিথ্যা মামলার আসামী করার ষড়যন্ত্র শুরু করছে। তাই আমি ঘটনাটি সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষভাবে তদন্ত করার জন্য প্রশাসনের কাছে সবিনয়ে অনুরোধ জানাচ্ছি।

এছাড়াও আমাদের জড়িয়ে বিভিন্ন অনলাইনে প্রকাশিত ওই মিথ্যা সংবাদের তীব্র নিন্দা জানাচ্ছি এবং এ বিষয়ে কাউকে বিভ্রান্ত না হওয়ার জন্য দৃষ্টি আকর্ষণ করছি।

প্রতিবাদকারী
আনোয়ারা বেগম
স্বামী কাছিম আলী
গ্রামঃ আবদুল হামিদ সিকদার পাড়া
ইউনিয়নঃ পেকুয়া সদর
উপজেলাঃ পেকুয়া
জেলাঃ কক্সবাজার

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Application to the Ministry of Information for registration.