চকরিয়ায় চোরাই মোটরসাইকেলসহ জনতার হাতে দুই জন আটক

চকরিয়া অফিস:
চকরিয়া উপজেলার কাকারা ইউনিয়নের আব্দুস ছমদের একটি টিভিএস ১৫০ সি.সি একটি মোটর সাইকেল কাকারা ইউনিয়নের মাঝের ফাঁড়ি ষ্টেশন থেকে চুরি হওয়ার খোঁজা-খোঁজি করার পর সি.সি ক্যামরায় ধরা পড়ে। এরই সূত্র ধরে সি.সি ক্যামরায় শনাক্ত করা চোরদের সম্প্রতি ঈদগাও চৌফলদন্ডী ব্রীজ এলাকা থেকে মোটরসাইকেল মালিক ও তার স্বজনেরা শনাক্ত করে গাড়ী চোর সুরাজপুর-মানিকপুর ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ড উত্তর সুরাজপুর নয়াপাড়া এলাকার নুর মোহাম্মদের পুত্র শহিদুল ইসলাম শাওন ও তার সহযোগিকে স্থানীয়দের সহায়তায় আটক করে এবং চুরি হওয়া মোটরসাইকেলটি উদ্ধার করে। এ ঘটনার পর বেরিয়ে আসছে একাধিক চুরি ঘটনার তথ্য।
একই এলাকার আব্বাছ আহমদের পুত্র আবুল হাসেম ও তার পুত্র আব্দুল্লাহ আল-মামুন চকরিয়া প্রেসক্লাবে এসে জানিয়েছেন, গত ২৯ নভেম্বর গভীর রাতে তার বাড়ীতে কৌশলে প্রবেশ করিয়া সু-কেইসের তালা ভেঙ্গে নগদ ৩লক্ষ টাকা,বিভিন্ন আইটেমের ৫ ভরি স্বর্ণালংকার ও একটি এমআই এনড্রয়েড মোবাইল সেট চুরি করে নিয়ে যাওয়ার সময় শব্দ শুনে বিদ্যুতের বাল্ব জালিয়ে দিয়ে দেখতে পান সু-কেইস এর গ্লাস ভাঙ্গা। তখন খোঁজা-খোঁজি করে দেখেন উল্লেখিত টাকা ও মালামাল নিয়ে গেছে। অনেক চেষ্টা করে চুরি হওয়া মালামাল উদ্ধার করতে না পেরে শহিদুল ইসলাম শাওন এর নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত নামা আরো ২/৩ জনকে দেখিয়ে চকরিয়া থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন। আব্দুল্লাহ আল-মামুন জানান, গোপন সূত্র ধরে চকরিয়া পৌর শহরের একটি জুয়েলার্স থেকে চোরাই স্বণালংকার উদ্ধারের প্রক্রিয়া চলছে। ক্ষতিগ্রস্থরা চিহ্নিত চোরের সিন্ডিকেট প্রধানকে গ্রেপ্তার করে অইনের আওতায় আনার জন্য প্রশাসনের প্রতি দাবী জানিয়েছেন। বর্তমানে বিষয়টি স্থানীয় সুরাজপুর মানিকপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আজিমুল হক আজিম প্রকৃত তথ্য উদঘাটন করার চেষ্টা করছেন বলে জানাগেছে।##

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Application to the Ministry of Information for registration.