করোনায় ক্ষতিগ্রস্ত যেসব পরিবার প্রকাশ্যে ত্রাণ নিতে পারেননা, তা খোজ নিয়ে বাড়ি বাড়ি গিয়ে ব্যক্তিগত খাদ্য সহায়তা পৌঁছে দিচ্ছেন ওসি

চকরিয়া থানার ওসি হাবিবুর রহমানের অন্যরকম মহানুবতা-

আবদুল মজিদ,চকরিয়া

করোনায় সংক্রমণ ঠেকাতে ঘরে থাকা কর্মহীন মধ্যবিত্ত ও দুস্থ পরিবারের মাঝে ব্যক্তিগত তহবিল থেকে খাদ্য সহায়তা (ত্রাণ) বিতরণ অব্যাহত রেখেছেন কক্সবাজারের চকরিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. হাবিবুর রহমান। করোনার মহামারির পর থেকে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং বাংলাদেশ পুলিশের আইজিপি ড. জাবেদ পাটোয়ারী ও কক্সবাজারের পুলিশ সুপার এবিএম মাসুদ হোসেনের নির্দেশে ও ব্যক্তিগত অনুভূতিতে উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় ঘুরে ঘুরে মধ্যবিত্ত, দুস্থ, কর্মহীন পরিবারের খোঁজ নিয়ে তাদের খাদ্য সহায়তা সামগ্রী রাতের আধারে বাড়ি বাড়ি গিয়েই পৌঁছে দিচ্ছেন। প্রতিদিন কোননা কোন এলাকায় ছুটে যাচ্ছেন তিনি। বিভিন্ন এলাকায় ঘুরে ঘুরে সাধারণ মানুষকে ঘরে অবস্থান করার আহবানও জানাচ্ছেন। তিনি বলেন, মধ্যবিত্ত অথবা দরিদ্র পরিবার, কিন্তু জনপ্রতিনিধি কিংবা বিত্তবানদের দেয়া সাহায্য প্রকাশ্যে নিতে পারেননা, এই ধরনের পরিবার সমূহ খোজ নিয়েই অতি নিরবে তাদের বাড়িতে তাঁর ব্যক্তিগত পক্ষ থেকে খাদ্য সহায়তা সামগ্রী পৌঁছে দেয়া হচ্ছে। তিনি ওই ধরনের কোন পরিবার এখনো অভূক্ত থেকে থাকলে নির্ধিদায় মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করলে যেকোন সময় খাদ্য সহায়তা পৌছে দেয়ার ঘোষনা দেন। একইভাবে নিজ নিজ এলাকায় যারা বিত্তবান আছেন, কিংবা ত্রাণ সহায়তা দিয়ে যাচ্ছেন, আপনাদেরকেও সেই বিষয়টি গুরুত্ব সহকারে দেখতে হবে। অনেক পরিবার এই মহাসংকটে লোকচক্ষু লজ্জায় সামনাসামনি এসে ত্রাণ নিতে পারছেনা।

চকরিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. হাবিবুর রহমান বলেন, বিশ্বে চলমান মহামারি এই দূর্যোগে সবাই নিজ এলাকার গরীব, অসহায়, কর্মহীন ও মধ্যবিত্ত পরিবারের প্রতি সাহায্যে এগিয়ে আসলে তাদের কষ্ট লাগব হবে। মানুষ মানুষের জন্য। বিপদের মুহুর্তে কে কার জন্য কি করেছেন, তা সারা জীবন মনে রাখবে।
এছাড়া তিনি জনসাধারণকে নিজ নিজ ঘরে অবস্থান করলে করোনা ভাইরাসের সংক্রমন ঠেকানো যাবে বলেও মন্তব্য করেন। তৎজন্য সরকারি নিয়মবিধি মেনে প্রতিদিন সন্ধ্যা ৬টা হতে সকাল ৬টা পর্যন্ত কোন মানুষকে রাস্তায় ঘুরাঘুরি না করার অনুরোধ জানান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Application to the Ministry of Information for registration.