চকরিয়ায় স্ত্রী-সন্তান রেখে পরকিয়া পুত্রের বিরুদ্ধে বয়োবৃদ্ধ পিতার মামলা

চকরিয়া সংবাদদাতা:
চকরিয়া উপজেলা নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট ও নির্বাহী কর্মকর্তার আদালতে ফৌজদারী কার্যবিধি আইনের ১০৭/১১৭ সি ধারা মতে পুত্রের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ (মামলা) করেছেন পিতা। চকরিয়া উপজেলার বদরখালী ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ড (২নং ব্লক) পূর্ব পুকুরিয়াপাড়া গ্রামের মরহুম গুনু মিয়ার পুত্র বয়োবৃদ্ধ নুরুল ইসলাম (৬২) বাদী নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে এ মামলাটি করেন। এতে অভিযুক্ত করা হয়েছে বাদীর পুত্র মো: এমরানুল ইসলাম (২৫) ও তার পরকিয়া প্রেমিকা মহেশখালী উপজেলার হোয়ানক ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ড পানিরছড়া গ্রামের জাফর আলমের মেয়ে ১সন্তানের জনক হোছনে আরা বেগম (২৫)কে। আদালত অভিযোগ আমলে নিয়ে অভিযুক্তদের আগামী ২৫ডিসেম্বর’১৫ইং সরাসরি হাজির হওয়ার জন্য আদেশ দিয়েছেন। বাদী অভিযোগে জানিয়েছেন, ১নং বিবাদী এমরানুল ইসলাম তার ছেলে। সে বিবাহিত। পুত্র বধু মনোয়ারা বেগমের সাথে পুত্র সুন্দরভাবে দাম্পত্ত্য জীবন অতিবাহিত করে আসছে। সংসারে খাদিজাতুল কোবরা (১বছর) নামে এক কন্যা সন্তানও রয়েছে। কিন্তু ছেলে এমরান ২নং বিবাদী হোছনে আরা বেগমের সাথে পরকিয়া প্রেমে জড়িয়ে পড়ে। ওই মেয়েও বিবাহিত এবং তার সংসারেও ২সন্তান ও স্বামী রয়েছে। হোছনে আরা বেগম চকরিয়া ব্র্যাক অফিসে ফিল্ডে ক্ষুদ্র ঋণ কার্যক্রমে চাকুরী করার সুবাদে বিবাহিত পুত্রের সাথে অবৈধ মেলা-মেশা ও পরকিয়ায় জড়িয়ে পড়ে। পুত্র এমরানকে বাধা নিষেধ করলে উল্টো পিতা ও নিজ স্ত্রীকে একাধিকবার মারধর করে। বর্তমানে পরকিয়া প্রেমিকার সাথে আতাতে নিজ বাড়ির সাথে যোগাযোগ বন্ধ করে দিয়ে মোবাইল ফোনে পিতা ও স্ত্রীকে প্রাণ নাশের চেষ্টাসহ নানাভাবে ভয়ভীতি ও হুমকি ধমকি দিয়ে যাচ্ছে। এনিয়ে হতভাগা অসহায় পিতা নিরুপায় হয়ে সন্তানের বিরুদ্ধে নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে এ মামলাটি দায়ের করেন। তিনি প্রশাসনের কাছে আইনী সহায়তা চেয়েছেন। ইতিপূর্বে চকরিয়া ব্র্যাক অফিসেও একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন ভূক্তভোগী পিতা। তাতে কোন সুরহা হয়নি।##

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Application to the Ministry of Information for registration.