জাতিসংঘের যুদ্ধবিরতি প্রস্তাব মানবতার সঙ্গে প্রতারণা: এরদোগান

ডেইলি সাবাহআন্তর্জাতিক ডেস্ক
কক্স টিভি:
আঙ্কারা: সিরিয়ার পূর্বাঞ্চলীয় ঘৌতায় জাতিসংঘের যুদ্ধবিরতি প্রস্তাবের কঠোর সমালোচনা করেছেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়্যেপ এরদোগান।

যুদ্ধবিরতি সত্ত্বেও সিরিয়ার প্রেসিডেন্ট আসাদ সরকার পূর্বাঞ্চলীয় ঘৌতায় তার অভিযান অব্যাহত রেখেছেন। সেখানে এখনো বেসামরিক নাগরিকদেরকে লক্ষ্যবস্তু করা হচ্ছে এবং এর ফলে ব্যাপক সংখ্যক হতাহতের ঘটনা ঘটছে।

মঙ্গলবার পার্লামেন্টে ক্ষমতাসীন একে পার্টির সংসদীয় বৈঠকে এরদোগান বলেন, ‘পূর্ব ঘৌতায় সাম্প্রতিক ঘটনাগুলি হজম করা আমাদের জন্য কঠিন হয়ে পড়েছে। তারা মানবতার উপযুক্ত নয়।’

গত ২৪ ফেব্রুয়ারি জাতিসংঘের সিকিউরিটি কাউন্সিলে পাস হওয়া ৩০ দিনের যুদ্ধবিরতির প্রসঙ্গে এরদোগান বলেন, ‘যে রেজল্যুশন কখনো কার্যকর হয়নি, মানবতার জন্য তার কোনো অর্থ নেই।’

তুর্কি প্রেসিডেন্ট জাতিসংঘের নিরাপত্তা কাউন্সিলের বিরুদ্ধে ‘মানবতার সঙ্গে প্রতারণার’ অভিযোগ এনে বলেন, বিশ্বকে প্রতারিত করার জন্য বিশ্ব সংস্থাটি এই ধরনের প্রস্তাব পাস করেছে। এর মাধ্যমে তারা আসলে বেসামরিক নাগরিকদের বিরুদ্ধে অপরাধ সংঘঠিত করার ব্যবস্থা গ্রহণ করছে।’

এর আগে এরদোগান পাঁচ স্থায়ী সদস্যদের জন্য নিরাপত্তা পরিষদের গঠন কাঠামোর কড়া সমালোচনা করেন। তিনি যুক্তি দেন যে ‘পাঁচ শক্তির চেয়ে বিশ্ব অনেক বড়।’

হোয়াইট হেলমেটস সিভিল ডিফেন্স এজেন্সির তথ্যানুযায়ী, যুদ্ধবিরতি পাস হওয়া সত্ত্বেও গত দুই সপ্তাহে পূর্ব ঘৌতায় এলাকায় প্রায় ৭৫৬ জন লোক নিহত হয়েছে।

দামেস্কের শহরতলির পূর্ব ঘৌতায় প্রায় ৪ লাখ মানুষের বাস। গত পাঁচ বছরে শহরটি অবরুদ্ধ অবস্থায় রয়েছে।

গত আট মাসে আসাদ সরকারের বাহিনী এটির দখল নিতে অভিযান জোরদার করেছে। ফলে সেখানকার হাজার হাজার বেসামরিক নাগরিকদের জন্য প্রয়োজনীয় খাদ্য ও ঔষধ পৌঁছানো প্রায় অসম্ভব হয়ে পড়েছে।

সূত্র: ডেইলি সাবাহ

হামলার আশঙ্কায় বন্ধ হচ্ছে তুরস্কের মার্কিন দূতাবাস
হামলার আশঙ্কায় তুরস্কের রাজধানী আঙ্কারার মার্কিন দূতাবাস সোমবার জনসাধারণের জন্য বন্ধ রাখা হচ্ছে। তবে এদিন জরুরি সব সেবা চালু থাকবে বলে দূতাবাসের পক্ষ থেকে দেওয়া রোববারের এক বিবৃতিতে জানানো হয়েছে।

বিবৃতিতে তুরস্কে অবস্থারত মার্কিনীদের বড় ধরনের কোনো জমায়েত ও দূতাবাস ভবন এড়িয়ে চলার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। এছাড়াও, পর্যটন এলাকা ও জনসমাগম স্থানগুলোতে নিজেদের নিরাপত্তার ব্যাপারে সচেতন থাকার জন্যও মার্কিন নাগরিকদের সতর্ক করেছে দূতাবাস। তবে ঠিক কী ধরনের নিরাপত্তা হুমকির কারণে দূতাবাস বন্ধ রাখা হচ্ছে তা বিবৃতিতে উল্লেখ করা হয়নি।

আঙ্কারার গভর্নরের কার্যালয় এক বিবৃতিতে বলেছে, যুক্তরাষ্ট্রের গোয়েন্দা সূত্রে মার্কিন দূতাবাস ও মার্কিন নাগরিকদের অবস্থানের ওপর হামলা হতে পারে বলে খবরের প্ররিপ্রেক্ষিতেই সংশ্লিষ্ট স্থানগুলোতে বাড়তি নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।

দূতাবাসের বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ভিসা সাক্ষাৎকারসহ অন্যান্য নিয়মিত সেবা সোমবার বন্ধ থাকবে। দূতাবাসের এসব কার্যক্রম পুনরায় চালু হলে তা ঘোষণা দিয়ে জানানো হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Application to the Ministry of Information for registration.