কুতুবদিয়ার ইউএনওকে নিয়ে কটাক্ষকারী কে এই সায়েরা নাজনীন? শাস্তির দাবী দ্বীপবাসীর

কুতুবদিয়ার ইউএনওকে নিয়ে কটাক্ষকারী কে এই সায়েরা নাজনীন? শাস্তির দাবী দ্বীপবাসীর

 

কটুক্তি করা অাইডি

এ.কে.এম রিদওয়ানুল করিমঃ

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে কুতুবদিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে নিয়ে সায়েরা নাজনীন কুতুবদিয়া নামক একটি অাইডি থেকে কটাক্ষ ও বিভ্রান্তমূলক মন্তব্য করার গুরুতর অভিযোগ উঠেছে।

গত ৪ এপ্রিল কুতুবদিয়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) জিয়াউল হক মীর ত্রাণ তরৎপরতা নিয়ে uno kutubdia id  থেকে একটি স্ট্যাটাস দেন।” এটি ছিল এমন, রাতে ফোন পেয়ে অসহায়  চায়ের দোকানদারের বাড়িতে খাবার প্ররণ “ঃ সাথে একটি ছবি,  এ ছবিতে অসহায় মানুষ চা বিক্রেতা যিনি ত্রাণ গ্রহণ করছেন তার ছবি অস্পষ্ট করে দেয়া হয়েছে। অার যিনি দিচ্ছেন সে ইউএনও অফিসের কর্মচারী।

কুতুবদিয়ার ত্রাণকর্তা খ্যাত ইউএনও’র ব্যাপক ত্রাণ তৎপরতার অংশ অসহায়ের পাশে দাঁড়ানো এমন স্ট্যাটাস পেয়ে দ্বীপ উপজেলা কুতুবদিয়ার ফেসবুক ব্যবহারকারীরা উপজেলা প্রশাসনসহ ইউএনওককে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে উৎসাহ উদ্দীপনামূলক নানা মন্তব্য করতে থাকেন । এক কথায় ইউএনও সাহেব প্রশংসার জোয়ারে ভাসছিলেন। এর মধ্যে একটি স্ট্যাটাস দেখে দ্বীপবাসীর মাঝে যেন অাকাশ ভেঙ্গে পড়ল। sayera najnin kutubdia নামক একটি ফেসবুক অাইডি থেকে ইউএনওকে নিয়ে সম্মানহানীমূলক কটাক্ষ করে কমেন্ট করেন। একজন সরকারী সম্মানিত কর্মকর্তাকে নিয়ে হঠাৎ এমন  বিরুদ্ধাচরণ মন্তব্যকারীকে নিয়ে শুরু হয়ে যায় নানা জল্পনা কল্পনা। কে এই সায়েরা নাজনীন?  তাঁর খুঁটির জোর কোথায়?  সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে একজন দায়িত্ববান সরকারী কর্মকর্তাকে নিয়ে কটুক্তি  করেছেন তাও যেমন তেমন কোন কর্মকর্তা নয়, যিনি দ্বীপ উপজেলা কুতুবদিয়ার উপজেলা কর্মকর্তা। এ বিষয়টা যেনতেন ভাবে মেনে নিতে পারছেন না কুতুবদিয়াবাসী। তারা সাথে সাথে তীব্র প্রতিবাদ ও নিন্দা জানিয়েছেন। সে সাথে এ অাইডি ব্যবহারকারী যেই হোক তাকে সনাক্ত করে শাস্তির দাবী জানিয়েছেন। কুতুবদিয়ার স্থানীয়রা জানান,উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জিয়াউল হক মীর কুতুবদিয়ায় অাসার পর থেকে অাইনশৃঙ্খলা ও অবকাঠামোগত যেমন উন্নয়ন হয়েছে তেমনি তিনি গরীব দূঃখী মেহনতি  মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছেন। বতর্মান করোনা পরিস্থিতিতে জীবনের মায়া ত্যাগ করে তিনি  সারা কুতুবদিয়ায় ব্যাপক ত্রাণ কার্যক্রম পরিচালনা করে  ত্রাণকর্তার খ্যাতি অর্জন করেছেন। কুতুবদিয়াবাসীর তিনি ত্রাণকর্তা বলে একনামে পরিচিত। সাধারণ মানুষের বিপদের সাথী ইউএনওকে নিয়ে কটুক্তি করায় তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন কুতুবদিয়া উপজেলা অাওয়ামীলীগের সভাপতি অাওরঙ্গজেব মাতবর।  তিনি বলেন,  “বর্তমান করোনা সংকট মোকাবেলায় দিন রাত পরিশ্রম করে যাচ্ছেন ইউএনও জনাব জিয়াউল হক মীর সাহেব । উনাকে নিয়ে খারাপ মন্তব্য করা মোটেও ঠিক হয়নি। এমন মন্তব্য করাতে শুধু  সরকারী একজন কর্মকর্তাকে সম্মানহানী করা হয়েছে তা নয়, এর দ্বারা সরকারকে হেয় করা হয়েছে। তিনি দ্রুত তদন্ত করে অাইডিটির ব্যবহারকারীকে সনাক্ত করণ পূর্বক কঠোর শাস্তির দাবী জানিয়েছেন।

ইউএনও’র স্ট্যাটাসে দেয়া নিচের ছবিটি নিয়ে কটাক্ষ করেছেন। অথচ ছবির মধ্যে যাকে দেখা যাচ্ছে সে ইউএনও অফিসের কর্মচারী, অার চা বিক্রেতার ছবি দেখা যাচ্ছে না। যা অস্পষ্ট করে দেয়া হয়েছে।

কটুক্তি করা কমেন্টঃ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Application to the Ministry of Information for registration.